শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১২:৩৩

ফ্যাশন ডিজাইনার শর্বরী দত্তের অস্বাভাবিক মৃত্যু

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

ফ্যাশন ডিজাইনার শর্বরী দত্তের অস্বাভাবিক মৃত্যু

অস্বভাবিক মৃত্যু হয়েছে কলকাতা তথা ভারতের অন্যতম প্রসিদ্ধ ফ্যাসন ডিজাইনার শর্বরী দত্তের। গতকাল বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কলকাতার ব্রড স্ট্রিটের বাড়িতে শৌচাগার থেকে উদ্ধার হয় তার লাশ। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর।

শর্বরীর পরিবারের দাবি বুধবার রাতে খাওয়ার সময় তার সঙ্গে শেষবার দেখা হয়। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকালে তার সঙ্গে কোনো সাক্ষাৎ হয়নি পরিবারের অন্য সদস্যদের। বাড়ির পরিবারের সদস্যসদের ধারণা ছিল, তিনি হয়তো কাজে বেরিয়েছেন। 

মায়ের মতো শর্বরী দত্তের পুত্র পেশায় ফ্যাশন ডিজাইনার অমলিন দত্তের দাবি, রাতেও তার মা না ফেরায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন পরিবারের সদস্যরা। এরপর গতকাল রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ শৌচাগারে খোঁজ করেন পরিবারের সদস্যরা। আর সেখান থেকেই উদ্ধার করা হয় শর্বরীর লাশ। খবর দেওয়া হয় কড়েয়া থানার পুলিশকে। পরে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। ঘটনাস্থলে পৌঁছায় লালবাজারের হোমিসাইড শাখার কর্মকর্তারা। শুক্রবার সকালেই তার লাশ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়। পুরো ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। তবে প্রাথমিক তদন্তে কোনো ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাওয়া যায়নি বলে জানানো হয়েছে। 

শর্বরীর বাড়ির চিকিৎসকের ধারণা স্ট্রোক হয়েই তার মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে।

অমলিন জানান ‘বৃহস্পতিবার প্রায় পুরো দিন মায়ের সঙ্গে কোনো কথা হয়নি। আমরা ধরেই নিয়েছিলাম যে, মা হয়তো কোথাও গেছেন। রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ তাকে শৌচাগারে মৃত অবস্থায় দেখতে পাই। তখন আমাদের গৃহ চিকিৎসক ডা. অমল ভট্টাচার্যকে খবর দিই। পরবর্তীতে চিকিৎসকের পরামর্শেই পুলিশকেও খবর দেওয়া হয়। মা যেহেতু প্রচুর ওষুধ খেতেন তাই আমরা বুঝতে পারছি না যে, এটা ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কি না।’ 

নারী ও পুরুষের পোশাক নিয়ে সবসময়ই পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে যেতেন এই নারী ফ্যাশন ডিজাইনার। বাঙালির ধুতিকে গোটা দেশে জনপ্রিয় করার পেছনেও তার যথেষ্ট অবদান ছিল। কলেজের পাঠ চুকিয়েই পোশাক ডিজাইনে তার দক্ষতা দেখাতে শুরু করেন শর্বরী। কলকাতায় নিজের একটি ব্র্যান্ডও তৈরি করেন যার নাম ‘শূন্য’। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন কলকাতার বিভিন্ন পেশার ব্যক্তিরা। 

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

 

 

 

 

 

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর