৯ অক্টোবর, ২০২১ ১৭:২০

দৌলতদিয়া পল্লী থেকে যৌনকর্মীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার

রাজবাড়ী প্রতিনিধি

দৌলতদিয়া পল্লী থেকে যৌনকর্মীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে রিতু বেগম (৩০) নামে এক যৌনকর্মীকে হত্যা করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে যৌনপল্লীর বাড়িওয়ালা সুজন খন্দকারের ঘর থেকে রিতুর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। রিতুর বাড়ি গাজিপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলাতে।

স্থানীয়রা জানান, শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে স্থানীয় এক যুবক রিতুর বাড়ির ফ্রিজে রাখা মাছ নিতে এসে তার ঘরের সামনে রক্ত দেখতে পায়। পরে যৌনপল্লীর বাসিন্দাসহ পুলিশকে খবর দেয়। প্রথমে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এরপর পুলিশের আরও দুইটি ইউনিট সিআইডি ও পিবিআই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার কিছুক্ষণ পর তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর গলাকেটে মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়। তবে কি কারণে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে সে সম্পর্কে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। রিতুর মেয়ে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, আমার মা যৌনপল্লীতে কাজ করতো। আমি পল্লীর বাইরে থেকে লেখাপড়া করতাম। মা যে ঘরে যৌনব্যবসা করতো সেই ঘরে তাকে হত্যা করা হয়নি। আমার মা যে ঘরে বসবাস করতো (সুজন খন্দকারের বাড়ি), সেই ঘরে তাকে হত্যা করা হয়েছে। মায়ের হত্যার বিচার চান তিনি। 

গোয়ালন্দ ঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল্লাহ আল তায়েবীর বলেন, খবর পেয়ে রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাহউদ্দীন শেখসহ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। শুধু থানা পুলিশ নয়। ঘটনার সঠিক তদন্তরের জন্য সিআইডি ও পিবিআই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত সংগ্রহ করেছেন। হত্যাকাণ্ডের তদন্তের জন্য কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত রহস্য উঘাটনের চেষ্টা করছে পুলিশ।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর