Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৭ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ মে, ২০১৯ ২৩:১৭

প্রশাসনে গতি বাড়াতে সচিবদের ১৪ নির্দেশনা

রুকনুজ্জামান অঞ্জন

প্রশাসনে গতি বাড়াতে সচিবদের ১৪ নির্দেশনা

প্রশাসনে গতি বাড়াতে সরকারের মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোকে যথাযথ পরিকল্পনা গ্রহণের উদ্যোগ নিতে বলেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। দাফতরিক কাজে গতি বাড়াতে কাগুজে ফাইলের পরিবর্তে ই-নথি কার্যক্রম বাড়াতে বলা হয়েছে। জনবলের অভাবে যাতে কাজের গতি স্তিমিত না হয়, সে লক্ষ্যে সরকারের শূন্যপদে নিয়োগ কার্যক্রম চলমান রাখতে বলা হয়েছে। ১৫ মে সচিবদের কাছে পাঠানো চিঠিতে এসব নির্দেশনা দেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। মন্ত্রণালয় সূত্রগুলো জানায়, প্রশাসনকে আরও গতিশীল করার লক্ষ্যে ১২ মে সচিব সভা হয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে। সেখানে নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়ন, অগ্রাধিকার প্রকল্পগুলোর মনিটরিং জোরদার করা, গুরুত্বপূর্ণ দফতরগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, সরকারি সংস্থাগুলোর জনবল সংকট, সচিবালয়ে কর্মকর্তাদের কক্ষ সংকট, দুর্যোগ মোকাবিলায় সমন্বিত কার্যক্রম গ্রহণসহ বিভিন্ন বিষয়ে মতামত তুলে ধরেন সচিবরা। পরে সেসব মতামতের ভিত্তিতে সভায় গৃহীত ১৪টি নির্দেশনা সিদ্ধান্ত আকারে সচিবদের কাছে পাঠানো হয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক সচিব জানান, প্রশাসনিক কার্যক্রমে গতি আনতে জনবল সংকটের বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে আলোচনায় উঠে আসে। পরে এ বিষয়ে নির্দেশনায় বলা হয়, মন্ত্রণালয়/বিভাগ/অধিদফতর/সংস্থার শূন্যপদে নিয়োগ কার্যক্রম চলমান রাখতে হবে। আর কর্মকর্তাদের কক্ষ সংকট কাটাতে সচিবালয়ে যে নতুন ভবন হচ্ছে সেটির কাজ শেষ করার আগেই মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সঙ্গে পরামর্শ করে কক্ষ বরাদ্দের উদ্যোগ নিতে বলা হয়েছে। নিরাপত্তা ইস্যুতে কেপিআইভুক্ত স্থাপনাগুলোতে নিজ উদ্যোগে যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে মন্ত্রণালয়/ বিভাগ/ অধিদফতর/ সংস্থার মাঠপর্যায়ের কার্যালয়গুলোতেও প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোকে যথাযথ কর্মপরিকল্পনা গ্রহণের নির্দেশ দিয়ে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিবদের বলা হয়েছে, কর্মপরিকল্পনা ও প্রকল্প প্রণয়নে ‘আমার গ্রাম আমার শহর’, ‘তারুণ্যের শক্তি’ এবং ‘সুশাসন’ এ তিনটি বিষয়ে গুরুত্ব আরোপ করতে হবে। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগ যথাযথ বাস্তবায়ন, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় চলমান প্রকল্পের যথাযথ বাস্তবায়নে সচিবদের বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ, সরকারের ফাস্টট্র্যাকভুক্ত প্রকল্প যথাসময়ে সম্পন্ন করতে নিবিড় তদারকি অব্যাহত রাখা, রপ্তানি আয় ও বৈদেশিক বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে সমুদ্রবন্দর, স্থলবন্দর ও বিমানবন্দরের কার্যক্রম সার্বক্ষণিক পরিচালনার জন্য বন্দর কর্তৃপক্ষের মতো কাস্টমস ও ব্যাংকিং কার্যক্রম ২৪ ঘণ্টা চালু রাখার বিষয়ে উদ্যোগ গ্রহণ এবং সংসদ অধিবেশন প্রশ্নোত্তর চলাকালে ও বাজেট পেশের সময় মন্ত্রণালয়, বিভাগের সচিব বা প্রতিনিধিদের উপস্থিত থেকে দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রীদের সহায়তা করার বিষয়ে সচিবদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।


আপনার মন্তব্য