শিরোনাম
প্রকাশ : ৬ মে, ২০২১ ২২:১৩
প্রিন্ট করুন printer

নোয়াখালীতে অন্যের জমিতে স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ করলো প্রশাসন

নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীতে অন্যের জমিতে স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ করলো প্রশাসন
Google News

নোয়াখালীতে আদালতের ১৪৪/১৪৫ ধারা অমান্য করে প্রতিপক্ষের জমির উপর পাকা ভবনের স্থাপনা নির্মাণ করছিলেন প্রতিপক্ষ নজরুল ইসলাম শাকিল। তবে প্রশাসনের নির্দেশে সে নির্মাণ কাজ বন্ধ করতে বাধ্য হন শাকিল। 

বৃহস্পতিবার বেগমগঞ্জ সার্কেলের নির্দেশে নির্মাণ কাজ বন্ধ করা হয়। বেগমগঞ্জ উপজেলার অনন্তপুর এলাকার তুলা বাড়িগো মনছুর আহম্মদের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে আদালতের ১৪৪/১৪৫ ধারা অমান্য করে প্রতিপক্ষের জমির উপর নজরুল ইসলাম শাকিলের বিরুদ্ধে পাকা ভবনের স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ উঠে। এ বিষয়ে সুবিচার চেয়ে বুধবার দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেনের বরাবর একটি অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষে মনছুর আহম্মদ জুয়েল। পরে বিষয়টি বেগমগঞ্জ সার্কেলের নজরে আসলে তিনি কাজ বন্ধ করার নির্দেশ দেন শাকিলকে।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী মনছুর আহম্মদ জানান, আমি দীর্ঘদিন যাবত আমার মালিকীয় ভূমির উপর শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করে আসছি। এলাকার কারো সাথে আমার কোন বিরোধ নেই। গত ১ বছর যাবৎ আমার বাড়ির পাশে বসবাসকারী আবুল খায়ের ও তার ছেলে নজরুল ইসলাম শাকিল আমার বাড়ির চলাচলের রাস্তাটি তাদের নামে লিখে দিতে বলছে। না দিলে তারা জোরপূর্বক অবৈধ ভাবে দখল করে নিবে ও আমাকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দিয়ে আসছে। কয়েকদিন আগে তারা আমার চলাচলের রাস্তার উপর তাদের বাড়ির টয়লেট নির্মাণ করতে ইট, বালি ও সিমেন্ট আনলে আমি তাতে বাধা দেই এবং এ ব্যাপারে আমি অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এর বিজ্ঞ আদালতে উক্ত জায়গার উপর নিষেজ্ঞা চেয়ে একটি মামলা করি। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে উক্ত ভূমির উপর নিষেধাজ্ঞা জারির আদেশ দেন। সে মোতাবেক আইন শৃঙ্খলার স্বার্থে বেগমগঞ্জ থানা থেকে বিষয়টি নোটিশ দিয়ে অবগত করেছে। তারপরও তারা আদালত ও থানাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে জোরপূর্বক আমার মালিকীয় জমি দখল করার চেষ্টা করছে। অবশেষে তারা প্রশাসনের নির্দেশে স্থাপনার নির্মাণ কাজ বন্ধ করে।  

এ বিষয়ে বেগমগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি মো. কামরুজ্জামান শিকদার জানান, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী আইন-শৃঙ্খলার স্বার্থে আমি নোটিশ দিয়ে বাদী/ বিবাদীদেরকে অবগত করেছি। যেন কেউ কাজ করতে না পারে। কিন্তু বিবাদীরা নির্দেশ অমান্য করে কাজ করেছিল। অবশেষে কাজ বন্ধ করা হয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

এই বিভাগের আরও খবর