শনিবার, ২৪ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ে বাংলাওয়াশ

দ্বিতীয় টি-২০তে টাইগারদের হার

ক্রীড়া প্রতিবেদক

টেস্ট জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে ওয়ানডে সিরিজে নেমেছিলেন তামিম ইকবালরা। দুরন্ত পারফরম্যান্স করে তিন ম্যাচ সিরিজে বাংলাদেশ হোয়াইটওয়াশ করে স্বাগতিক জিম্বাবুয়েকে। ওয়ানডে সিরিজের আত্মবিশ্বাস নিয়ে টি-২০ সিরিজে নামে। প্রথম ম্যাচ সহজেই জিতে এগিয়ে যায় সিরিজে। কিন্তু গতকাল দ্বিতীয়টিতে হেরে যায়। ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বশীর ব্যাটিংয়ের অভাবে ২৩ রানে হেরে যায় মাহমুদুল্লাহ বাহিনী। ফলে তিন ম্যাচ সিরিজে এখন সমতা। আগামীকাল সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে নামবে দুই দল। গতকাল অভিষেক হয়েছে তরুণ শামীম হোসেন পাটোয়ারীর।

সিরিজে প্রথম টি-২০ ছিল নিজেদের শততম টি-২০ ম্যাচ। টাইগাররা জয়ে বরণ করে শততম টি-২০ ম্যাচ। এর আগে নিজেদের শততম ওয়ানডে ও টেস্টেও জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। ২০০৪ সালে বর্তমান বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে শততম ওয়ানডেতে জিতেছিল টাইগাররা। ২০১৭ সালে কলম্বোয় নিজেদের শততম টেস্টেও জয় পায়। এমন সমীকরণে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-২০ ক্রিকেটের শততম ম্যাচে জয় পেয়ে রেকর্ড বুককে সমৃদ্ধ করেছে বাংলাদেশ। গতকাল সিরিজের দ্বিতীয় টি-২০ ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৬৬ রান করে। সর্বোচ্চ ৭৩ রান করেন ওপেনার ওয়েসলি মাধেভেরে। ৫৭ বলের ইনিংসটিতে ছিল ৫টি চার ও ৩টি ছক্কা। এ ছাড়া ১৯ বলে ৩৪ রানের হার না মানা ইনিংস খেলেন রায়ান বার্ল। টাইগারদের পক্ষে সফল বোলার শরীফুল ৩ উইকেট নেন ৩৩ রানের খরচে। এ ছাড়া একটি করে উইকেট নেন মেহেদি হাসান ও সাকিব আল হাসান। ১৬৭ রানের টার্গেটে এক বল আগে গুটিয়ে যায় ১৪৩ রানে। সর্বোচ্চ ২৯ রান করেন অভিষিক্ত শামীম পাটোয়ারী, ১৩ বলের ইনিংসটিতে ছিল ৩টি ছক্কা ও ২ চার। এ ছাড়া আফিফ হোসেন ধ্রুব ২৪ ও সাইফুদ্দিন ১৯ রান করেন। দলের তারকা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মোহাম্মদ নাইম ৫, সৌম্য সরকার ৮, অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ ৪, সাকিব আল হাসান ১২ রান করেন।