শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ নভেম্বর, ২০২০ ২৩:৪৬
প্রিন্ট করুন printer

হবিগঞ্জে ২ পক্ষের সংঘর্ষে চিকিৎসাধীন একজনের মৃত্যু

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

হবিগঞ্জে ২ পক্ষের সংঘর্ষে চিকিৎসাধীন একজনের মৃত্যু
প্রতীকী ছবি

হবিগঞ্জ শহরে ইজিবাইক স্ট্যান্ডের দখল নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত শেখ আব্দুল রশিদ সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউ ইউনিটে ৫ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর তিনি মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) রাত ৯টার দিকে মারা যান। 

এ তথ্য নিশ্চিত করেন নিহতের ছোট ভাই শেখ মখলিউছুর রহমান। বুধবার (২৫ নভেম্বর) সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়না তদন্ত শেষে আব্দুর রশিদের লাশ বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে বলে জানা গেছে। এদিকে, আব্দুর রশিদের মৃত্যুর খবর শুনে সংঘর্ষে জড়িত উমেদনগরের মুক্তার মিয়ার পক্ষের লোকজন এলাকা ছেড়ে আত্মগোপন করেছেন। 

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা বলেন, সংঘর্ষের নিহতের ঘটনায় হত্যা মামলা নেয়ার পাশাপাশি জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করা হবে। তবে কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা কিংবা আইন শৃংঙ্খলা পরিস্থিতির বিঘ্ন ঘটানো যাবে না। 
 
প্রসঙ্গ, গত বৃহস্পতিবার হবিগঞ্জ শহরের চৌধুরী বাজার খোয়াইমুখ টমটম স্ট্যান্ড দখল নিয়ে পৌর এলাকার উমেদনগর আলগাবাড়ি বনাম পূর্ব এলাকার লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রথমে স্ট্যান্ড এলাকায় সংঘর্ষ হলেও পরে নবীগঞ্জ সড়কের মাদ্রাসা এলাকায় দফায় দফায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ চলাকালে একপক্ষ অপর পক্ষের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এসময় ওই এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। 

খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হবিগঞ্জ সদর সার্কেল) মোহাম্মদ রবিউল ইসলাম পিপিএম ও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ-ওসি মো. মাসুক আলীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ৮ রাউন্ড টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে উভয় পক্ষের ৭ জনকে আটক করে পুলিশ। সংঘর্ষে নিহত শেখ আব্দুর রশিদ ও পুলিশ সদস্যসহ উভয় পক্ষের ৩০ জন আহত হয়। আহতের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আব্দুর রশিদকে সিলেট এমএজি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। আইসিইউতে ৫ দিন চিকিৎসা শেষে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর