শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ২১:৪০

চোখের নিচে কালি!

উম্মে হানি

চোখের নিচে কালি!

চোখের নিচে কালি অনেকেরই দুশ্চিন্তার কারণ। অন্যভাবে বললে দুশ্চিন্তার কারণেই চোখের নিচে কালি পড়ে। অতিরিক্ত কাজের চাপ, নির্ঘুম রাত কাটানো, রোদে দীর্ঘক্ষণ থাকা ইত্যাদি কারণেও এমন সমস্যা হতে পারে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। সমাধান রইল নিচের ফিচারে...

 

এমনটি কেন হয়?

চোখের নিচে কালি একদিনে পড়ে না। দীর্ঘদিনের প্রক্রিয়া এটি। নানা কারণে চোখের নিচে কালি পড়তে পারে। যার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্টেস (দুশ্চিন্তা)। অতিরিক্ত কাজের চাপ, পারিবারিক অশান্তি, ব্যক্তিগত টানাপড়েন, অনিয়মিত  জীবনযাপন এমনকি ঘুমের ঘাটতি থেকে চোখের নিচে কালো আবরণ পড়তে পারে। অনেক সময় বংশগত এবং বার্ধক্যজনিত কারণে এমন সমস্যা তৈরি হতে পারে। এ ছাড়াও সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মির জন্য চোখের নিচে কালো দাগ হয়ে থাকে।

 

দাগগুলো কেমন হয়?

চোখের নিচে সাধারণত নীলচে এবং বাদামি দুই ধরনের দাগ বা আবরণ পড়তে পারে। বাদামি দাগ সাধারণত জিনগত (বংশগত) কারণে হয়ে থাকে। আর নীলচে বা কালো আবরণের সৃষ্টি হয় সাধারণত চোখে আঘাত, চোখ কচলানো, সূর্যের আলোতে দীর্ঘক্ষণ থাকা, অতিরিক্ত কাজের চাপ, পারিবারিক ও ব্যক্তিগত অশান্তি এবং অনিয়মিত জীবনযাপনের কারণে।

 

সমাধানে করণীয় কী?  

দুশ্চিন্তা করে আর সমস্যা না বাড়িয়ে ভিটামিন কে এবং রেটিনল যুক্ত আন্ডার আই ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। এটি চোখের ফোলাভাব এবং কালিভাব কমাতে সাহায্য করবে। তবে ধৈর্য নিয়ে ব্যবহার করতে হবে। নিয়মিত ব্যবহারে পার্থক্যটা পরিলক্ষিত হবে। যারা বাজারের প্রোডাক্ট ব্যবহার করতে নারাজ তারা ঘরোয়া টোটকা ব্যবহার করতে পারেন।

টমেটো : চোখের নিচের কালিভাব দূর করতে টমেটো বেশ উপকারী। ত্বক নরম এবং চোখের কালিভাব কমিয়ে আনতে প্রতিদিন চোখের নিচে টমেটোর রস লাগান। ১০ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

আমন্ড তেল : আমন্ড তেলে রয়েছে ভিটামিন ‘ই’। চোখের চারপাশের নরম ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে সামান্য আমন্ড তেল আঙ্গুলে নিয়ে চোখের নিচে লাগান। নিয়মিত ব্যবহারে দাগ হালকা হবে।

কমলালেবুর রস : কমলালেবুতে ব্লিচিং প্রপার্টি থাকায় চোখের নিচের কালো দাগ কমাতে সাহায্য করে। সামান্য কমলালেবুর রসে কয়েক ফোঁটা গ্লিসারিন মিশিয়ে লাগালে চোখের কালিভাব কমার পাশাপাশি উজ্জ্বলতা বাড়বে।

দুধ : প্রতিদিন ঠাণ্ডা দুধ লাগালে নিজেই পার্থক্যটা টের পাবেন। এটি ত্বককে ঠাণ্ডা রাখার পাশাপাশি চোখের নিচের কালিভাব দূর করে। কাঁচা ঠাণ্ডা দুধে তুলো ডুবিয়ে চোখের ওপর রাখুন। কিছুক্ষণ বাদে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

শসা : শসার স্কিন লাইটেনিং ও অ্যাস্টিনজেন্ট প্রপার্টি চোখের ফোলাভাব এবং কালিভাব দূর করতে সহায়তা করে। প্রতিদিন মোটা মোটা করে শসা স্লাইস করে টুকরোগুলো ৩০ মিনিট ফ্রিজে রাখুন। এবার ১০ মিনিট চোখের নিচে লাগিয়ে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। উপকার পাবেন।

গ্রিন টি : গ্রিন টি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস-এ পূর্ণ। এটি চোখের তলার কালোভাব কমাতে সাহায্য করে। চা বানানো শেষে টি-ব্যাগ না ফেলে ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করে নিন। এবার চোখের নিচে দিয়ে রাখুন। কয়েকদিনেই পার্থক্যটা টের পাবেন।

হলুদ : হলুদের অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস এবং অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটারি প্রপার্টি চোখের তলার কালোভাব কমায়। ২ চা চামচ হলুদের গুঁড়ার সঙ্গে আনারসের রস মিশিয়ে চোখের নিচে লাগিয়ে ১০ মিনিট পর ভিজে কাপড় দিয়ে মুছে নিন।

 

ঘরোয়া টোটকা...

♦ দুটি কটন বল শসার রসে ডুবিয়ে চোখের ওপর ১৫ মিনিট রাখুন।

♦ খোসাসহ আলু বেটে চোখের নিচে লাগাতে হবে। পেস্টটি তিন-চার দিন ব্যবহারে কালো দাগ দূর হবে।

♦ কাজু বাদাম বেটে দুধের সঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট করে চোখের চারপাশে লাগাতে পারেন। উপকার পাবেন।

♦ কদম ফুলের পাপড়ি বেটে ৫-১০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। এতে চোখের নিচের কালো দাগ অনেকটা কমবে। এক্ষেত্রে পুদিনাপাতা বা নিমপাতাও ব্যবহার করতে পারেন।

 

মেকআপ টিপস...

চোখে কালো দাগ পড়লে মেকআপে বড্ড ঝামেলা হয়। এক্ষেত্রে সমাধান হলো, প্রথমে ত্বকে ভালো মানের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করে নিন। তারপর ত্বকে প্রাইমার লাগিয়ে নিন। এবার ত্বকের সঙ্গে মিলিয়ে কনসিলার ব্যবহার করুন। দাগ বেশি থাকলে অরেঞ্জ শেডের কারেক্টর লাগিয়ে কনসিলার ব্যবহার করুন। চোখের কালো দাগ ঢেকে যাবে। এবার ত্বকের রঙের সঙ্গে ম্যাচিং করে ফাউন্ডেশন লাগান। সবশেষে হালকা রঙের আইশ্যাডো ব্যবহার করতে পারেন এতে চোখ উজ্জ্বল দেখাবে।


আপনার মন্তব্য