শুক্রবার, ২৭ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

দেশে ১৭ শতাংশ নাগরিক মানসিক রোগে আক্রান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে ১৮ বছরের বেশি বয়সী ১৭ শতাংশ নাগরিক কোনো না কোনো মানসিক সমস্যায় ভুগছেন। মানসিক স্বাস্থ্যঝুঁকির কারণে প্রাণহানির সংখ্যা কভিড-১৯ সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুর তুলনায় বেশি। তা সত্ত্বেও বাংলাদেশে মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা মোকাবিলা ও চিকিৎসায় বরাদ্দ প্রয়োজনের তুলনায় খুবই অপ্রতুল। শুধু তাই নয়, দেশে মানসম্পন্ন মানসিক স্বাস্থ্যসেবার ঘাটতি রয়েছে। ফলে মানুষ শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যে সর্বোচ্চ অধিকার ভোগ করতে পারছে না। ২৫ আগস্ট সন্ধ্যায় সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে ব্র্যাক আয়োজিত এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়। অনুষ্ঠানে ব্র্যাক তাদের মানসিক স্বাস্থ্যসেবার কৌশল উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ এবং অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ব্র্যাকের ঊর্ধ্বতন পরিচালক কে এ এম মোর্শেদ। স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা) অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন। অধ্যাপক সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, বাংলাদেশে শতকরা ১৭ জন প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিক মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছেন। বিদ্যমান স্বাস্থ্যব্যবস্থার মধ্যে প্রয়োজনীয় মানসিক স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের ব্যবস্থা আমাদের নিশ্চিত করতে হবে। কারণ মানসিক স্বাস্থ্য শারীরিক স্বাস্থ্যের মতোই গুরুত্বপূর্ণ। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশে  কভিড-১৯ মহামারীর প্রভাব এখনো চলমান। তাই ব্র্যাক মনে করছে, মানসিক স্বাস্থ্যের সমস্যাগুলো সমন্বিত পদ্ধতি এবং সরকারের সঙ্গে জোরদার অংশীদারিত্বের মাধ্যমে মোকাবিলা করা প্রয়োজন।

এই বিভাগের আরও খবর