৯ আগস্ট, ২০২১ ১৭:২৯

নবজাতককে হত্যার পর ‘অলৌকিক গল্প সাজানো’ সেই মা কারাগারে

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

নবজাতককে হত্যার পর ‘অলৌকিক 
গল্প সাজানো’ সেই মা কারাগারে

প্রতীকী ছবি

২২ দিন বয়সী নিজের সন্তানকে পানিতে ফেলে হত্যার পর অলৌকিক গল্প সাজানো মা সাবিকুন্নাহার এখন ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারে। গত শুক্রবার গভীর রাতে সাবিকুন্নাহার তার নিজ সন্তান নাঈম মিয়াকে বাড়ির সামনে ফেলে হত্যা করে। পরদিন লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে রবিবার পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে আসল ঘটনা।

ময়মনসিংহের তারাকান্দায় উপজেলার বিসকা ইউনিয়নের লালমা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে স্বামী হুমায়ুন মিয়ার করা মামলায় রবিবার বিকালে নবজাতক হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন সাবিকুন্নাহার।

তারাকান্দা থানা পুলিশ জানায়, সন্তান জন্মের ২২ দিন হলেও বুকে দুধ না আসায় খাওয়াতে পারেননি মা সাবিকুন্নাহার। বেশিরভাগ সময় তার সন্তানকে নিজেদের কাছেই রাখতেন দাদা-দাদি, দেখাশোনাও তারাই করতেন। সন্তানকে বুকের দুধ না খাওয়াতে পারা ও আদর করতে কাছে না পাওয়ার হতাশা থেকেই রাতের আঁধারে সন্তানকে পুকুরে ফেলে দেন সাবিকুন্নাহার।

পুলিশ আরও জানায়, মা সাবিকুন্নাহার নিজেকে বাঁচানোর জন্য একটি অলৌকিক গল্পও সাজায়। পানিতে ফেলে দিয়ে বলে, সাদা শাড়ি পড়া দুই নারী গভীর রাতে দরজায় শব্দ করে ডাকতে থাকে। তারা বলতে থাকেন- ‘তোর ছেলেকে দে, পানি খাওয়াব।’ ছেলেকে কোলে দেওয়ার পর দুই নারী বলেন, ‘তোর ছেলেকে এখনই দিয়ে যাব।’ এরপর শিশুটিকে নিয়ে চলে যায় দুই নারী। অনেক সময় পেরিয়ে গেলেও ছেলেকে নিয়ে না ফেরায় চিৎকার শুরু করেন তিনি।

তারাকান্দা থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, রবিবার দুপুর পর্যন্ত ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের পর অভিযুক্ত সাবিকুন্নাহার জবানবন্দি দেন। নিজের সন্তানকে হত্যার দায় স্বীকার করার পর আদালতের নির্দেশে সাবিকুন্নাহারকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


বিডি প্রতিদিন/ফারজানা

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর