Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
প্রকাশ : শনিবার, ২০ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ জুলাই, ২০১৯ ২৩:০৯

ডিসিরা দুদকের দেখভালে গেলে কাজে বিঘ্ন হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক

ডিসিরা দুদকের দেখভালে গেলে কাজে বিঘ্ন হবে

মাঠ পর্যায়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের কার্যক্রম দেখভাল করার দায়িত্ব জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) হাতে গেলে অভিযুক্ত কর্মকর্তাদের তদন্ত ও বিচারের ক্ষেত্রে দুদকের দায়িত্ব পালনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হতে পারে। গতকাল এক বিবৃতিতে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান এ কথা বলেন। গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে এ বিষয়ে জেনে উদ্বেগ ও হতাশা প্রকাশ করেন তিনি। ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ডিসি সম্মেলনের শেষ দিনে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ-সম্পর্কিত আলোচনায় অংশ নিয়ে দুদক চেয়ারম্যান যেভাবে জেলা প্রশাসকদের মাঠ পর্যায়ে দুদকের কার্যক্রম দেখভালের দায়িত্ব দেওয়ার কথা বলেছেন, তাতে উভয় কর্তৃপক্ষের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে অভিক্রমণ ও দ্বন্দ্বের সুযোগ সৃষ্টি করবে। এ ধরনের সিদ্ধান্ত হলে তা বিশেষ করে স্থানীয় দুদকের কার্যক্রমে অনাকাক্সিক্ষত প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ এবং অনৈতিক ও দুর্নীতি সহায়ক প্রভাবের যুক্তি সৃষ্টি করবে। দুদকের যতটুকু ক্ষমতা ও নিরপেক্ষতা বজায়ের সুযোগ আইনগতভাবে দেওয়া হয়েছে তাও সম্পূর্ণভাবে বিসর্জিত হবে। দুদকের জন্য এ ধরনের সিদ্ধান্ত অপরিণামদর্শী ও আত্মঘাতী। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক আরও বলেন, যদিও দুদক চেয়ারম্যান যৌক্তিকভাবেই উল্লেখ করেছেন, জেলা প্রশাসকরা যদি দুদকের কোনো গাফিলতি বা দুর্নীতি দেখেন, তা দুদককে জানাতে বলা হয়েছে, যা তাদের স্বাভাবিক দায়িত্ব। তবু জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের হাতে দুদকের দেখভালের এখতিয়ার দেওয়া হলে তা ব্যাপক স্বার্থের দ্বন্দ্ব তৈরি করবে। অন্যদিকে এর ফলে দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণে ও অভিযুক্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের তদন্তের ক্ষেত্রে দুদকের প্রত্যাশিত ভূমিকা পালনের পথ চিরতরে রুদ্ধ হবে। তিনি বলেন, যদি তাই হয় তাহলে কি এটা অনুমান করা যায় না যে জাতীয় পর্যায়ে দুদক নিজেকে প্রশাসন কর্তৃক দেখভালের ক্ষমতা দিতে প্রস্তুত? সেক্ষেত্রে দুদক নামে বিশেষায়িত দুর্নীতি দমন প্রতিষ্ঠান থাকার যথার্থতা কোথায় থাকবে? ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, বিষয়টি নিয়ে এ ধরনের আবেগী ও অপরিণামদর্শী সিদ্ধান্ত বাতিল করে স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে প্রশাসনের সঙ্গে দুদকের সম্পর্ক নির্ধারণে দুদকের উচিত হবে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের যুক্ত করে সম্ভাব্য সব ধরনের প্রভাব ও স্বার্থের দ্বন্দ্বমুক্ত পারস্পরিক পেশাগত অবস্থানের সুনির্দিষ্ট নির্দেশক ও সীমারেখা নিরূপণ করা। যেন দুদক তার আইনগত ভিত্তির ওপর নির্ভর করে স্বাধীন ও নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর