শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ জানুয়ারি, ২০২১ ২১:৪৬
প্রিন্ট করুন printer

প্রেমিকার সঙ্গে রাত্রিযাপন করতে গিয়ে ধরা, পুলিশ কর্মকর্তা ক্লোজড

নওগাঁ প্রতিনিধি:

প্রেমিকার সঙ্গে রাত্রিযাপন করতে গিয়ে ধরা, পুলিশ কর্মকর্তা ক্লোজড
প্রতীকী ছবি

নারীঘটিত বিষয়ে জড়িত থাকার অভিযোগে নওগাঁর বদলগাছী থানার উপ-পরির্দশক (এসআই) আরিফুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। রবিবার রাতে একটি বাড়িতে প্রেমিকাসহ গ্রামবাসীর হাতে আটক হওয়ায় তার বিরুদ্ধে এ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এ ঘটনা তদন্তে নওগাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে (ক্রাইম) কেএমএ মামুন খান চিশতিকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

তদন্ত কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পত্নীতলা সার্কেল) তরিকুল ইসলাম ও জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মোছা: সুরাইয়া খাতুন।

নওগাঁর পুলিশ সুপার (এসপি) প্রকৌশলী মো. আব্দুল মান্নান মিয়া আজ মঙ্গলবার রাত ৯টায় মুঠোফোনে বদলগাছী থানার উপপরির্দশক (এসআই) আরিফুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সোমবার সকালে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে নওগাঁ পুলিশ লাইনন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে। তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি তদন্ত কমিটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে। 

জানা গেছে, নওগাঁর বদলগাছী থানার উপপরির্দশক (এসআই) আরিফুল ইসলাম রবিবার দিবাগত রাতে বদলগাছী উপজেলার কদমগাছী গ্রামের একটি বাড়িতে তার জনৈক কথিত প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে আসেন। সেখানে উপপরির্দশক (এসআই) আরিফুল ইসলাম তার সঙ্গে অসামাজিক কার্যকলাপের লিপ্ত হয়েছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনাটি জানার পর গ্রামবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। তারা ওই নারীসহ উপপরির্দশক (এসআই) আরিফুল ইসলামকে আটকে রেখে বদলগাছী থানা পুলিশকে খবর দেন। এরপর থানা পুলিশ রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে উপপরির্দশক (এসআই) আরিফুল ইসলামকে উদ্ধার করে।      

নওগাঁর বদলগাছী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চৌধুরী যোবায়ের আহম্মেদ বলেন, উপপরির্দশক (এসআই) আরিফুল ইসলামকে একজন নারীসহ গ্রামবাসীরা আটকে রেখেছিল। সেখানে পুলিশ গিয়ে তাকে থেকে উদ্ধার করেছে। ওই নারীর কোনো অভিযোগ না থাকায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৯:১৩
প্রিন্ট করুন printer

তোড়জোড়ে দেড় বছর পার, তবুও অপসারণ হয়নি ময়লার ভাগাড়!

সিলেট প্রতিনিধি

তোড়জোড়ে দেড় বছর পার, তবুও অপসারণ হয়নি ময়লার ভাগাড়!

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদ সড়কের প্রবেশমূখে জমে থাকে ময়লার স্তুপ। ছড়াচ্ছে উৎকট দুর্গন্ধ। দেড় বছর পূর্বে এ ময়লা অপসারণে সংশ্লিষ্টগণ তোড়জোড় শুরু করলেও, অপসারণ হয়নি ময়লার ভাগাড়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনেই এই পরিবেশ দূষণে বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে শিক্ষার্থীরা ও এলাকাবাসী।

সরেজমিন দেখা যায়, উপজেলার নতুন বাজার গোলচত্বর থেকে খোদ উপজেলা পরিষদ সড়কের প্রবেশমুখে হাজী মফিজ আলী বালিকা স্কুল এন্ড কলেজের মূল গেইটের সামনের খোলা অংশটিতে জমে আছে ময়লার ভাগাড়। এই ময়লা-আবর্জনার দূর্গন্ধে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থী, অভিভাবক, পথচারীসহ, এলাকাবাসীকে। পাশাপাশি, তাদেরকে পড়তে হচ্ছে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্থানীয় কতিপয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসা-বাড়ির ময়লা, নিয়মিতই এখানে ফেলা হয়। যারা ময়লা ফেলেন, তাদেরকে উপজেলা প্রশাসন ও কলেজ কর্তৃপক্ষ নিষেধ করলেও কর্ণপাত করেনি কেউ। তারা জানান, দেড় বছরেও ময়লা ফেলার বিকল্প কোন স্থান পাইনি আমরা।

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, 'বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধে দম বন্ধ হয়ে আসার উপক্রম হয়। বাতাসের মাধ্যমে এই দুর্গন্ধ বিদ্যালয় ক্যাম্পাসেও চলে আসে। যার কারণে বিদ্যালয় অধ্যায়ণকালে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।'

হাজী মফিজ আলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ নেহারুন নেছা বলেন, 'এটা দীর্ঘদিনের সমস্যা। একটু বৃষ্টি হলেই সেখানে অতিরিক্ত দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। এই দূর্গন্ধের কারণে শিক্ষার্থীদের নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হবারও ঝুঁকি রয়েছে।'

বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছয়ফুল হক বলেন, ' নবগঠিত বিশ্বনাথ পৌরসভারপরবর্তী সভায় ময়লা অপসারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা রয়েছে।'

এছাড়াও, বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পৌর প্রশাসক বর্ণালী পাল বলেন, আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা  করেছি আপসারণের। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে আমরা উদ্যোগও নিয়ে ছিলাম। পরবর্তীতে ‘করোনা’র কারণে সে অনুযায়ী এগুতে পারিনি। বর্তমানে এটা পৌরসভার অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। বরাদ্দ আসলেই নিয়মানুযায়ী এ ময়লা অপসারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

 


বিডি প্রতিদিন / অন্তরা কবির 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৮:৫৭
প্রিন্ট করুন printer

ট্রাকচাপায় ২ শ্রমিক নিহত

অনলাইন ডেস্ক

ট্রাকচাপায় ২ শ্রমিক নিহত

সাতক্ষীরায় ট্রাকচাপায় দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন। নিহত শ্রমিকদের নাম মনিরুল ও মোহাম্মদ আলী। তাদের বাড়ি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আগরদাড়ি ইউনিয়নের বকচারা গ্রামে।

শনিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে সাতক্ষীরা শহরের যুব উন্নয়ন অধিদফতরের সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৮:৩৭
প্রিন্ট করুন printer

কিশোরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত

কিশোরগঞ্জ-ভৈরব মহাসড়কের সদর উপজেলার জালুয়াপাড়া এলাকায় মোটরসাইকেল ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখী সংঘর্ষে শুভ (২০) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন।  শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাত ১১টার দিকে দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহত শুভ পাকুন্দিয়া উপজেলার বিশুয়াটি গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পুলেরঘাট সেতুর কাছে জালুয়াপাড়া এলাকায় মোটরসাইকেল ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মোটরসাইকেল চালক শুভ গুরুতর আহত হন। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

 

বিডি প্রতিদিন / অন্তরা কবির 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৪:৩৩
আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৪:৩৮
প্রিন্ট করুন printer

সাঘাটায় কিশোরীর গলা কাটা লাশ উদ্ধার

গাইবান্ধা প্রতিনিধি

সাঘাটায় কিশোরীর গলা কাটা লাশ উদ্ধার
প্রতীকী ছবি

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলায় আতিকা আকতার (১৬) নামে এক কিশোরীর গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের মা হামিদা বেগমকে আটক করা হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে সাঘাটা উপজেলার ভরতখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ উল্লাহ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আতিকা আকতার ভরতখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ উল্লাহ গ্রামের আমিনুল ইসলামের মেয়ে। সে নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, আতিকা আকতারের সাথে একই এলাকার রাসেল নামে এক ছেলের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এনিয়ে শুক্রবার বিকেল চারটার দিকে আতিকা আকতারের সাথে তার মা হামিদা বেগম ও বাবা আমিনুল ইসলাম এবং পরিবারের সদস্যদের বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে তাকে মারধর ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলাকেটে হত্যার অভিযোগ পাওয়া যায়।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ গলা কাটা অবস্থায় কিশোরীর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে একটি চাকু উদ্ধার করা হয়েছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সাঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল হোসেন জানান, প্রেমঘটিত কারণে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের মা হামিদা বেগমকে আটক করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০২:০৩
আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০২:০৮
প্রিন্ট করুন printer

কালিয়াকৈরে গলায় ফাঁস দিয়ে গৃহবধূর ‘আত্মহত্যা’

কালিয়াকৈর প্রতিনিধি

কালিয়াকৈরে গলায় ফাঁস দিয়ে গৃহবধূর ‘আত্মহত্যা’
প্রতীকী ছবি

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় গলায় ফাঁস দিয়ে আফসানা আক্তার (২৮) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার রাতে উপজেলার মৌচাক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মৃত আফসানা মৌচাক এলাকার আলী আহাম্মদের স্ত্রী।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মৌচাক এলাকায় স্বামীর সাথে অভিমান করে ঘরের ফ্যানের সাথে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন আফসানা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কালিয়াকৈর থানার এসআই রনি কুমার সাহা জানান, লাশটি ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে হত্যা নাকি আত্মহত্যা।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর