শিরোনাম
প্রকাশ : ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১৬:৩৫
আপডেট : ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ০৯:২০

দাম্পত্য জীবনের সুখ নিয়ে যা বললেন তাহসান

অনলাইন ডেস্ক

দাম্পত্য জীবনের সুখ নিয়ে যা বললেন তাহসান
মেয়ের সঙ্গে মিথিলা (তাহসানের সাবেক স্ত্রী) ও তাহসান

দাম্পত্য জীবনের সুখ নিয়ে কথা বলেছেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা তাহসান। তার অভিমত, সত্যিকারের মানবিক সম্পর্কের মাঝেই সব সুখ। অনেক দম্পতিকে বাইরে থেকে খুব সুখী মনে হয়, কিন্তু সত্যিকারের সুখ সেখানে থাকে না। আবার অনেক সম্পর্ক আছে যেটিকে বাইরে থেকে খুব সাধারণ মনে হলেও তারা সত্যিকার অর্থে সুখী। এক্ষেত্রে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের দীর্ঘমেয়াদি একটি গবেষণার উদাহরণ টানেন। 

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি রেডিও চ্যানেলে দেওয়া সাক্ষাৎকারের ভিডিও শেয়ার করেন তিনি। সেখানে আলাপচারিতার এক পর্যায়ে সম্পর্কের ব্যাপারে নিজের অভিমত জানান তাহসান। তবে সাক্ষাৎকারটি কোন সময়ের সেটা জানা যায়নি।

তাহসান জানান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭৫ বছর ধরে একটি গবেষণা হয়েছে। ওই জরিপে ৭০ থেকে ৭৫ বছর বয়স্ক ব্যক্তিদের কাছে হ্যাপিনেস বা সুখের সংজ্ঞা জানতে চাওয়া হয়। গবেষণায় জানতে চাওয়া হয়, তোমরা তো জীবনের অনেক সময় পার করে এসেছে তা তোমাদের জীবনের সুখটা কী?

গবেষণা শেষে নানা তথ্য-উপাত্তের বরাত দিয়ে গবেষকরা জানান, হ্যাপিনেস হচ্ছে জেন্যুইন হিউম্যান রিলেশনশিপ (সত্যিকারের মানবিক সম্পর্ক)। এর ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, আমাদের অনেকের সঙ্গে সম্পর্ক থাকে। এর মধ্যে অনেক মেকি সম্পর্কও থাকে। আর সত্যিকারের সম্পর্ক যখন কারও সঙ্গে থাকবে, সেই ব্যক্তির অর্থবিত্ত থাকুক বা না থাকুক, তার সঙ্গে আমরা সুখী হই।

আপনি হয়তো স্বামী-স্ত্রী। আপনারা হয়তো বাইরে কিংবা সারা পৃথিবীর কাছে খুব ভালো। কিন্তু নিজে হয়তো মন থেকে শান্তি পান না, কারণ তার সঙ্গে এক ঘণ্টা বসে সুন্দর করে কথা বলতে পারেন না। আবার নিজে হয়তো শান্তি পান না, কারণ সেই মানুষটার কাছ থেকে অনুপ্রেরণা পান না যে কারণে মনে করতে পারেন না ঘুম থেকে উঠে আজ একটা সুন্দর দিন যাবে। 

''জেন্যুইন রিলেশনশিপ হলো ওইটা যে রিলেশনশিপ হয়তো বাইরে থেকে মনে হতে পারে একটি নরমাল রিলেশনশিপ। কিন্তু সারাদিন অফিস শেষে মানুষটি যখন বাসায় যায় তখন অপেক্ষা করে কখন দরজাটা খোলা হবে। এটাই জেন্যুইন রিলেশনশিপ। জেন্যুইন রিলেশনশিপ হলো মায়ের মুখে হাসিটা কিংবা বাবাকে জড়িয়ে ধরাটা।''

বিডি-প্রতিদিন/মাহবুব


আপনার মন্তব্য