শিরোনাম
প্রকাশ : ৩০ নভেম্বর, ২০২০ ০৮:৪৯
আপডেট : ৩০ নভেম্বর, ২০২০ ১৩:১৪
প্রিন্ট করুন printer

এতটা অরক্ষিত ইরান! বিজ্ঞানী হত্যার আগে যে ভয়াবহ গোপন মিশন চালিয়েছিল ইসরায়েল

অনলাইন ডেস্ক

এতটা অরক্ষিত ইরান! বিজ্ঞানী হত্যার আগে যে ভয়াবহ গোপন মিশন চালিয়েছিল ইসরায়েল

সম্প্রতি ইরানের প্রধান পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদেকে গুপ্ত মিশন চালিয়ে হত্যা করা হয়। নিজ দেশের ভেতর গোপন মিশনে হত্যার এই ঘটনা বিশ্বব্যাপী ইরানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

তবে এর চেয়েও ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটেছিল, যার চূড়ান্ত ফল ইরানের এই বিজ্ঞানী হত্যার সফল মিশন।

জানা গেছে, ইসরায়েলি কমান্ডোদের একটি টিম ইরানের অত্যন্ত সুরক্ষিত ওয়্যারহাউজে প্রবেশ করেছিল। অভিযানটি ছিল অনেক বেশি দুঃসাহসী। তবে ভোরের আগেই দলটি ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচির পাঁচ হাজার পৃষ্ঠার গোপন নথি চুরি করে তারা ইসরায়েলের মাটিতে ফিরে আসে।

কয়েক সপ্তাহ পর ২০১৮ সালের এপ্রিলে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু সেই চুরি করা নথির বরাত দিয়ে ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচির পরিকল্পনা তুলে ধরেন জাতিসংঘে। ওই সময় তিনি ইরানের শীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফখরিজাদের নামটিও প্রকাশ করেন।

আর সেই গোপন মিশনের চূড়ান্ত ফল হিসেবে প্রাণ গেল পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদের। মোহসেন শুধু পরমাণু বিজ্ঞানীই ছিলেন না, তাকে ইরানের বোমার জনক বলতেন কূটনীতিকরা। বিস্ফোরক বোঝাই একটি গাড়ি দিয়ে তেহরানের বাইরে কৌশলে থামানো হয় মোহসেনের গাড়িটি। এরপর দ্রুত আরেকটি গাড়ি থেকে এক দল বন্দুকধারী বের হয়ে গুলি ছুড়ে ওই বিজ্ঞানীর মৃত্যু নিশ্চিত করে এবং পালিয়ে যায়।

ইরানের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে এভাবে শীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানীকে হত্যার ঘটনায় এটাই প্রমাণ করছে ইসরায়েলিদের কাছে তেহরান এখনও কতটা অরক্ষিত।

মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র সাবেক প্রধান ব্রুস রিডেল বলেন, ‘এটা নজিরবিহীন। এটি ইরানিদের কার্যকর প্রতিরোধের কোনও চিহ্নও দেখাচ্ছে না।’

ইরান অবশ্য গত চার বছর ধরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার কারণে বেশ  চাপের মুখে রয়েছে। মার্কিন নির্বাচনে ক্ষমতার পালাবদলের ঘোষণা আসায় অনেক ইরানি নেতা এখন হবু প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের দায়িত্ব গ্রহণ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চাইছেন। বাইডেন ইতোমধ্যে ইরানের পরমাণু চুক্তিতে ফেরার এবং নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন। তাই মোহসেন হত্যার বদলার ঘোষণা দিলেও তা ‘যথাসময়ে’ নেওয়ার কথা বলেছে ইরান।

বাস্তবাদী অনেক ইরানি নেতার মতে, ট্রাম্প তার ক্ষমতার শেষ দিনগুলোতে তেহরানের ওপর একের পর এক হামলা চালাতে পারে। এই সময় ইরান পাল্টা ব্যবস্থা নিলে ট্রাম্প প্রশাসন এমন কোনও পদক্ষেপ নিতে পারে যা তাদের অর্থনীতিকে আরও বিপর্যয়ের দিকে ঠেলে দেবে।

ইরানের সাংস্কৃতিক ও পরিচালনা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক কর্মকর্তা মোহাম্মদ হোসেইন খোশবাগত টুইটারে লিখেছেন, ‘আজ থেকে ট্রাম্পের হোয়াইট হাউজ ছাড়ার আগ পর্যন্ত ইরানের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক সময়।’

সিআইএ’র সাবেক প্রধান ব্রুস রিডেল বলেন, ইসরায়েল এককভাবে ইরানের বিরুদ্ধে সফল একটি রোডম্যাপ তৈরি করেছে। এর জন্য তার গোয়েন্দা সংস্থার বিপুল সম্পদ কাজে লাগাচ্ছে। ইরানের ওপর নজরদারি বাড়াতে সতর্কভাবে এর প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তুলছে। আজারবাইজানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে দেশটিতে ড্রোনসহ অন্যান্য অস্ত্র সরবরাহ করেছে ইসরায়েল। সম্প্রতি আর্মেনিয়া-আজারবাইজান যুদ্ধে সেসব অস্ত্র নজরে এসেছে। এসব ড্রোন বা অন্যান্য যন্ত্রের মাধ্যমে তেহরানের ওপর নজরদারি বাড়াতে পারে ইহুদি রাষ্ট্রটি।

রিডেল জানান, মোহসেন ফখরিজাদেহ হত্যাকাণ্ডে এমন ইঙ্গিত মিলছে যে, ২০১০ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ইসরায়েল একের পর এক ইরানি বিজ্ঞানী ও গবেষকদের ওপর যে হামলা শুরু করেছিল ১০ বছর পর আবারও তা শুরু হল। এখন দেখার বিষয়, ইসরায়েল কি খেলা শুরু করল নাকি শুরুর পথে রয়েছে। সূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৭:২৩
প্রিন্ট করুন printer

দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব নিরসনে আলোচনায় বসছে তুরস্ক ও গ্রিস

অনলাইন ডেস্ক

দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব নিরসনে আলোচনায় বসছে তুরস্ক ও গ্রিস
তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভুলত চাভুসওগ্লু (ডানে) ও গ্রিসের পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিকোস ডেনডিয়াস

পূর্ব ভূমধ্যসাগরে তেল ও গ্যাসের অনুসন্ধান নিয়ে সৃষ্ট দ্বন্দ্ব নিরসন এবং সমুদ্রসীমা নির্ধারণের লক্ষ্যে তুরস্ক ও গ্রিস আলোচনা শুরু করেছে।

তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে আজ সোমবার আলোচনা শুরু হয়। দু'দেশের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা দ্বন্দ্ব অবসানের লক্ষ্যে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মেভলুত চাভুসওগ্লূ সরাসরি আলোচনায় বসার জন্য গ্রিসের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। তার ধারাবাহিকতায় এ আলোচনা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

গত সপ্তাহে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সে সময় গ্রিসের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে আলোচনায় বসার আমন্ত্রণ জানান চাভুসওগ্লু। পাঁচ বছর পর দুই দেশ এ ধরনের আলোচনায় বসল। ২০১৬ সালে দুপক্ষ সর্বশেষ আলোচনা করেছিল।

তুরস্ক ও গ্রিসের মধ্যকার এই আলোচনাকে স্বাগত জানিয়েছেন ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেল। 

তিনি বলেন, দু'দেশের মধ্যকার দ্বন্দ্ব নিরসনের এই উদ্যোগকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন স্বাগত জানায়। তবে এই আলোচনায় বড় ধরনের কোন অগ্রগতি আসবে বলে মনে হয় না। কারণ ন্যাটো জোটের সদস্য গ্রিস এবং তুরস্ক গত সপ্তাহেও বাকবিতণ্ডায় লিপ্ত হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৬:৫৬
প্রিন্ট করুন printer

ভারতে ঘরে বসেই ভোট দেওয়া যাবে!

অনলাইন ডেস্ক

ভারতে ঘরে বসেই ভোট দেওয়া যাবে!
প্রতীকী ছবি

নির্বাচনে প্রযুক্তির ব্যবহার আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে ভারতীয় নির্বাচন কমিশন। দেশটির নির্বাচন কমিশনের দাবি, আগামী দিনে দেশের যে কোনো প্রান্তে বসেই নিজের বুথে গিয়ে ভোট দেওয়ারও প্রয়োজন হবে না। ঘরে বসেই ভোট দেওয়ার সুযোগ পাবেন সাধারণ মানুষ। আইআইটি মাদ্রাজের গবেষকরা নতুন এই প্রকল্পে কাজ করছেন।

আজ ২৫ জানুয়ারি, দেশটির জাতীয় নির্বাচন কমিশনের প্রতিষ্ঠা দিবস। দিনটিকে ভারতে জাতীয় ভোটার দিবস হিসেবে পালন করা হয়। আজ সকালে সে উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেন মুখ্য নির্বাচন কমিশন সুনীল আরোরা। এ মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত তিনি। তারই মধ্যে তিনি জানান, দ্রুত রিমোট ভোটিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে। কিছুদিনের মধ্যেই এর মহড়া শুরু হবে। 

ইভিএমের সাহায্যে এখন ভোট হয় ভারতে। কিন্তু ভোটারদের নিজের কেন্দ্রে নির্দিষ্ট বুথে গিয়ে ভোট দিতে হয়। কাজের সূত্রে যারা বাইরে থাকেন, তারা ভোট দিতে পারেন না। নতুন পদ্ধতিতে দেশের যে কোনো প্রান্তে বসে নিজের কেন্দ্রে ভোট দেওয়া যাবে। প্রযুক্তির সাহায্যে সে ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শুধু দেশ নয়, বিদেশে যেসব ভারতীয় আছেন, তারাও ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত হন। নতুন ব্যবস্থায় তারাও যাতে ভোট দিতে পারেন, সে ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার।

এপ্রিল-মে মাসে পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন। সেখানেই কি নতুন ব্যবস্থা চালু হবে? নির্বাচন কমিশন সূত্র জানাচ্ছে, এত দ্রুত নতুন ব্যবস্থা চালু করা যাবে না। তবে কিছু দিনের মধ্যেই নতুন ব্যবস্থার মহড়া চালু হবে। মহড়া হলে বোঝা যাবে, নতুন ব্যবস্থায় কী কী সমস্যা হতে পারে। তা বুঝে নিয়েই ব্যবস্থাটিকে কার্যকর করা হবে। এখনো প্রযুক্তিটি গবেষণার স্তরে আছে। মাদ্রাজ আইআইটির গবেষকরা বিষয়টি নিয়ে কাজ করছেন।

সূত্র: ডয়চে ভেলে, পিটিআই, রয়টার্স

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

 

 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:৪৫
প্রিন্ট করুন printer

ডেনমার্কে তুর্কি মসজিদে আপত্তিকর লেখা, প্রতিবাদ তুরস্কের

অনলাইন ডেস্ক

ডেনমার্কে তুর্কি মসজিদে আপত্তিকর লেখা, প্রতিবাদ তুরস্কের
আলী ইরবাস

ডেনমার্ক-জার্মানি সীমান্তে গত শুক্রবার তুর্কি একটি মসজিদের দেয়ালে আপত্তিকর লেখা লিখেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন তুরস্কে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দিয়ানেত বিভাগের প্রধান আলী ইরবাস।

এক টুইটবার্তায় রবিবার তিনি বলেন, দিন দিন যেভাবে ইসলামবিদ্বেষী প্রচার চালাচ্ছে একটি বর্ণবাদী গ্রুপ, তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত। 
 
স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যায় জার্মান সীমান্তে তুর্কি ওই মসজিদে উগ্রবাদী ও বর্ণবাদী দুর্বৃত্তরা মসজিদের দেয়ালে আপত্তিকর লেখা লিখে যান।
 
মসজিদটি পরিচালনা করে আসছে ড্যানিশ-টার্কিশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন।  এ বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৪:৫৪
প্রিন্ট করুন printer

আমেরিকা অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করছে: রাশিয়া

অনলাইন ডেস্ক

আমেরিকা অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করছে: রাশিয়া

রাশিয়ার অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে আমেরিকা হস্তক্ষেপ করছে বলে অভিযোগ করেছে রাশিয়া। মস্কো জানিয়েছে, আমেরিকার উসকানিতে বিরোধী নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি ইস্যুতে সম্প্রতি দেশটিতে বিক্ষোভ হয়েছে। 

অবশ্য আমেরিকা এই বিক্ষোভের ব্যাপারে বলেছে দেশটির নাগরিকদের বিক্ষোভ করার অধিকার রয়েছে। এরপর ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ এই মন্তব্য করেন।

মস্কোর মার্কিন দূতাবাসের মুখপাত্র রেবেকা রস টুইটারের দেয়ো এক পোস্টে দাবি করেন, রাশিয়া জনগণের মতপ্রকাশের স্বাধীনতার প্রতি আমেরিকার পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। তিনি আরও বলেছেন, বিক্ষোভ মোকাবেলার জন্য রাশিয়ার সরকার যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা জনগণের এই অধিকার লঙ্ঘনের শামিল। এছাড়া রাশিয়ায় অবস্থানরত মার্কিন জনগণের জন্য বিশেষ সতর্কতা জারি করেছে মার্কিন দূতাবাস।

গতকাল রাশিয়ার একটি সরকারি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, আমেরিকার পক্ষ থেকে এই সমস্ত বক্তব্য-বিবৃতি এবং পদক্ষেপ রাশিয়ার অভ্যন্তরীণ বিষয়ে সরাসরি হস্তক্ষেপ।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৪:২১
আপডেট : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৬:৫১
প্রিন্ট করুন printer

প্রথম কৃত্রিম কর্নিয়া প্রতিস্থাপন করে ইসরায়েলের চমক

অনলাইন ডেস্ক

প্রথম কৃত্রিম কর্নিয়া প্রতিস্থাপন করে ইসরায়েলের চমক
সংগৃহীত ছবি

বিশ্বে প্রথমবারের মতো সফলভাবে কৃত্রিম কর্নিয়া প্রতিস্থাপনে করেছে ইসরায়েল। গত ১১ জানুয়ারি দেশটির বেলিংসন হসপিটালে বিশ্বের প্রথম কৃত্রিম কর্নিয়া প্রতিস্থাপন করা হয়। সেখানকার চক্ষু বিভাগের প্রধান প্রফেসর ইরিত বাহার অস্ত্রোপচারটি করেন।

এর মাধ্যমে দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেয়েছেন ৭৮ বছর বয়সী এক ইসরায়েলি নাগরিক। ওই বৃদ্ধ ১০ বছর আগে দৃষ্টিশক্তি হারিয়েছিলেন। 

অদ্রবনীয় সিন্থেটিক ন্যানো টিস্যু ব্যবহার করে নির্মিত এ থ্রিডি কর্নিয়া— যা কে-প্রো নামে পরিচিত, সেটি নষ্ট বা অস্বচ্ছ কর্নিয়া প্রতিস্থাপন করতে সক্ষম। ইসরায়েলি প্রতিষ্ঠান ‘কর্নিট’ (CorNeat) এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে। গত বছরের জুলাই মাসে কৃত্রিম কর্নিয়া প্রতিস্থাপনের প্রক্রিয়া ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য অনুমোদন পায়।

চোখের পাতা এবং অক্ষিগোলকের ওপরের অংশের পাতলা পর্দা অর্থাৎ কনজাংকটিভার নিচে পাতলা ওই কৃত্রিম কর্নিয়া স্থাপন করা হয়।

কর্নিট ভিশনের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা এবং কে-প্রোর উদ্ভাবক ডা. গিলাড লিটভিন বলেন, ‘অস্ত্রোপচারটি তুলনামূলক সহজ ছিল এবং এটি করতে এক ঘণ্টারও কম সময় লেগেছে। ’

দৃষ্টিশক্তি ফেরাতে কর্নিয়া প্রতিস্থাপন আগে থেকেই হয়ে আসছে। তবে শুধু কোনো দাতার কর্নিয়ার মাধ্যমেই সেটি সম্ভব। এক্ষেত্রে কৃত্রিম কর্নিয়া প্রতিস্থাপন যুগান্তকারী সাফল্য হয়ে উঠবে।

সূত্র: বিজনেস ইনসাইডার


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর