Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:৪৯

বিএনপির সাত প্রার্থীর ট্রাইব্যুনালে মামলা

গণশুনানি করবে ঐক্যফ্রন্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির সাত প্রার্থীর ট্রাইব্যুনালে মামলা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের হাই কোর্ট বিভাগের নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে বিএনপির সাত প্রার্থী মামলা দায়ের করেছেন। আজ বাকিরা মামলা করবেন।

বিএনপির নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা পরিচালনার জন্য গঠিত আইনজীবী প্যানেলের সদস্য অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস কাজল গণমাধ্যমকে বলেন, গতকাল ঝিনাইদহ-৪ আসন থেকে বিএনপির প্রার্থী সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, টাঙ্গাইল-৭ আসন থেকে আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, বরিশাল-১ আসন থেকে জহির উদ্দিন স্বপন, গাজীপুর-৪ আসন থেকে শাহ রিয়াজুল হান্নান, মৌলভীবাজার-৩ আসন থেকে নাসের রহমান, মুন্সীগঞ্জ থেকে আবদুল হাই, ভোলা-২ আসন থেকে হাফিজ ইব্রাহিম এ মামলা দায়ের করেন। এ ছাড়া আজ আরও অনেকে মামলা দায়ের করবেন।

গণশুনানি করবে ঐক্যফ্রন্ট : একাদশ নির্বাচনের চিত্র তুলে ধরতে আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি গণআদালতের মাধ্যমে শুনানি করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। গতকাল সন্ধ্যায় ফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকের পর জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। তিনি বলেন, ‘আগামী ২৪ তারিখে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের উদ্যোগে গণশুনানি। এ শুনানিতে একটা আদালত থাকবে, বিচারমঞ্চ থাকবে। সকাল ১০টা থেকে ৬ ঘণ্টার এ শুনানি হবে। ড. কামাল হোসেন বিচারক হিসেবে থাকবেন। এ গণশুনানির মাধ্যমে ভোট ডাকাতির চিত্র বিশ্ববাসী ও দেশের জনগণের কাছে পরিষ্কার করে তুলে ধরা হবে।’ রাজধানীর মতিঝিলে ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে তার সভাপতিত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন ড. কামাল  হোসেন। এতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, প্রেসিডিয়াম সদস্য জগলুল হায়দার আফ্রিক, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম দেলোয়ার, বিকল্পধারার সভাপতি অধ্যাপক নুরুল আমিন ব্যাপারী উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি স্টিয়ারিং কমিটি ও সমন্বয় কমিটির এশটি যৌথ সভা হবে বিকাল ৪টায় পুরানা পল্টনের জামান টাওয়ারে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কার্যালয়ে।

গণশুনানির স্থান এখনো ঠিক হয়নি। তবে রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তন, কাকরাইলের ডিপোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তন, গুলিস্থানের মহানগর নাট্যমঞ্চ অথবা জাতীয়  প্রেস ক্লাব মিলনায়তনকে স্থান হিসেবে বিবেচনা করছে ঐক্যফ্রন্ট। আ স ম আবদুর রব বলেন, ‘গণশুনানিতে ক্ষমতাসীন জোট ছাড়া  ভোটে অংশগ্রহণকারী সব দলকে চিঠি দিয়ে আমন্ত্রণ জানানো হবে। যারা ভোটের সময় আহত হয়েছেন, যারা নিহত হয়েছেন তাদের স্বজনদের, যারা অপদস্ত হয়েছেন, যারা কারাবন্দী হয়েছিলেন তাদের এ শুনানিতে আসতে বলা হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর