শিরোনাম
বুধবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

কিছু লোক ঢালাও মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে

পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কিছু লোক ঢালাও মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে

বাংলাদেশের  কিছু লোক যুক্তরাষ্ট্রকে ঢালাওভাবে মিথ্যা তথ্য দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, আমাদের দেশে কিছু লোক আছেন, যারা ধারাবাহিকভাবে মার্কিন আইনপ্রণেতাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করছেন। তারা মিথ্যা তথ্য দিচ্ছেন, মিথ্যা ভিডিও বানাচ্ছেন। বাংলাদেশে একজন মরলে বিচারবহির্ভূত হত্যা হয়, আর যুক্তরাষ্ট্রে মারা গেলে বলা হয় দায়িত্ব পালনের সময় মারা গেছে। আমাদের দেশে একজন মরলেই বলা হয়, বিনা বিচারে হত্যা। গতকাল রাজধানীতে রোহিঙ্গা বিষয়ক এক সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ দেশে কিছু লোক আছেন, যারা দেশের উন্নয়নে খুব একটা সন্তুষ্ট নন। একদল লোক আছেন, যারা মনে করেন, আওয়ামী লীগ এত ভালো করে ফেলছে কেন! সুতরাং তারা এটা পছন্দ করেন না। খুব সম্ভবত তারা যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে টাকা পান। তারা তথ্যগুলো ঠিকমতো দেন না, মিথ্যা তথ্য দেন। আর অনেকে তা বিশ্বাস করেন। সেখানে আমাদের কিছু কাজ করার সুযোগ আছে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশের ওপর কোনো চাপ আছে কি না- জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যখনই কোনো দেশ উন্নতি করতে থাকে, তার শত্রু বাড়ে, চাপও বাড়ে। আপনি যখন ভালো করেন, অনেক সহকর্মীই শত্রু হয়ে দাঁড়ায়। আপনি বেশি ভালো করেন, কিছু শত্রুর দেখা পাবেন। যুক্তরাষ্ট্র সরকারিভাবে বিশেষ কিছু করেনি। তারা তাদের কাজ করছে, আর বাংলাদেশ বাংলাদেশের কাজ করছে। লেখক অভিজিৎ রায় হত্যায় দ-িত পলাতক দুই ঘাতক সৈয়দ জিয়াউল হক ও আকরাম হোসেনসহ এ হত্যাকা-ে জড়িত ব্যক্তিদের তথ্য চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পুরস্কার ঘোষণা সম্পর্কে জানতে চাইলে আবদুল মোমেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এভাবে পুরস্কার ঘোষণা করে সফল হয়েছে। অনেক দেশে যখন তথ্য পাওয়া যায় না, তখন এ পলিসি, কৌশল অনেক সময় সফল হয়। আমি শুনেছি, ওসামা বিন লাদেনের ক্ষেত্রেও একইভাবে হয়েছে। আমরা যেমন বঙ্গবন্ধুর তিন পলাতক খুনি, যাদের অবস্থান জানি না, তাদের জন্য পুরস্কার ঘোষণা করেছি। কেউ যদি সঠিক তথ্য দিতে পারেন, অবশ্যই সরকার তাদের পুরস্কার দেবে। তারাও এ রকম দিয়েছে। হয়তো মার্কিন এ উদ্যোগের  ফলে আমাদের পলাতক খুনিদের ধরার যে প্রচেষ্টা, তাতে সহায়ক হবে।’

সর্বশেষ খবর