শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ আগস্ট, ২০২১ ১৮:৩৬
প্রিন্ট করুন printer

ঝিনাইদহে ব্যাংকের টাকা আত্মসাৎ, আরএমও-ম্যানেজারের পরস্পরবিরোধী বক্তব্য

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহে ব্যাংকের টাকা আত্মসাৎ, আরএমও-ম্যানেজারের পরস্পরবিরোধী বক্তব্য
ঝিনাইদহে কৃষি ব্যাংকে অনিয়ম করে টাকা উত্তোলনের অভিযোগ গ্রেফতার নাজমুল হক।
Google News

ঝিনাইদহে কৃষি ব্যাংকে অনিয়ম করে লাখ লাখ টাকা উত্তোলনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে গ্রেফতার হয়েছেন ঝিনাইদহ কৃষি ব্যাংক শাখার সাবেক সেকেন্ড অফিসার নাজমুল হক।

বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর ব্যাংকের ম্যানেজার মো. রুবায়েৎ হাসান মঙ্গলবার ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি জিডি করেছেন। তবে বিষয়টি নিয়ে আঞ্চলিক কার্যালয়ের আরএমও ও ঝিনাইদহ শাখার ম্যানেজারের পরস্পরবিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে।

অভিযোগে জানা গেছে, ঝিনাইদহ শহরের হামদহ কাঞ্চনপুর মধ্যপাড়ার নজরুল ইসলামের ছেলে ব্যাংক কর্মকর্তা নামজমুল হক। তিনি ২০১৮ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ঝিনাইদহ শাখায় কর্মরত ছিলেন। এসময় তিনি নিজ নামে অ্যাকাউন্ট খুলে বিভিন্ন সময় ৮৫ লাখ ৮৭ হাজার ২২৫ টাকা আত্মসাৎ করেন। উন্নত প্রযুক্তির কারণে বিষয়টি ঢাকা হেড অফিসের নজরে আসে। পরে তাকে ঝিনাইদহ থেকে মাগুরায় বদলি করা হয়। কিন্তু সেখানেও তিনি একই কাজ করতে শুরু করেন।

মাগুরা কৃষি ব্যাংকের ব্যবস্থাপক মো. রেজাউল হক জানান, নাজমুল হক মাগুরা শাখায় বদলি হয়ে বিভিন্ন সময়ে ব্যাংকর টাকা তার হিসাবে ট্রান্সফার করে ৩৭ লাখ ৮৩ হাজার ৭৩৪ টাকা আত্মসাৎ করেন।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ কৃষি ব্যাংকের আরএমও মো. এনায়েত করিম জানান, নাজমুল দিনের পর দিন টাকা উত্তোলন করেছেন। এ ঘটনা তো ম্যানেজার রুবায়েৎ হাসান ও ক্যাশিয়ার মো. নাজির উদ্দিনের জানার কথা। কারণ দিন শেষে ম্যানেজার প্রত্যেক চেক তদন্ত করেন।

বিষয়টি নিয়ে ম্যানেজার রুবায়েৎ হাসান জানান, আরএমও স্যার ভুল কথা বলেছেন। তিনিও তো প্রতি মাসে ব্যাংকের শাখায় চেক তদন্ত করে থাকেন। তাহলে তিনি কী করেছেন?

ম্যানেজার আরো জানান, গ্রাহকের ঋণের বিষয়টি আইও’রা দেখেন। এ সম্পর্কে আমি ভাল বলতে পারবো না। তিনি উদাহরণ হিসেবে উল্টো প্রশ্ন করে বলেন, এটি তো ছোটখাটো বিষয়। ভুল যদি হয়েই থাকে টাকা জমা দিয়ে আমরা সেটি সমাধান করতে পারবো। তবে হলমার্ক ঘটনায় কী হয়েছে?

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর