শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৩ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ মে, ২০১৮ ২২:৩১

চলচ্চিত্র ও নাটকের মায়েরা

চলচ্চিত্র ও নাটকের মায়েরা

বাস্তব জীবনে মায়ের যে চিরন্তন রূপ অভিনেত্রীরা দক্ষতার সঙ্গে তা ফুটিয়ে তোলেন চলচ্চিত্র ও নাটকে। কখনো কখনো নায়ক-নায়িকাকে ছাপিয়ে ‘মা’ হয়ে যান গল্পের মধ্যমণি। অনেকে মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করে প্রশংসিত হয়েছেন। পেয়েছেন রাষ্ট্রীয় সম্মান। আজ বিশ্ব মা দিবসে মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করা শিল্পীদের নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করেছেন— আলাউদ্দীন মাজিদ

 

আনোয়ারা

বাংলাদেশে সর্বাধিক ছবিতে মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী হলেন আনোয়ারা। সেই হিসেবে তাকেই বাংলাদেশের ছবিতে সবচেয়ে জনপ্রিয় মা হিসেবে গণ্য করা হয়। নতুন-পুরনো মিলিয়ে দেশের প্রায় সব নায়ক-নায়িকারই মা হয়েছেন তিনি। মায়ের চরিত্রে তার অভিনীত ‘নয়ন মণি,’ ‘সুন্দরী’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘শুভদা’, ‘মরণের পরে’, ‘রাধা কৃষ্ণ’, ‘ভাত দে’, ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’ ‘সোনা বন্ধু’ ছবিগুলো বিপুল জনপ্রিয়তা পায়। একই সঙ্গে টিভি নাটকেও তার অভিনয় প্রশংসিত হয়।

 

রওশন জামিল

সত্তর ও আশির দশকের আরেকজন জনপ্রিয় ও শক্তিশালী মা হলেন রওশন জামিল। ‘নয়ন মণি’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে,’ ‘সূর্যগ্রহণ’, ‘মাটির ঘর’, ‘বউ শাশুড়ি’, ‘সূর্য দীঘল বাড়ি’সহ অসংখ্য চলচ্চিত্র এবং টিভি নাটকে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন তিনি।

 

শর্মিলী আহমেদ

ষাটের দশকে নায়িকা হিসেবে চলচ্চিত্রে আগমন হলেও পরবর্তীতে মা চরিত্রে ব্যাপক জনপ্রিয়তা নিয়ে পথ চলা শুরু করেন শক্তিমান অভিনেত্রী শর্মিলী আহমেদ। শুধু চলচ্চিত্র নয়, টিভি নাটকেও সমান দর্শকপ্রিয়তা নিয়ে কাজ করছেন এই তুখোড় অভিনেত্রী। অভিনয়ের স্বীকৃতি হিসেবে অনেক সম্মাননাও পেয়েছেন তিনি।

 

রোজী আফসারী

রোজী আফসারীকে বলা হয় ঢালিউডের সবচেয়ে মায়াবী চেহারার মা। তার অভিনয় জীবন শুরু ষাটের দশকে। প্রথম ছবি ‘এই তো জীবন’। প্রথম দিকে নায়িকা ও বোনের চরিত্রে অভিনয় করলেও আশির দশক থেকে নিয়মিত মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। মায়ের ভূমিকায় তিনি ছিলেন অনবদ্য।

 

সুচন্দা

ষাটের দশকের জনপ্রিয় নায়িকা সুচন্দা আশির দশক থেকে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করে সমান প্রশংসিত হন। মা হিসেবে তার অভিনীত ছবির মধ্যে ‘প্রেম প্রীতি’ উল্লেখযোগ্য। নায়িকা, অভিনেত্রী এবং নির্মাতা— তিনভাবেই দর্শকের মন জয় করেন কোহিনূর আক্তার সুচন্দা।

 

শাবানা

নায়িকা হিসেবে তুমুল জনপ্রিয়তার পর প্রখ্যাত নির্মাতা ছটকু আহমেদের ‘সত্যের মৃত্যু নেই’ ছবিতে প্রথমবার মা হিসেবে অভিনয় করেন শাবানা। নায়িকার মতো মা হিসেবেও আবেগময়ী ভূমিকায় তিনি ছিলেন অপ্রতিদ্বন্দ্ব্বী। ‘মরণের পরে’, ‘সত্য মিথ্যা’সহ অসংখ্য ছবিতে মায়ের ভূমিকায় তিনি অসাধারণ অভিনয় করেছেন।

 

দিলারা জামান

বড় ও ছোট পর্দার জনপ্রিয় মা দিলারা জামান। ছোট পর্দায় হুমায়ূন আহমেদের ‘এইসব দিনরাত্রি’ ধারাবাহিকে যেমন ব্যাপক জনপ্রিয়তা পান তেমনি ‘চন্দ্রগ্রহণ’ ছবিতে অভিনয় করে লাভ করেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। তার অভিনীত আরেকটি উল্লেখযোগ্য ছবি হলো ‘মনপুরা’। এখনো সমান দর্শকপ্রিয়তায় ছোট ও বড় পর্দায় অভিনয় করে যাচ্ছেন তিনি।

 

জাহানারা আহমেদ

ষাটের দশক থেকে ছোট পর্দা ও বেতারে অভিনয় করছেন এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী। সত্তরের দশকে প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের ঈদ নাটক ‘জব্বার আলী’তে সুবর্ণা মুস্তাফার মা ও আমজাদ হোসেনের স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পান তিনি। একুশে পদকপ্রাপ্ত এই অভিনেত্রী এখনো ছোট পর্দায় অভিনয় করে যাচ্ছেন।

 

ডলি জহুর

ডলি জহুর চলচ্চিত্রে আসেন সত্তরের দশকে ‘অসাধারণ’ ছবির মাধ্যমে। ‘শঙ্খনীল কারাগার’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য প্রথম শ্রেষ্ঠ মা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এরপর একই পুরস্কার লাভ করেন কাজী মোরশেদ পরিচালিত ‘ঘানি’ ছবিতে।  দীর্ঘদিন মায়ের চরিত্রে তিনি দাপটের সঙ্গে বড় ও ছোট পর্দায় বিচরণ করছেন।

 

আরও মা

শবনম, ববিতা, মায়া হাজারিকা, রেহানা জলি, রানী সরকার, আয়েশা আখতার, সুমিতা দেবী, রিনা খান, রেবেকা, মিরানা জামান, সুলতানা জামান, রিনা আক্রাম, মিনু রহমান, রাশেদা চৌধুরী, খালেদা আক্তার কল্পনা, নূতন, মালতী দেবী, মিনতি হোসেন, সারা যাকের, সুচরিতা, সুজাতাসহ অনেকেই মায়ের চরিত্রে অভিনয় করে দর্শক ভালোবাসা ও জাতীয় পুরস্কার লাভ করেছেন।


আপনার মন্তব্য