শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ মার্চ, ২০১৯ ২৩:১৩

তুরাগের ১৮৫ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, বাধা

নদী দখলমুক্ত করবই : খালিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

তুরাগের ১৮৫ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, বাধা
তুরাগ তীরে গতকাল উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয় -বাংলাদেশ প্রতিদিন

ঢাকার চারপাশের নদীগুলো অবৈধ দখলমুক্ত করার অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গতকাল অভিযানের ২০তম দিনে তুরাগ তীরে গড়ে উঠা ৩৫টি দালানসহ ১৮৫টি অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয় বিআইডব্লিউটিএ। মিরপুর জহুরাবাদ হতে পালপাড়া পর্যন্ত তুরাগের উভয় তীর দখলমুক্ত করার অভিযান চালানো হয়। এ সময় সাভারের কাউন্দিয়া এলাকায় স্থানীয় চেয়ারম্যানের বাধার মুখে পড়েন কর্মকর্তারা। উচ্ছেদ কাজে বাধা দেওয়ায় চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান শান্তকে আটক করে পুলিশ। পরে মুচলেকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী গতকাল সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে আমরা নদী দখলমুক্ত করব। কোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী সর্বাত্মকভাবে কাজ করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, আমাদের সরকার ঢাকা শহরের চারপাশের নদীগুলো মানুষের বসবাস ও চলাচলের উপযোগী করতে চায়। আমরা কাজ শুরু করেছি। অল্প দিনেই এর প্রতিফলন দেখতে পাবেন। ইনশাআল্লাহ আমরা সফল হব। এ কার্যক্রম টেকসই হবে। 

বিআইডব্লিউটিএ’র যুগ্ম-পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, নদী উদ্ধারে সরকারের কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। যত বাধাই আসুক অভিযান চলবে। আজ সকাল ৯টায় মিরপুর বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে পুনরায় অভিযান শুরু হবে। তিনি জানান, অভিযানে ৩৫টি ছোট-মাঝারি দালানসহ ১৮৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এতে নদীতীরের দুই একর জায়গা দখলমুক্ত হয়। সাভারের কাউন্দিয়া এলাকায় উচ্ছেদ শুরু করলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বাধা দেন। পরে বিষয়টি সমাধান হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও বিআইডব্লিউটিএ কর্মকর্তারা জানান, কাউন্দিয়া এলাকায় নদীর জায়গা দখল করে মালামাল পরিবহনের জন্য তৈরি করা একটি অবৈধ রাস্তা উচ্ছেদ করতে গেলে চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান শান্ত লোকজন নিয়ে বাধা দেন। তিনি বিআইডব্লিউটিএ’র কর্মকর্তাদের সঙ্গে বাকবিত ায় জড়ান। এক কর্মকর্তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমানের নির্দেশে পুলিশ  চেয়ারম্যানকে আটক করে। প্রায় এক ঘণ্টা আটক থাকার পর উচ্ছেদ অভিযানে সার্বিক সহযোগিতা করার শর্তে মুচলেকা নিয়ে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়। এতে উচ্ছেদ কাজ অনেকক্ষণ বন্ধ থাকে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর