শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:৪৭

নূর হোসেনের মায়ের কাছে রাঙ্গার দুঃখ প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নূর হোসেনের মায়ের কাছে রাঙ্গার দুঃখ প্রকাশ

স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে শহীদ নূর হোসেনকে ‘ইয়াবাখোর’ ও ‘ফেনসিডিলখোর’ বলার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা। গতকাল এক বিবৃতিতে এ দুঃখ প্রকাশ করেন জাপা মহাসচিব। ১০ নভেম্বর এক আলোচনা সভায় বঙ্গবন্ধু ও তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী ও নূর হোসেনকে নিয়ে সমালোচনা করেন রাঙ্গা। পরদিন জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়ে নূর  হোসেনের মা মরিয়ম বেগম রাঙ্গাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলেন। বিবৃতিতে জাপা মহাসচিব বলেন, জাপার গণতন্ত্র দিবসের আলোচনা সভায় আমার কিছু বক্তব্য নিয়ে  কোনো কোনো মহল এবং বিশেষ করে নূর হোসেনের পরিবারের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। প্রতি বছর নূর হোসেনের মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনায় পল্লীবন্ধু এরশাদকে হেয়প্রতিপন্ন করা হয়। ফলে পার্টির কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। তারই পরিপ্রেক্ষিতে কর্মীদের উত্তেজনার মধ্যে বক্তব্য প্রদানকালে অনিচ্ছাকৃতভাবে আমার মুখ থেকে নূর হোসেন সম্পর্কে কিছু অযাচিত কথা বেরিয়ে গেছে- যা নূর হোসেনের পরিবারের সদস্যদের মনে আঘাত করেছে। এর জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত ও অনুতপ্ত। জাপা মহাসচিব বলেন, নূর হোসেনের পরিবারের প্রতি প্রয়াত পল্লীবন্ধু এরশাদও সমব্যথী ছিলেন। অসতর্কভাবে বলা বক্তব্যে যে আঘাত লেগেছে- তার জন্য নূর হোসেনের মায়ের কাছে আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি। একইসঙ্গে আমার যে বক্তব্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে-  সেসব বক্তব্য প্রত্যাহার করে নিচ্ছি।

নিজ দলে তোপের মুখে : ওইদিন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে বক্তব্যকে ঘিরে খোদ নিজ দলেই তোপের মুখে পড়েছেন জাপা মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা। পার্টির যুগ্ম মহাসচিব হাসিবুল ইসলাম জয় বলেন, ‘বাকশাল কায়েম করে গণতন্ত্রের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকেছিলেন বঙ্গবন্ধু’ জাপা মহাসচিবের এমন বক্তব্যে এরশাদ সৈনিক হিসেবে আমি ধিক্কার জানাই। কারণ প্রয়াত পল্লীবন্ধু এরশাদ আজীবন বঙ্গবন্ধু শেখ মুবিজুর রহমানকে সম্মান করেছেন। বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ এবং বর্তমান পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরও সম্মান করেন। গত ১৫ আগস্ট জাতীয় পার্টি শোক দিবস পালন করেছে। এমন বক্তব্য দিয়ে জাপা মহাসচিব জাতীয় পার্টিকে কলঙ্কিত করেছেন।

এ ছাড়াও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জাতীয় পার্টির একজন সাবেক মহাসচিব ও দুজন প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রতিবেদককে বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে যে বক্তব্য রেখেছেন তার জন্যও জাপা মহাসচিবের বিবৃতিতে দুঃখ প্রকাশ করা উচিত ছিল।


আপনার মন্তব্য