Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২০ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ জানুয়ারি, ২০১৯ ২৩:০৭

অভাবনীয় সাড়া গার্মেন্ট ও প্লাস্টিক পণ্য মেলায়

নিজস্ব প্রতিবেদক

অভাবনীয় সাড়া গার্মেন্ট ও প্লাস্টিক পণ্য মেলায়

ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) শুরু হওয়া প্লাস্টিক, গার্মেন্ট ও প্যাকেজিং শিল্পপ্রযুক্তির চার দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীর শেষ দিন আজ। মেলার প্রথম তিন দিনেই উদ্যোক্তা ও দর্শনার্থীদের অভাবনীয় সাড়া দেখা গেছে। আয়োজকরা জানিয়েছেন, চার দিনে ৩০ হাজারের মতো দর্শনার্থী মেলায় আসবেন বলে তারা ধারণা করলেও তিন দিনেই ২৪ হাজারের বেশি উদ্যোক্তা-দর্শনার্থী মেলা পরিদর্শন করেছেন। আজ শেষ দিন সর্বাধিক উদ্যোক্তার উপস্থিতি দেখা যাবে বলে তারা আশা করছেন। পোশাকশিল্প ও প্লাস্টিক পণ্যের সর্বাধুনিক বৈশ্বিক প্রযুক্তি তুলে ধরতে ১৭ জানুয়ারি আইসিসিবিতে শুরু হয়েছে চার দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী। গতকাল প্রদর্শনীর তৃতীয় দিনে গিয়ে দেখা গেছে, সারা দেশ থেকে উদ্যোক্তারা ছুটে এসেছেন মেলায়। তারা স্টল থেকে স্টল ঘুরে দেখছেন। কেউ আবার আগের দুই দিনে নিজ প্রতিষ্ঠানের কারিগরি দল পাঠিয়ে মেলা পরিদর্শন করিয়েছেন। তাদের দেওয়া প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এদিন নিজে এসেছেন তার প্রতিষ্ঠানের জন্য প্রয়োজনীয় নতুন প্রযুক্তির ব্যাপারে খোঁজ নিতে। আগতদের মধ্যে অনেকেই নতুন উদ্যোক্তা। দর্শনার্থীর মধ্যে অনেক তরুণ মুখ দেখা গেছে, যারা নতুন করে কোনো ব্যবসা শুরু করতে চাইছেন। এমনই একজন শাহ আলম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, গাজীপুরে তার একটি প্লট পড়ে আছে। সেখানে গার্মেন্ট-সংশ্লিষ্ট কোনো ব্যবসা শুরু করা যায় কি না তা বুঝতেই মেলায় এসেছেন। প্রদর্শনীর আয়োজক প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি আসক ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশন প্রাইভেট লিমিটেডের এশিয়া প্যাসিফিক রিজিওনের মার্কেটিং ম্যানেজার সালমান বিন সুলতান বলেন, ‘প্রথম দুই দিনে আসা দর্শনার্থীর বেশির ভাগ ছিল বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের টেকনিক্যাল টিম। আজ (গতকাল) মালিকপক্ষের উপস্থিতি বেশি। প্রদর্শনীতে উদ্যোক্তাদের যতটা সাড়া পড়বে বলে আশা করেছিলাম, তার চেয়েও ভালো সাড়া পেয়েছি।’ প্রদর্শনীতে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে শিল্প স্থাপনে পরামর্শ প্রদান ও হাতে-কলমে এসবের ব্যবহার শেখাচ্ছে অংশ নেওয়া দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠানগুলো। প্রায় প্রতিটি স্টলেই কর্মীরা মেশিন চালাচ্ছেন। কোথাও ভিডিও ডিসপ্লেতে দেখানো হচ্ছে মেশিনারির ব্যবহার। আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারে কীভাবে দু-এক জন কর্মী দিয়েই ছোটখাটো একটি শিল্পপ্রতিষ্ঠান চালানো সম্ভব তাও দেখানো হচ্ছে। পোশাকশিল্পে ব্যবহৃত সুয়িং থ্রেড, ওভেন লেভেল, পলিব্যাগ, লক পলি, ব্যাকবোর্ড, মেটালমোটিভ, লেদারব্যাজ, গামটেপ, সাবলিমেশন প্রিন্ট, অফসেট প্রিন্ট, রাবার প্যাঁচ ছাড়াও আন্তর্জাতিক মানের সুয়িং, নিটিং, এমব্রয়ডারি, ফিনিশিং, ডায়িং, প্রিন্টিং, কাটিং, স্প্রেডিং মেশিনারি প্রদর্শন করা হচ্ছে। এ ছাড়া প্লাস্টিক পণ্য মেলায় বিভিন্ন গৃহস্থালি পণ্যের পাশাপাশি প্লাস্টিক শিল্প প্রতিষ্ঠায় নানা প্রযুক্তি উপস্থাপন করা হয়েছে। ৩০ হাজার ডলার দামের একটি মেশিনে কীভাবে মিনিটে চারটি প্লাস্টিক পণ্য অনায়াসে তৈরি হয়ে যাচ্ছে তা দেখে অনেক দর্শনার্থীই আপ্লুত। মেলায় ২৪টি দেশের ৫১০টি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করেছে। বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত প্রদর্শনীগুলো সবার জন্য উন্মুক্ত।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর