শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৮ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:৪০

নদীর বালু লোপাট

নড়িয়ায় ৮ আসামি ছিনিয়ে নিলেন স্বেচ্ছা সেবক লীগ নেতা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি

নড়িয়ায় ৮ আসামি ছিনিয়ে নিলেন স্বেচ্ছা সেবক লীগ নেতা

নড়িয়ায় পদ্মা নদীর বালু খননযন্ত্র অবৈধভাবে তুলে নেওয়ার সময় ৮ ব্যক্তিকে আটক করে উপজেলা ভূমি কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার। ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে অবরুদ্ধ করে আটক পাঁচ আসামি ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে নড়িয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা সিকদারে বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় পুলিশ তার ভাই সুমন সিকদারকে আটক করেছে।

সূত্র জানায়, মোস্তফা সিকদার খননযন্ত্র নিয়ে পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছিলেন। তিনি উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা আক্তারের স্বামী। মঙ্গলবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নড়িয়া উপজেলা ভূমি কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার রাশেদুজ্জামান ওই খননযন্ত্রটি জব্দ করেন। সেখানে বালু উত্তোলনে জড়িত আট ব্যক্তিকে আটক করেন। বেলা আড়াইটার দিকে আসামিদের নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের দল নড়িয়া লঞ্চঘাট এলাকায় পৌঁছলে মোস্তফা সিকদার ও তার ভাই সুমন সিকদারের নেতৃত্বে তার সমর্থকরা ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওই দলকে অবরুদ্ধ করে পাঁচ আসামিকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তফা সিকদারকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিলে তিনি দৌড়ে পালিয়ে যান। তখন পুলিশ তার ভাই সুমন সিকদারকে আটক করে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের এক নেতা বলেন, ভাঙন ঠেকাতে নড়িয়া লঞ্চঘাট এলাকায় বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে। ওই ঠিকাদারি কাজটি করছেন মোস্তফা সিকদার। তিনি ওই কাজে ব্যবহারের বালু অবৈধভাবে নদী থেকে উত্তোলন করছিলেন। মোস্তফা সিকদারের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তার স্ত্রী নড়িয়া উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা আক্তারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার স্বামী অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের সঙ্গে যুক্ত নন। লঞ্চঘাট এলাকায় হৈচৈ দেখে এগিয়ে যান। ওই সময় এসিল্যান্ড গ্রেফতারের নির্দেশ দিলে তিনি দৌড়ে পালান।

সহকারী কমিশনার রাশেদুজ্জামান জানান, নড়িয়ায় পদ্মা নদী থেকে বালু উত্তোলন করার সময় একটি খননযন্ত্র জব্দ ও ৮ ব্যক্তিকে আটক করি। স্থানীয় এ আওয়ামী লীগ নেতা ওই খননযন্ত্র ও আটক ব্যক্তিদের ছিনিয়ে নিলে তাকে আটক করার নির্দেশ দিলে তিনি পালিয়ে যান। তার বিরুদ্ধে সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে মামলা করা হবে।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুরুল হক আকন্দ বলেন, সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। আর ওই আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর