৩১ মে, ২০২৪ ১৫:৪৫

বগুড়ায় হাটে কোরবানির পশু

আবদুর রহমান টুলু, বগুড়া:

বগুড়ায় হাটে কোরবানির পশু

পবিত্র ঈদ-উল আযহার আর মাত্র ১৫ দিন বাকি। ইতিমধ্যে বগুড়ার বিভিন্ন হাট-বাজারগুলোতে কোরবানির পশু বিক্রি শুরু হয়েছে। জমে উঠেছে পশু কেনাকাটা। তবে খাবারে দাম ও অন্যান্য জিনিসের দাম বাড়ায় গরু-ছাগলের দামও এবার বেশি। 

জানা যায়, কোরবানির পশু কেনা-বেচা করতে বগুড়ার বিভিন্ন হাটে ভিড় করছেন ক্রেতারা-বিক্রেতারা। ব্যবসায়ী ও খামারিরা দেশি-বিদেশিসহ ছোট-বড় গরু-ছাগল হাটে তুলছেন। ক্রেতারা আগে থেকেই যার যার পছন্দ অনুযায়ী কোরবানির পশু কিনছেন। ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ে বলছেন খাবার ও ওধুধের দাম বাড়ার কারণে গত বছরের তুলনায় এবার তুলনামূলক দাম বেশি।

শুক্রবার উত্তরাঞ্চলের অন্যতম কোরবানির পশুর হাট মহাস্থান হাট ঘুরে দেখা যায়, এই হাটে প্রতিবছর উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন স্থান থেকে গরু ছাগল নিয়ে আসেন বিক্রেতারা। বগুড়ার অন্যান্য হাটের চেয়ে এই হাটে গরুর আমদানী বেশি বলে ক্রেতারাও ছোটে এই হাটে। কোরবানির পশুর মধ্যে গরুর আমদানী ভাল হলেও ছাগলের সংখ্যা কম ছিল। গত বছর যে গরুর দাম ৮০ হাজার টাকা ছিলো এ বছর সেই গরুর দাম ৯০ থেকে ৯২ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এদিন শহরতলী বনানী হাটেও গরু-ছাগল ছিল চোখে পড়ার মত। বিশেষ করে শহরের লোকজন এই হাট থেকে বেশি কোরবানীর পশু কিনে থাকেন। শহরের কাছাকাছি এবং গাড়ী ভাড়া কম হওয়ায় অনেক ক্রেতাই এই হাটে ভিড় করেন।  এছাড়াও দুপচাঁচিয়া ধাপের হাট, পেরীহাটসহ অন্যান্য পশুর হাটগুলোতে প্রচুর গরু-ছাগল উঠছে। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে মালা পরিয়ে সাজানো হয়েছে বড় বড় ষাড় গরু। 

শুক্রবার বগুড়া সদরের বৃহত্তর মহাস্থান হাটে গরু বিক্রি করতে আসা নাজমুল হক জানান, পশু খাদ্যর দাম বেড়েছে। খড়ের দাম দ্বিগুণ হয়েছে। গো খাদ্যের দাম বাড়ার কারণে গরুর দাম বেড়েছে। 
এই হাটে গরু কিনতে আসা আনিছুর রহমান মিঠু জানান, গত বছর ঈদুল আযহার (কোরবানী) হাটের চাইতে এবছর মহাস্থান হাটে গরুর দাম বেশি মনে হচ্ছে। এই হাটে সব ধরণের গরু-ছাগল উঠেছে। আমি দেখছি পছন্দের কোরবানীর পশু। তবে আজকে মনে হয় কোরবানির পশু কেনা হবে না। 

এদিকে বগুড়ায় ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে কোরবানির জন্য ৭ লাখ ৩৫ হাজার পশু প্রস্তুত রয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় অনেক বেশি। ফলে জেলায় চাহিদা মিটিয়ে অন্য জেলাতে বিক্রি হতে পারে এসব পশু। একই সাথে বেড়েছে খামারীর সংখ্যাও। ঈদকে ঘিরে খামারীরা এখন লাভের আশায় দিন গুনছেন। বগুড়ায় কোরবানি পশুর চাহিদার বিপরীতে প্রস্তুতকৃত পশু উদ্বৃত্ত রয়েছে বলে জানিয়েছে বগুড়া জেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়।

বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোছা. নাছরীন পারভীন জানান, গত বছরের চেয়ে বগুড়ায় প্রস্তুতকৃত পশুর সংখ্যা বেড়েছে। এবছর জেলায় যে পরিমাণ কোরবানির পশুর চাহিদা রয়েছে তার চেয়ে প্রস্তুতকৃত কোরবানির পশুর উদ্বৃত্ত রয়েছে ২৯ হাজার ১৫৫টি। আগের যেকোন সময়ের চেয়ে বগুড়ায় পশু প্রতিপালনের হার বেড়েছে। জেলায় কোরবানির পশুর কোন সংকট হবে না।

বিডি প্রতিদিন/এএম

 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর