শিরোনাম
প্রকাশ : ১১ আগস্ট, ২০২০ ১৮:১৮
আপডেট : ১১ আগস্ট, ২০২০ ১৮:১৯

রিকশার সাইড দেওয়া নিয়ে সেই সংঘর্ষের মামলার পলাতক আসামির মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

রিকশার সাইড দেওয়া নিয়ে সেই সংঘর্ষের মামলার পলাতক আসামির মৃত্যু
গত ৬ আগস্ট রিকশার সাইড দেওয়া নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুপক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে অটোরিকশার সাইড দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহতের ঘটনায় করা হত্যা মামলার পলাতক আসামি জলদার মিয়ার (৬০) মৃত্যু হয়েছে। তিনি উপজেলার ধরমন্ডল ইউনিয়নের সাহাব আলীর ছেলে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নাসিরনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.আরিসুল হক।

এদিকে একই সংঘর্ষের ঘটনায় একলাস মিয়ার পক্ষের জলদার মিয়াও আহত হন বলে তার পরিবারের দাবি। থানায় মামলা হওয়ার পর থেকেই জলদার মিয়া পলাতক ছিলেন। তবে গত সোমবার তার নিজ বাড়িতে রাত সাড়ে ৭টার সময় তিনি মারা যায়।

নাসিরনগর থানার পুলিশ জানায়, গত ৬ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার সময় উপজেলার ধরমন্ডল বাজারে অটোরিকশার সাইড দেওয়াকে কেন্দ্র করে নজরুল ইসলাম ও একলাস মিয়ার মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনায় উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে নজরুল ইসলামের পক্ষের লোক মো. হাদিস মিয়া বুকে টেঁটাবিদ্ধ হয়ে আহত হন। আহত হাদিসকে হবিগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে মরিয়ম চান বাদী হয়ে ২৯ জনকে আসামি করে নাসিরনগর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। এই হত্যা মামলায় জলদার মিয়া ১২ নং আসামি ছিলেন।

নাসিরনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরিসুল হক বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় জলদার মিয়া আহত হয়েছিলেন কি না, সেটা আমার জানা নেই। তিনি কোথায় চিকিৎসা করিয়েছেন কি না, সে তথ্যও আমাদের কাছে নেই। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত বলা যাবে।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ
 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর