শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৪ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ আগস্ট, ২০২০ ২৩:৫৩

রাশিয়ার ভ্যাকসিন নিয়ে দেশে দেশে ব্যাপক আগ্রহ

প্রতিদিন ডেস্ক

রাশিয়ার ভ্যাকসিন নিয়ে দেশে দেশে ব্যাপক আগ্রহ

রাশিয়ার তৈরি করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিন নিয়ে দেশে দেশে ব্যাপক আগ্রহ তৈরি হয়েছে। যদিও যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো এই ভ্যাকসিনের প্রতি নেতিবাচক মনোভাব পোষণ করে চলেছে। তবে সৌদি আরবসহ ২০টি দেশ এরই মধ্যে রুশ ভ্যাকসিন কেনার জন্য জোর তৎপরতা শুরু করেছে। রাশিয়াও এতে সাড়া দিয়েছে এবং এইসঙ্গে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য তারা ৫টি দেশকে বেছে নিয়েছে। সূত্র : রয়টার্স।

এই ট্রায়ালের জন্য বেছে নেওয়া দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ব্রাজিল, ফিলিপাইন এবং ভারত। এ ছাড়াও দক্ষিণ কোরিয়া, তুরস্ক, কিউবাতেও এ ট্রায়াল হতে যাচ্ছে। এ বিষয়ে গতকাল রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের প্রধান কিরিল দিমিত্রিভ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে গণমাধ্যমকে বলেন, ‘প্রথম যে ২০টি দেশ এই নিয়ে আগ্রহ দেখিয়েছে তাদের মধ্যে ভারত, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ব্রাজিল, ফিলিপাইন অন্যতম। চলতি বছর ডিসেম্বরের মধ্যে ২০ কোটি  ডোজ স্পুটনিক ভি তৈরি করতে চলেছে রাশিয়া।’ তিনি জানান, জনসাধারণের জন্যও টিকা তৈরি শুরু করে দিয়েছে রাশিয়া। আর সেটাই আগ্রহী করে তুলেছে বিভিন্ন দেশকে। দক্ষিণ আমেরিকা, পশ্চিম এশিয়া এবং এশিয়ার ২০টি দেশ এই টিকার জন্য রাশিয়ার কাছে আবেদন করেছে। কিরিল বলেন, ‘বিদেশি সহযোগীদের সঙ্গে বছরে ৫০  কোটি ডোজের  বেশি টিকা তৈরি করতে আমরা প্রস্তুত। তবে রাশিয়ায় উৎপাদিত টিকা রাখা থাকবে শুধুই রুশ নাগরিকদের জন্য। অন্য যে দেশ আগ্রহী হবে, তারা ফরমুলা মেনে নিজেদের ভ্যাকসিন নিজেরাই তৈরি করে নেবে।’ আগ্রহী দেশগুলোকে করোনা ভ্যাকসিন সরবরাহে মস্কো প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত রাশিয়ার দূত ভ্যাসিলি নেবেনজিয়া। তিনি বলেন, মহামারীর বিরুদ্ধে জয়ী হতে আন্তর্জাতিক সহযোগীদের জন্য প্রস্তুত রয়েছে মস্কো। এদিকে নিজেদের উদ্ভাবিত করোনা টিকা শিগগিরই চিকিৎসকদের কাছে পৌঁছানোর ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। গত বুধবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাশকো জানিয়েছেন, আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে চিকিৎসকদের জন্য এ টিকার প্রথম ব্যাচ প্রস্তুত করা হবে। আর অক্টোবর থেকে শুরু হবে বাণিজ্যিকভাবে এর উৎপাদন। মিখাইল মুরাশকো পশ্চিমাদের উদ্দেশ করে বলেন, ‘মনে হচ্ছে আমাদের বিদেশের সহকর্মীরা দেখতে পাচ্ছে প্রতিযোগিতায় তারা রাশিয়ার ভ্যাকসিনের কাছে পিছিয়ে পড়ছেন। আর সে জন্যই ভিত্তিহীন সব অভিযোগ করছেন।’ তিনি বলেন, দৃশ্যত আমাদের বিদেশি সহকর্মীরা রুশ টিকার প্রতিযোগীদের সুবিধাদি তুলে ধরছে এবং আমাদের মতামতকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন হিসেবে উপস্থাপনের চেষ্টা করছে। সংবাদ সূত্রগুলো বলছে, প্রথম দেশ হিসেবে করোনার টিকা আবিষ্কারের দাবি জানিয়ে দুনিয়াকে চমকে দিয়েছে রাশিয়া। একদিনের মধ্যেই অবশ্য সেই ‘স্পুটনিক ভি’ ঘিরে দ্বিধাবিভক্ত গোটা পৃথিবী। প্রথম শিবিরে রয়েছে আমেরিকা, জার্মানির মতো দেশ। যারা স্পুটনিক ভির কার্যকারিতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে। অন্যদিকে রয়েছে রুশপন্থি দুই দেশ ফিলিপাইন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত। উচ্ছ্বসিত ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুতের্তে জানিয়েছেন, ব্যক্তিগতভাবে তিনি স্পুটনিক ভির ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অংশ নেবেন।


আপনার মন্তব্য