শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ অক্টোবর, ২০২০ ২৩:৪০

সংস্কৃতিকর্মীরা জোট হয়ে কাজ করেছে

-ফয়সল বিপ্লব

সংস্কৃতিকর্মীরা জোট হয়ে কাজ করেছে

মুন্সীগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র হাজী মোহাম্মদ ফয়সল বিপ্লব বলেছেন, মুন্সীগঞ্জে করোনা মোকাবিলায় জেলার ক্রীড়াবিদসহ সংস্কৃতিকর্র্মীরা একজোট হয়ে কাজ করেছে। এ ছাড়া করোনাকালে একমাত্র আওয়ামী লীগকে জনগণের পাশে থাকতে দেখেছি। অন্য কোনো দলগুলোর তৎপরতা চোখে পড়েনি।

বাংলাদেশ প্রতিদিনকে তিনি বলেন, মুন্সীগঞ্জের পৌরকর্মীদের মাধ্যমে বিদেশ প্রত্যাগতদের খুঁজে বের করা এবং তাদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করেছি। গত এপ্রিল মাসে প্রথম দফায় ৪ হাজার ৫১২ জনকে, দ্বিতীয় দফায় ৫ হাজার ৬৩৬ জনকে, তৃতীয় দফায় ৬ হাজার ২১৮ জনকে খাদ্যসামগ্রী (চাল-১০ কেজি, মসুর ডাল-১ কেজি, মুগ ডাল ১ কেজি, আটা ২ কেজি, তেল-১ কেজি, পিঁয়াজ ১ কেজি, আলু ৩ কেজি, চিনি-১ কেজি, কালিজিরা ১০০ গ্রাম, সাবান, গুঁড়া সাবান ৫০০ গ্রাম, জীবাণুনাশক স্প্রে, পোলাউ চাল ১ কেজি, সেমাই ৫০০ গ্রাম, গুঁড়ো দুধ ৪০০ গ্রাম ও মসলা ৫০ গ্রাম ইত্যাদি) দেওয়া হয়েছে। আমরা অসুস্থ ও দুস্থ ব্যক্তিদের চিকিৎসা ও অর্থ সহায়তা দিয়েছি। তিনি বলেন, জনগণের সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে মুন্সিরহাট কাঁচাবাজার গরুর হাটের উন্মুক্ত জায়গায় স্থানান্তর, প্রতিদিন বাজার মনিটরিং, পৌর এলাকার সব দোকানপাট বন্ধ রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। পরিচ্ছন্ন কর্মীদের পিপিই, জুতা এবং মাস্ক, গ্লাভস ও স্যানিটাইজার দেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়াও সরকারের মানবিক সহায়তা কর্মসূচির আওতায় ১০ হাজার ৩০০ জনকে ১০ কেজি করে ১০৩ মেট্রিক টন চাল প্রদান, দরিদ্রদের মাঝে ২ লাখ ৭৮ হাজার টাকা নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান, ঈদুল আজহায় দরিদ্র ও দুস্থ ৪ হাজার ৬০০ জনকে ১০ কেজি করে ভিজিএফ-এর চাল প্রদান, ১৪ হাজার ৪০০ জনকে ওএমএস-এর আওতায় ১০ টাকা কেজি চালের জন্য তালিকাভুক্ত করে তাদের বাড়িতে পৌঁছানো হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর