শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১১:১৫
আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১১:১৭

আমেরিকা গেলেই ব্যাগভর্তি ময়লা কাপড় সঙ্গে নেন নেতানিয়াহু, কিন্তু কেন?

অনলাইন ডেস্ক

আমেরিকা গেলেই ব্যাগভর্তি ময়লা কাপড় সঙ্গে নেন নেতানিয়াহু, কিন্তু কেন?
বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু

যখনই আমেরিকা সফরে যান, তখনই স্যুটকেস ভর্তি ময়লা কাপড় সঙ্গে নেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। আর সেই কাপড় ধুতে হয় মার্কিন সরকারি কর্মীদেরই। দীর্ঘদিন ধরে তিনি এমনটি করে আসছেন। নেতানিয়াহুর এমন কর্মকাণ্ডে রীতিমতো হতবাক মার্কিন কর্মকর্তারা। খবর ওয়াশিংটন পোস্ট, দ্য গার্ডিয়ান ও মিডল ইস্ট আই ’র।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইসরায়েলি সাংবাদিকেরা কয়েক বছর ধরে বিষয়টি নিয়ে বলে আসলেও এ প্রথম মার্কিন কর্মকর্তারা এ নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানালেন।

নেতানিয়াহু সরকারি সফরে যুক্তরাষ্ট্রে আসলে মার্কিন প্রেসিডেন্টের গেস্ট হাউস ব্লেয়ার হাউসে উঠেন, যেটি হোয়াইট হাউসের উল্টোদিকে অবস্থিত। প্রতিবারই ইসরায়েল থেকে তিনি অনেকগুলো ব্যাগ ও সুটকেস সঙ্গে করে নিয়ে আসেন, যাতে ময়লা কাপড় ভর্তি থাকে।

খবরে বলা হয়, সেসব ময়লা কাপড় বিনা পয়সায় মার্কিন কর্মী দ্বারা ধুয়ে নেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী।

ব্লেয়ার হাউসে উঠা সব অতিথিদের জন্য কাপড় ধোয়া ও পরিষ্কারের জন্য লন্ড্রি ব্যবস্থা আছে। তবে রাষ্ট্রীয় অতিথি এবং তাদের পরিবার সফরকালীন পোশাক ধুতে সেই সেবা গ্রহণ করেন।

এক মার্কিন কর্মকর্তা বলেন, “একমাত্র নেতানিয়াহুই সুটকেস ভর্তি ময়লা কাপড় নিয়ে এসে আমাদের দিয়ে ধুইয়ে নেন।”

শুধু একবার নয়, বারবার একই কাণ্ড করেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী। ওই মার্কিন কর্মকর্তার ভাষ্য, “একাধিক সফরে একই ধরনের কাজ করার পর পরিষ্কার হয় যে, ইচ্ছা করেই তিনি এমনটি করেন।”

সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, নিজ দেশেও এমন অদ্ভুত আচরণের জন্য সমালোচিত নেতানিয়াহু।

২০১১ সালে ইসরায়েলি সাংবাদিক রাভিভ ড্রকারের একটি প্রতিবেদন থেকে প্রথম জানা যায় ময়লা কাপড় ধোয়া নিয়ে নেতানিয়াহু পরিবারের এই অভ্যাসের বিষয়টি।

এ মাসের শুরুতে ইসরায়েলের সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং বাহরাইনের চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য মার্কিন সফরে যান নেতানিয়াহু।

সপ্তাহজুড়ে সেই সফরে নেতানিয়াহু পরিবারসহ ইসরায়েলি কর্মকর্তার বাসভবনে থাকলেও রাষ্ট্রীয় খরচে লন্ড্রি সেবা নেন। বিষয়টি প্রকাশ পায় প্রভাবশালী ইসরায়েলি সংবাদমাধ্যম হারেৎজেও।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর