শিরোনাম
প্রকাশ : ৬ মার্চ, ২০২১ ০৮:৪১
আপডেট : ৬ মার্চ, ২০২১ ১০:২০
প্রিন্ট করুন printer

দু’ফসলি জমিতে গম চাষে সাফল্য

সাইফুল ইসলাম বেগ, বিশ্বনাথ (সিলেট)

দু’ফসলি জমিতে গম চাষে সাফল্য

দু’ফসলি জমিতে গম চাষে সাফল্য এনেছেন সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার কৃষক সাদিকুর রহমান মিজান। আমন ও আউশ ধান চাষের পর একই জমিতে গম আবাদে আশানুরুপ ফলন পেয়েছেন তিনি। স্বল্প সময়ে নামমাত্র শ্রম ও অপেক্ষাকৃত কম খরচে, এ প্রকল্প থেকে কয়েকগুণ আয়ের আশা রয়েছে তার। 

উপজেলার সদর ইউনিয়নের পুরান সিরাজপুর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, বসত বাড়ির কাছেই দু’ফসলি জমিতে দুলছে পুষ্ট সবুজ গমের গাছ। পাশাপাশি জমিতে চাষ করেছেন বাঁধাকপি, টমেটো, শিম, ব্রকলি, সূর্যমুখি ও মিষ্টি কুমড়া।  

কৃষক সাদিকুর রহমান জানান, 'জমিতে আগে বছরে দু’বার কেবল আউশ ও আমন ধান চাষ করেতন। এরপর ৪-৫ মাস অনাবাদি থাকতো জমি। গেল ক’বছর ধরে কোন সৌসুুমেই আর অনাবাদি রাখেন না। এবার ধানের পর গম আবাদে স্বাভাবিক ভাবেই ফলন হয়েছে ভালো।' 

পৌষ মাসে কৃষি প্রণোদনার আওতায় ২ বিঘা জমিতে বারি-২৮ জাতের করে ২৫ কেজি গমের বীজ বপণ করেন তিনি। অল্প পরিশ্রমে চার মাসের মাথায় ফলন আসে গমের। আগামি চৈত মাসে ক্ষেতে থেকে তোলা হবে গম। 

এই পর্যন্ত চাষে খরচ হয়েছে প্রায় ১০ হাজার টাকা। হিসেব অনুযায়ী এ ক্ষেত থেকে বিঘা প্রতি ১৫মণ করে ৩০মণ গম পাওয়ার আশা রয়েছে। ১৫-১৮শ টাকা মণ দরে যার বাজার মূল্য ৪৫-৫৪ হাজার টাকা। এতে খরচ বাদে চার মাসেই আয় হবে ৩০-৩৫ হাজার টাকা।  
  
সাদিকুর রহমান আরও বলেন, 'এইচএসসি শেষ করে ব্যবসা-বাণিজ্য, চাকুরীও করেছি। পরে গেল পাঁচ বছর ধরে কৃষিকাজেই সূফল পাচ্ছি। পরিশ্রম আর সঠিক নিয়মে কাজ করলে কৃষিতে সাবলম্বী হওয়া সম্ভব।'
 
এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমজান আলী ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন’কে বলেন, 'গমের জমিতে সার কম প্রয়োগ করতে হয়। স্বল্প সেচেও করা যায় চাষ। বাজারে দাম বেশি থাকায়, গম বর্তমানে কৃষকের কাছে  জনপ্রিয় ফসল হয়ে উঠছে। এ বছর প্রণোদনার আওতায় উপজেলার কৃষকদের গমের বীজ, প্রয়োজনীয় রাসায়নিক সার ও সাইনবোর্ড সহায়তা দেওয়া হয়েছে।' 

 


বিডি প্রতিদিন / অন্তরা কবির 


আপনার মন্তব্য