শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল, ২০২১ ২০:৫৩
প্রিন্ট করুন printer

লকডাউনে অচেনা বগুড়া শহর

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

লকডাউনে অচেনা বগুড়া শহর

বগুড়া শহরের বিভিন্ন এলাকায় করোনাভাইরাসের কারণে কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে। গত দুই দিনে শহরে তেমন কোন লোকসমাগম দেখা যায়নি। বৃহস্পতিবার বগুড়া শহরে সকল মার্কেট, বিপণী বিতান বন্ধ ছিল। 

কঠোর লকডাউনের সঙ্গে সঙ্গে শহরের পাড়া মহল্লায় প্রবেশের প্রধান প্রধান সড়কে বাঁশ, লাঠি ও ব্যারিকেড দিয়ে চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। কোনভাবেই পাড়া মহল্লার ভেতরে বাহিরের যানবাহন, রিকশা, ইজিবাইক প্রবেশ করতে পারবেনা। আবার পাড়া মহল্লার লোকজনও সহজে বের হতে পারবে না।

জানা যায়, বুধবার কঠোর লকডাউনের প্রথম দিন ছুটি থাকায় শহরে কোন লোকজনই ছিলনা। বৈশাখী ছুটির দিনে শহর ছিল ফাঁকা। তবে বৈশাখী কোন আমেজ ছিল না। ছিল সাধারণ মানুষের মধ্যে রোজা পালন ও ইফতারের ব্যস্ততা। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত লক ডাউনের প্রথম দিনের মত দ্বিতীয় দিনও ব্যস্ততম শহর বগুড়া অনেকটাই অচেনা ছিল।

বুধবারের পর বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই লকডাউন কার্যকরে কঠোর ছিল প্রশাসন। ফলে শহরে যেমন যানবাহন ছিল হাতে গোনা, তেমনি দোকান পাট ছিল বন্ধ। লকডাউন সফল করতে জেলা প্রশাসন থেকে সকালে ও বিকেলে পৃথকভাবে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। 

জনসাধারণকে অযথা শহরে ঘোরাঘুরি না করে ঘরে ফিরে যাওয়ার পরামর্শ দেন এবং মাস্ক পড়তে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করেন। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে জেলার ফতেহ আলী বাজারের মাছ বাজার স্থানান্তর করে জেলা শহরের নবাববাড়ি সড়কে নেওয়া হয়েছে। এই সড়কেই পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত মাছ বাজার বসবে। সেই সঙ্গে কিছু কিছু সবজির দোকানও বসবে। 

এদিকে লকডাউন চলাকালে সরকারি সহযোগিতায় ব্যবসায়ীরা দুধ, ডিম ও মাংস বিক্রি করছেন। ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় কেন্দ্র থেকে দুধ প্রতি লিটার ৫৫ টাকা, ডিম প্রতি হালি (৪টি) ২৮ টাকা, বয়লার মুরগী প্রতি কেজি ১৩৫ টাকা ও সোনালী মুরগী ২২০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর