শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ১৯:২৯
প্রিন্ট করুন printer

এবার পশ্চিমবঙ্গে পাস হল নাগরিকত্ব আইন বিরোধী প্রস্তাব

অনলাইন ডেস্ক

এবার পশ্চিমবঙ্গে পাস হল নাগরিকত্ব আইন বিরোধী প্রস্তাব

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) প্রত্যাহার এবং জাতীয় জনসংখ্যা পঞ্জি (এনপিআর), জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) মতো প্রক্রিয়া চালু না করার দাবিতে বিধানসভায় প্রস্তাব পাস করেছে মমতার নেতৃত্বাধীন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার।

এর আগে, কেরালা, পাঞ্জাব, রাজস্থানে সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পাস হয়।

সোমবার দুপুরের পর রাজ্য বিধানসভায় সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পেশ রাজ্যের পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বাম ও কংগ্রেস বিধায়করা এই প্রস্তাবে সংশোধনী আনার পক্ষে ভোটাভুটিতে না গেলেও বিরোধিতা করেছে বিজেপি। শেষে কণ্ঠভোটে এই প্রস্তাব পাস হয়।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, আমাদের রাজ্যে সিএএ, এনআরসি আর এনপিআর করার অনুমতি দেব না। মানুষ আতঙ্কে আছেন। সব ধরনের নথির জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে হয়রানি হচ্ছেন।

শুধু সংখ্যালঘুদের জন্য এ লড়াই নয় জানিয়ে মমতা আরও বলেন, ‘এই লড়াই শুধু সংখ্যালঘুদের না। আমার হিন্দু ভাই-বোনেদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ, তারা সামনে থেকে এই লড়াইটা লড়ছেন।’

পাশাপাশি শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ারও ঘোষণা দেন তিনি।

প্রস্তাবে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন যে নাগরিকত্ব আইনের দ্বারা কোনো নাগরিকের নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়া হবে না। কিন্তু এই আইনে তার কোনো উল্লেখ নেই। যা নাগরিকদের মধ্যে একটা বিভ্রান্তি তৈরি করছে। তাই রাজ্যে সরকারের মাধ্যমে কেন্দ্র সরকারের কাছে দাবি জানানো হচ্ছে যে, সিএএ বাতিল এবং এনপিআর, এনআরসি প্রত্যাহারের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। 

এই প্রস্তাবে আরও বলা হয়েছে, সিএএ-র সাহায্যে কেন্দ্রের শাসক দল ধর্মের নামে দেশের মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করছে। মানবাধিকারকে ধ্বংস করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। ফলে পশ্চিমবঙ্গ-সহ দেশের প্রতিটি রাজ্যে চরম অস্থিরতা তৈরি হয়েছে।

গত ৬ সেপ্টেম্বর জাতীয় নাগরিক পঞ্জির বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাশ করেছিল রাজ্য বিধানসভা। সেই প্রস্তাবে বলা হয়েছিল, এনআরসি-র তৈরির নামে বৈধ ভারতীয় নাগরিকদের হয়রানি করা হচ্ছে। এ রাজ্যে কোনো ভাবেই এনআরসি চালু করা যাবে না, সেই প্রস্তাবও গৃহীত হয়েছিল।


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১০:৪৬
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১০:৪৯
প্রিন্ট করুন printer

পদত্যাগ করছেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

পদত্যাগ করছেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী

ইতালির প্রধানমন্ত্রী জিসেপে কন্তে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। সোমবার এক বিবৃতিতে কন্তে জানিয়েছেন, তিনি মঙ্গলবার পদত্যাগ করবেন।

মঙ্গলবার সকাল ৯টায় মন্ত্রিসভার বৈঠক ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী কন্তে। তার কার্যালয় থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, তিনি ওই বৈঠকে তার নিজের ইচ্ছার কথা মন্ত্রীদের কাছে ব্যক্ত করবেন। এরপরেই হয়তো তিনি প্রেসিডেন্ট সার্জিও মাত্তারেলার কার্যালয়ে পদত্যাগপত্র জমা দিতে যাবেন।

করোনা মহামারির কারণে দেশজুড়ে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তার বিরুদ্ধে লড়াই করতে কন্তে হয়তো নতুন সরকার গঠনের পরামর্শ চাইতে পারেন। 

মহামারী করোনা নিয়ন্ত্রণে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপে হতাশ হয়ে গত ১৩ জানুয়ারি সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাত্তিও রেনজি তার ইটালিয়া ভিভা পার্টিকে প্রত্যাহারের পর থেকেই ক্ষমতাসীন জোট ভেঙে পড়েছে। গত সপ্তাহে পার্লামেন্টের আস্থা ভোটে কোনমতে টিকে গেছেন কন্তে। কিন্তু সিনেটের উচ্চ কক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। ফলে তার সরকার বেশ দুর্বল হয়ে পড়েছে।

এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে পদত্যাগ করেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী মাত্তিও রেনজি। সংবিধান সংস্কারের পরিকল্পনা করেছিলেন রেনজি। ওই পরিকল্পনার ওপর গণভোটে শোচনীয় পরাজয় দেখে আকস্মিক পদত্যাগ করেন তিনি। মাত্র মাত্র আড়াই বছর ক্ষমতায় থাকার পর দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেন রেনজি।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১০:৪১
প্রিন্ট করুন printer

ইরানের আমন্ত্রণে তেহরান সফরে তালেবান প্রতিনিধিদল

অনলাইন ডেস্ক

ইরানের আমন্ত্রণে তেহরান সফরে তালেবান প্রতিনিধিদল
মোল্লা আব্দুলগনি বারাদার তালেবান প্রতিনিধিদলটির নেতৃত্বে রয়েছেন

আফগানিস্তানের তালেবানের একটি রাজনৈতিক প্রতিনিধিদল তেহরান সফরে এসেছে বলে খবর দিয়েছেন ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে। মোল্লা আব্দুলগনি বারাদার প্রতিনিধিদলটির নেতৃত্বে রয়েছেন।

খাতিবজাদে জানান, ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আমন্ত্রণে এবং আগে থেকে সমন্বয়ের মাধ্যমে এ সফর অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

তালেবান প্রতিনিধিদলটি মঙ্গলবার সকালে তেহরানে পৌঁছেছে জানিয়ে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, বিমানবন্দরে তার মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা প্রতিনিধিদলটিকে স্বাগত জানিয়েছেন।

খাতিবজাদে বলেন, তালেবান প্রতিনিধিদলটি এ সফরে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ ও আফগানিস্তান বিষয়ক ইরানের বিশেষ প্রতিনিধি মোহাম্মাদ ইব্রাহিম তাহেরিয়ানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবে। এসব সাক্ষাতে আফগানিস্তানের চলমান শান্তি প্রক্রিয়াসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয়ে আলোচনা হবে।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১০:১৫
প্রিন্ট করুন printer

ইরান-আমেরিকা সম্পর্ক উন্নয়নে ‘নতুন সুযোগ’ সৃষ্টি হয়েছে: মার্কিন জেনারেল

অনলাইন ডেস্ক

ইরান-আমেরিকা সম্পর্ক উন্নয়নে ‘নতুন সুযোগ’ সৃষ্টি হয়েছে: মার্কিন জেনারেল
কেনেথ ফ্রাঙ্ক ম্যাকেনজি

মধ্যপ্রাচ্যে মোতায়েন সন্ত্রাসী মার্কিন বাহিনী- সেন্টকমের কমান্ডার জেনারেল কেনেথ ফ্রাঙ্ক ম্যাকেনজি দাবি করেছেন, জো বাইডেন আমেরিকার প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করার পর ইরান ও আমেরিকার সম্পর্ক উন্নয়নে ‘নতুন সুযোগ’ সৃষ্টি হয়েছে।

বিগত বছরগুলোতে ইরানের সঙ্গে তীব্র উত্তেজনা প্রসঙ্গে তিনি আরও দাবি করেন, “আমরা একটি যুদ্ধ প্রতিহত করতে চেয়েছিলাম।”

প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাইডেন দায়িত্ব গ্রহণ করার পর প্রথমবারের মতো মধ্যপ্রাচ্য সফরের আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি একথা বলেন। 

জেনারেল ম্যাকেনজি আরও দাবি করেন, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বাইডেনের বিজয়ের আগের ও পরের মাসগুলোতে ইরানের পক্ষ থেকে ‘কঠোর হুমকি সৃষ্টিকারী তৎপরতা’ লক্ষ্য করা গেছে।

তিনি আরও বলেন, কোনও কোনও সামরিক ও নিরাপত্তা বিশ্লেষকের ভবিষ্যদ্বাণী ভুল প্রমাণ করে ডোনাল্ড ট্রাম্পের শাসনামলের শেষ দিনগুলোতে ইরান মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকার কোনো লক্ষ্যবস্তুতে হামলা করেনি। উল্টো ইরাকসহ মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশে নিজের অনুসারী বাহিনীগুলোকে নিয়ন্ত্রণে রেখেছে তেহরান।

নয়া মার্কিন প্রশাসন তার নীতিতে পরিবর্তন আনার চেষ্টা করছে জানিয়ে সেন্টকমের কমান্ডার আরও দাবি করেন, “আমার মনে হয় ইরানের কোনো কোনো মহল নয়া মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করে ওয়াশিংটনের নীতিতে পরিবর্তন আসে কিনা তা দেখতে চায়।”

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৮ সালের মে মাসে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। এর ফলে দু’দেশের সম্পর্কে তীব্র উত্তেজনা দেখা দেয় এবং মার্কিন সন্ত্রাসী সেনারা ২০২০ সালের ৩ জানুয়ারি ইরানের শীর্ষস্থানীয় জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যা করলে সে উত্তেজনা চরমে পৌঁছে যায়।

তবে নয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নির্বাচনি প্রচারণায় ইরানের পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। কিন্তু তেহরান স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছে, ইরানের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করার আগে আমেরিকার পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার বিষয়টিকে স্বীকৃতি দেওয়া হবে না।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০৯:২০
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০৯:৩২
প্রিন্ট করুন printer

যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম নারী ট্রেজারি সেক্রেটারি জ্যানেট

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম নারী ট্রেজারি সেক্রেটারি জ্যানেট

যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম নারী ট্রেজারি সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করছেন জ্যানেট ইয়েলেন। সিনেট ভোটে জ্যানেটের নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। 

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংকে ২০১৪ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন জ্যানেট। প্রধান হিসেবে দায়িত্বগ্রহণের আগে এক দশক বোর্ড মেম্বার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন, এর মধ্যে চার বছর ছিলেন ভাইস চেয়ার। 
২০১৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভের প্রধান হিসেবে জ্যানেটকে বেছে নেন সাবেক ডেমোক্রেট প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। রীতি মেনে তাকে দ্বিতীয়বারের মতো দায়িত্বপালনের সুযোগ দেননি সদ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এবার নতুন ডেমোক্রেট প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসনে গুরুত্বপূর্ণ পদে নিয়োগ পেলেন তিনি। মহামারীতে জো বাইডেন প্রশাসনের আর্থিক বিষয়ে পরামর্শক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন জ্যানেট। করোনা সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ও সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দেশটি।

সূত্র: বিবিসি

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০৯:১৬
প্রিন্ট করুন printer

হুথি আন্দোলনের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা স্থগিত করল বাইডেন প্রশাসন

অনলাইন ডেস্ক

হুথি আন্দোলনের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা স্থগিত করল বাইডেন প্রশাসন
হুথি আন্দোলনের নেতা আব্দুল মালেক হুথি

এক মাসের জন্য ইয়েমেনের হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলনের সঙ্গে অর্থনৈতিক লেনদেনের অনুমতি দিয়ে একটি লাইসেন্স ইস্যু করেছে মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয়। 

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হুথি আন্দোলনকে ‘সন্ত্রাসী’ গোষ্ঠীর তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে এটির সঙ্গে সব ধরনের অর্থনৈতিক লেনদেন নিষিদ্ধ করে দিয়েছিলেন।

সোমবার মার্কিন অর্থ বিভাগের দেয়া লাইসেন্স অনুযায়ী হুথি আন্দোলন বা যেসব প্রতিষ্ঠানে এই আন্দোলনের শতকরা ৫০ ভাগ বা তার বেশি বিনিয়োগ আছে সেসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বাণিজ্য বা ব্যবসায়িক লেনদেনের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা ২৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। তবে হুথি আন্দোলনের যেসব নেতাকে আমেরিকার কালো তালিকায় স্থান দেওয়া হয়েছে তারা এই স্থগিতাদেশের আওতায় পড়বেন না।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রস্তাবিত পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিংকেন সম্প্রতি বলেছিলেন, ইয়েমেনে আনসারুল্লাহ আন্দোলনকে সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার যে পদক্ষেপ ওয়াশিংটন নিয়েছিল তা পুনর্মূল্যায়ন করবে বাইডেন প্রশাসন।

ট্রাম্প সরকার ক্ষমতা ত্যাগ করার মাত্র নয় দিন আগে গত ১১ জানুয়ারি হুথি আনসারুল্লাহর ওপর কঠোর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রেখে যায়।বিশ্বের বহু দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা ট্রাম্প প্রশাসনের এ পদক্ষেপের নিন্দা জানায়।২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে ইয়েমেনের ওপর সৌদি আরব যে ভয়াবহ আগ্রাসন চালিয়ে আসছে তার প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছে ওয়াশিংটন।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এই বিভাগের আরও খবর