Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২১:৫২

যত আয়োজন

যত আয়োজন

চার শিক্ষার্থী পেল এশিয়া ইয়াং ডিজাইনার অ্যাওয়ার্ড

স্থাপত্য ও ইন্টেরিয়র ডিজাইনিংয়ের শিক্ষার্থীদের প্রতিযোগিতার পুরস্কার প্রদান করল নিপ্পন পেইন্ট। বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য এবং ইন্টেরিয়র ডিজাইনিং বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য ছিল এই প্রতিযোগিতা। যাতে এই বিভাগের শিক্ষার্থীদের মেধা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তুলে ধরা যায়। প্রতিযোগিতায় ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩০ জন শিক্ষার্থী অংশ নেন। দুটি ক্যাটাগরিতে দুজনকে নগদ পঞ্চাশ হাজার টাকা করে দেওয়া হয় গোল্ড পুরস্কার। এ ছাড়াও দুটি ক্যাটাগরিতে দুজনকে নগদ পঁচিশ হাজার টাকার সিলভার পুরস্কার দেওয়া হয়। বিজয়ী দুই বিভাগের গোল্ড অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীরা আগামী বছরের মার্চে সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন ‘এ ওয়াই ডি এ সামিট’ গ্র্যান্ড গালা পর্বে। এ বছর বাংলাদেশ থেকে আর্কিটেকচার বিভাগে গোল্ড উইনার হয়েছেন ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের হামিদা আশরাফি এবং ইন্টেরিয়র ডিজাইন বিভাগে গোল্ড উইনার হয়েছেন বুয়েটের আসফিয়া ইসলাম।

 

ফুডল্যান্ডে তারকা মেলা

ঢাকা শহরে মানুষের যেমন বিনোদনের অভাব, তেমনি অভাব ভালো পরিবেশে সুস্বাদু খাবারের। তবে ধানমন্ডিতে অবস্থিত ‘ফুডল্যান্ড রেস্টুরেন্ট’ ভোজনরসিক মানুষের চাহিদা মেটাতে পরিবেশন করছে মজার মজার খাবারের সমাহার। দেশীয়, চাইনিজ, ভিন্ন ফেভারের কফি, কন্টিনেন্টাল ফুডসহ রয়েছে অসংখ্য সুস্বাদু খাবার। রেস্টুরেন্টটি ধানমন্ডির ৭/এ, বাড়ি নং ৮৪, ২য় তলায় অবস্থিত। সম্প্রতি ফুডল্যান্ডে আয়োজিত হয় সংগীতশিল্পী তানজিব সারোয়ারের জম্ম দিন। এই উপলক্ষে সেখানে বসেছিল তারকা মেলা। ‘মিথ্যা শেখালি’ গানখ্যাত তানজীব ইতিমধ্যে অনেক শ্রোতাপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন। 

 

‘গাড়িমুক্ত সড়ক ঢাকা’ শিরোনামে কর্মসূচি

ফুটবল, ক্রিকেট, ব্যাডমিন্টন, হ্যান্ডবল, বাস্কেটবল, সাইক্লিং, স্কেটিং, জাম্পিং সবই চলছে সমানতালে। নিজের পছন্দের খেলায় মশগুল শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণীরা। ছোট শিশুরা চরকিতে চড়ছে, আবার বল খেলায় মেতে উঠছে। এমনই নানা খেলায় মগ্ন শিশু-কিশোরদের আনন্দ-উচ্ছ্বাস আর বয়োবৃদ্ধদের স্বতঃস্ফূর্ত আড্ডায় গত ৭ ডিসেম্বর শুক্রবার জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজার মানিক মিয়া এভিনিউয়ের প্রায় ২০০ মিটার অংশ সকাল ৮টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত মুখর ছিল। তিন ঘণ্টা সময়ের এমন মুখরতা গত এক বছর ধরে প্রতি মাসের প্রথম শুক্রবার এই সড়কে দেখা যাচ্ছে। ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের (ডিটিসিএ) উদ্যোগে মূলত প্রতি মাসে এক দিন এই সড়কটির একপাশ বন্ধ রেখে ‘গাড়িমুক্ত সড়ক ঢাকা’ শিরোনামে ব্যতিক্রমী এই কর্মসূচি পালন করা হয়ে থাকে। যানজট নিরসন, নগরবাসীর মধ্যে সামাজিকীকরণ বৃদ্ধি এবং শিশুদের জন্য খেলাধুলার সুযোগ সৃষ্টিই এই আয়োজনের লক্ষ্য। এবারের আয়োজনে সহযোগিতায় ছিল ইউনিলিভার বাংলাদেশের অন্যতম ব্র্যান্ড সার্ফ এক্সেল।


আপনার মন্তব্য