শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:৫০

সুন্দরবনে শান্তির সুবাতাস বইছে

-------- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বাগেরহাট প্রতিনিধি

সুন্দরবনে শান্তির সুবাতাস বইছে

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, দস্যুমুক্ত ঘোষণার পর সুন্দরবনে এখন শান্তির সুবাতাস বইছে। সুন্দরবন এখন সবার জন্য নিরাপদ। গত এক বছরে সুন্দরবনে পর্যটকদের সংখ্যাও অনেক বেড়েছে। ওয়ার্ল্ড হ্যারিটেজ এই বনে কাউকে আর দস্যুবৃত্তি  করতে দেওয়া হবে না। কোনো বিপথগামী সুন্দরবনে দস্যুবৃত্তি করতে চাইলে তার পরিণাম হবে ভয়াবহ। যে কোনো মূল্যে পর্যটনের অপর সম্ভাবনাময় সুন্দরবনকে নিরাপদ রাখা হবে। গতকাল দুপুরে বাগেরহাট স্টেডিয়ামে সুন্দরবন দস্যুমুক্ত ঘোষণার প্রথম বার্ষিকী পালন অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও মাদক নির্মূলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। এসব অপকর্মের সঙ্গে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন, র‌্যাবের ডিজি বেনজীর আহমেদ, কোস্টগার্ডের ডিজি আশরাফুল হক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শামছুল হক টুকু, কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, ডা. মোজাম্মেল হোসেন এমপি, শেখ সারহান নাসের তন্ময় এমপি, গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার এমপি প্রমুখ। গত বছর ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সে সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত ঘোষণা করেন। র‌্যাবের সহয়তায় দীর্ঘ ৪০ বছর পর সুন্দরবন বনদস্যুমুক্ত হয়। সুন্দরবনের আত্মসমর্পণ করা ৩২টি বাহিনীর মধ্যে সর্বশেষ পাঁচটি বনদস্যু বাহিনীর আত্মসমর্পণের মধ্যস্থতায় ছিল দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন ও নিউজ টোয়েন্টিফোর টেলিভিশন। ওই আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে সুন্দরবনে বইতে শুরু করে শান্তির সুবাতাস। অনুষ্ঠানে সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত করতে বিশেষ অবদানের জন্য র‌্যাবের ডিজি বেনজীর আহমেদসহ র‌্যাবের কয়েকজন কর্মকর্তা এবং দুই মিডিয়া কর্মীর হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় বনদস্যুতা ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফেরা ৩২টি বাহিনীর ৩২৮ বনদস্যুকে আর্থিক অনুদান ও উপহার সামগ্রী দেওয়া হয়।


আপনার মন্তব্য