শিরোনাম
১৮ অক্টোবর, ২০২১ ২১:৩৭

কুমিল্লায় খাল উদ্ধারে জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা ১০০০ একর জমি

কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লায় খাল উদ্ধারে জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা ১০০০ একর জমি

কুমিল্লার ভাউকসার-কার্জন সংযোগ খালটির বিজরা বাজার সংলগ্ন অংশের অবৈধ স্থাপনা অপসারণ করা হয়েছে। খাল উদ্ধারে জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পাবে ১০০০ একর জমি।

স্থানীয় জনসাধারণের সূত্র মতে, খালটি বরুড়া উপজেলার শিলমুড়ী ও বাউকসার ইউনিয়ন, লালমাই উপজেলার বাকই উত্তর ইউনিয়ন ও লাকসাম উপজেলার বাকই দক্ষিণ ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে কার্জন খালে পতিত হয়েছে। প্রায় ৪কি:মিঃ: দৈর্ঘ্যের খালটির বেশিরভাগ অংশই ভরাট হয়ে যাওয়ায় ও কিছু অংশে স্থাপনা নির্মাণ করায় পানি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছিল। এতে ৩টি উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের প্রায় ১০০০ একর জমিতে জলাবদ্ধতার কারণে ফসল উৎপাদন বিঘ্নিত হতো। তিন ফসলী জমির অধিকাংশ অংশেই কৃষকগণ এক ফসলের বেশি ফসল ফলাতে পারতেন না।

স্থানীয় কৃষকের চাহিদার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) কুমিল্লা-চাঁদপুর-ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সেচ এলাকা উন্নয়ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের উদ্যোগের মাধ্যমে খালটি পুনঃখননের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। খালটির প্রায় ৩৬৫০মিটার পুনঃখনন কাজ করা হয়। লাকসাম উপজেলার বিজরা বাজার সংলগ্ন অংশের ৩৫০মিটার জুড়ে বিভিন্ন ধরণের অবৈধ স্থাপনা থাকায় খালটি পুনঃখননের অসুবিধা হচ্ছিল। তাই খাল দখল করে গড়ে উঠা এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের সহায়তা চাওয়া হয়।

সম্প্রতি সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করেন। উক্ত উচ্ছেদ অভিযানে লাকসামের সহকারী কমিশনার (ভূমি), বিএডিসির উপসহকারী প্রকৌশলীসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও কৃষকরা উপস্থিত ছিলেন।

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর