শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৬ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ এপ্রিল, ২০২০ ২৩:৫৪

ঢাকা নারায়ণগঞ্জে প্রবেশ ও বের হতে নিষেধাজ্ঞা

বাড়ি ফিরতে পথে পথে মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা নারায়ণগঞ্জে প্রবেশ ও বের হতে নিষেধাজ্ঞা
মাওয়া ফেরিঘাটে গতকাল বাড়ি ফিরতে মানুষের ঢল -রোহেত রাজীব

জরুরি সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি ছাড়া অন্য কেউ ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ শহরে প্রবেশ এবং বের হতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে পুলিশ। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এটি বলবৎ থাকবে। গতকাল পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (মিডিয়া) মো. সোহেল রানা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রাজধানীকেন্দ্রিক সাধারণ মানুষের আসা-যাওয়া বন্ধে কঠোর হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী।

তিনি বলেন, পরবর্তী সরকারি নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত জরুরি সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি ছাড়া সাধারণ মানুষকে ঢাকায় প্রবেশ অথবা ত্যাগ করতে দেওয়া হচ্ছে না। একই সঙ্গে জনগণের জীবনযাত্রা স্বাভাবিক রাখার জন্য জরুরি প্রয়োজন ছাড়া একক বা দলবদ্ধভাবে বাইরে ঘোরাফেরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। যে যেখানে আছেন, সেখানে অবস্থান করবেন। কোথাও সমবেত হতে পারবেন না। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। স্বাস্থ্য সুরক্ষা সবচেয়ে বড় অগ্রাধিকার উল্লেখ করে তিনি বলেন, কারও একান্ত জরুরি প্রয়োজন থাকলে সে বিষয়টি   শিথিলযোগ্য হতে পারে। বাংলাদেশ পুলিশ সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও জনগণের ঘরে অবস্থানের বিষয়টি নিশ্চিত করতে কাজ করছে। এ অবস্থায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কাজে পুলিশকে সহযোগিতা করার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। প্রসঙ্গত রবিবার পোশাক কারখানা খোলার খবরে রাজধানীমুখী শ্রমজীবী মানুষের ঢল নামে। দিনভর হাজার হাজার শ্রমজীবী মানুষ হেঁটে ও বিভিন্ন মাধ্যমে রাজধানীতে ফিরতে থাকেন। এতে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার নির্দেশনাটি মুখ থুবড়ে পড়ে। শনিবার রাতেই এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান রাজধানীমুখী মানুষের ঢল থামাতে পুলিশকে নির্দেশ দেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এ নির্দেশনার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পুলিশের সংশ্লিষ্ট ইউনিটগুলোকে নির্দেশ দেন আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী।

এদিকে, নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম জানান, আইজিপির নির্দেশ বাস্তবায়নে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ কাজ করছে। নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। জরুরি সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি ছাড়া নারায়ণগঞ্জে কেউ যেন ঢুকতে ও বের হতে না পারেন সে বিষয়টি কঠোরভাবে মানা হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জের কোনো পথ ব্যবহার করে ঢাকায় যেন কেউ ঢুকতে বা বের হতে না পারেন সেটাও নিশ্চিত করা হচ্ছে।

ফের গ্রামে ফেরেন ওরা : করোনাভাইরাস ঝুঁকি মাথায় নিয়ে অসংখ্য বেসরকারি ও গার্মেন্টকর্মীরা গতকাল ঢাকায় আসেন। এসেই পড়েন বিপাকে। জানতে পারেন ছুটি বর্ধিত করা হয়েছে। অনেক বাড়িওয়ালা এসব খেটে খাওয়া মানুষকে বাসায় ঢুকতে দেয়নি। এতে খেটে খাওয়া এসব মানুষ সীমাহীন কষ্টের মধ্যে পড়েন।

অনেকে ভাড়া বাসায় ঢুকতে না পেরে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রাস্তায়, মসজিদে অবস্থান নেন। কেউ খেয়ে কেউবা না খেয়ে রাতযাপন করেন। এ অবস্থায় তারা ফের গ্রামের বাড়ির উদ্দেশে যানবাহন এবং পায়ে হেঁটে ঢাকা ছাড়েন। পথে পথে বাধা ও সীমাহীন কষ্ট নিয়ে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করেন। ঢাকা থেকে দেশের বিভিন্ন রুটে তাদের বাড়ির ফেরার দৃশ্য ছিল চোখে পড়ার মতো।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর