Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৪ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ মে, ২০১৯ ২৩:৩০

খালেদাকে নেওয়া হচ্ছে কেরানীগঞ্জ

বিচার কাজের জন্য কেরানীগঞ্জ কারাগারের সামনের ভবনকে অস্থায়ী আদালত ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন থাকার ব্যবস্থাও প্রস্তুত রাখা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক

খালেদাকে নেওয়া হচ্ছে কেরানীগঞ্জ

বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। নিরাপত্তাজনিত কারণে এবং বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। ওই কারাগারে অস্থায়ী আদালতে তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত চলমান ১৭টি মামলার কার্যক্রম চলবে। এ সংক্রান্ত পৃথক ১৭টি প্রজ্ঞাপন গত রবিবার জারি করেছে আইন মন্ত্রণালয়ের বিচার শাখা-৪। কারাগার সূত্র জানিয়েছে, আগামী সপ্তাহেই বেগম খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে স্থানান্তর করা হতে পারে। 

জারি করা পৃথক ১৭টি প্রজ্ঞাপনে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে চলমান ১৭ মামলার বিচার কার্যক্রমের বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। এর মধ্যে এসআরও নং-১১৩/২০১৯-এ বলা হয়েছে, নিরাপত্তাজনিত কারণে কোড অব ক্রিমিনাল প্রসিডিউর ১৮৯৮ (অ্যাক্ট ৫ অব ১৮৯৮)-এর সেকশন ৯-এর সাব সেকশন (২)-এর প্রদত্ত ক্ষমতাবলে সরকার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন বিশেষ ট্রাইব্যুনাল মামলা নং-৪৭৩/১৬-এর বিচার কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে নবনির্মিত ২ নম্বর ভবনকে অস্থায়ী আদালত হিসেবে ঘোষণা করছে এবং এতদদ্বারা নির্দেশ প্রদান করছে যে, ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন বিশেষ ট্রাইব্যুনাল (মামলা নং-৪৭৩/১৬) মামলার কার্যক্রম কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারের অস্থায়ী আদালতে অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি মামলার ক্ষেত্রে জারি করা পৃথক প্রজ্ঞাপনে প্রত্যেক মামলার কার্যক্রম একই স্থানে অস্থায়ী আদালতে অনুষ্ঠিত হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। সূত্র জানায়, সাম্প্রতিক সময়ে রাজধানীর পুরান ঢাকায় ভয়াবহ অগ্নিকা , জঙ্গি ও সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা আমলে নিয়ে এবং সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে সরকার সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিরাপত্তার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে নিয়ে তাকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজার পর থেকে তিনি পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডে পুরাতন কারাগারে বন্দি রয়েছেন। যদিও তিনি বর্তমানে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্বদ্যিালয়ে রয়েছেন। এখানে থেকেই তিনি পুরান ঢাকার বকশীবাজার এলাকায় সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা ও সাবেক ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার সংলগ্ন মাঠে তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া সব মামলায় হাজিরা দিচ্ছিলেন। একপর্যায়ে খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতাজনিত কারণে তার হাঁটাচলায় সমস্যা হওয়ায় নাজিম উদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগারের ভিতরেই তার জন্য বিশেষ আদালত বসায় সরকার। খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে স্থানান্তর ও সেখানে অস্থায়ী আদালত বসানোর বিষয়ে জানতে চাইলে আইন ও বিচার বিভাগের সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, কী কারণে খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে স্থানান্তর করা হচ্ছে এবং সেখানে অস্থায়ী আদালতে তার বিচারের ব্যবস্থা করা হয়েছে সে বিষয়ে প্রজ্ঞাপনেই সব বলে দেওয়া হয়েছে, এর বাইরে আর কোনো কারণ নেই। তিনি বলেন, নিরাপত্তাজনিত কারণটি গুরুত্বপূর্ণ।

এদিকে কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্রে জানা গেছে, সেখানে মহিলা কারাগারে ডিভিশন সেল এ খালেদা জিয়ার জন্য একটি কেবিন প্রস্তুত করা হয়েছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে মহিলা কারাগারের চারপাশে। বিশেষ সিকিউরিটি চেয়ে জেলা পুলিশের কাছে ইতিমধ্যে চিঠি দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। সেখানে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র ব্যতীত সব ধরনের অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা রাখা হয়েছে। সেখানে তিনি এখনকার মতোই কারা আইন অনুযায়ী সব সুযোগ-সুবিধা ভোগ করবেন। তার মামলাগুলোর বিচার কার্যক্রম পরিচালনার জন্য মহিলা কারাগারের একেবারে সামনেই এক কক্ষবিশিষ্ট একটি অস্থায়ী আদালতও স্থাপন করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহেই খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জে স্থানান্তর করা হবে।


আপনার মন্তব্য