শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ ডিসেম্বর, ২০২০ ২৩:২২

দিনের ব্যবধানে কমল সংক্রমণ ও মৃত্যু

২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ১৬৩২, মৃত্যু ২৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

দিনের ব্যবধানে কমল সংক্রমণ ও মৃত্যু

এক দিনের ব্যবধানে করোনাভাইরাস সংক্রমণ হার ও মৃত্যু উভয়ই কমেছে গতকাল। গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় করোনা রোগী শনাক্তের হার ছিল ৯ দশমিক ৫৯ শতাংশ। গত সাড়ে পাঁচ মাসের তথ্য বিশ্লেষণে এর চেয়ে কম সংক্রমণ হারের খবর মেলেনি। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ২৭ জনের, যা আগের ২৪ ঘণ্টার চেয়ে ১৩ জন কম। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দেশে করোনা সংক্রমণের সবশেষ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তির তথ্যানুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৭ হাজার ২৫টি নমুনা পরীক্ষায় ১ হাজার ৬৩২ জনের দেহে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হওয়া করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪ লাখ ৯৫ হাজার ৮৪১ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লাখ ২৯ হাজার ৩৫১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৬২২ জন। ভাইরাসটির কারণে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৭ হাজার ১৫৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২৭ জনের। গতকাল পর্যন্ত শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ছিল ৮৬ দশমিক ৫৯ শতাংশ ও মৃত্যুর হার ছিল ১ দশমিক ৪৪ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৭ জনের মধ্যে ২৩ জন ছিলেন পুরুষ ও চারজন নারী। সবারই মৃত্যু হয়েছে হাসপাতালে। বয়স বিবেচনায় মৃতদের মধ্যে ১৮ জন ছিলেন ষাটোর্ধ্ব, ছয়জন পঞ্চাশোর্ধ্ব, দুজন চল্লিশোর্ধ্ব ও একজনের বয়স ছিল ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে। এর মধ্যে ১৯ জন ঢাকা, পাঁচজন চট্টগ্রাম, দুজন রংপুর ও একজন ছিলেন রাজশাহী বিভাগের বাসিন্দা। গতকাল ঢাকা মহানগরীর কভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালগুলোর মোট ২৮৮টি আইসিইউ শয্যার ২১৪টিতে রোগী ভর্তি ছিল। শূন্য ছিল ৭৪টি শয্যা। এর মধ্যে সরকারি হাসপাতালে শূন্য ছিল মাত্র ২০টি শয্যা। সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে চট্টগ্রাম মহানগরীর ৪৫টি আইসিইউ শয্যার মধ্যে খালি ছিল ২১টি। ঢাকা ও চট্টগ্রাম বাদে দেশের অন্যান্য হাসপাতালের ২৩৭টি আইসিইউ শয্যার মধ্যে ৬৭টিতে রোগী ভর্তি ছিল। শূন্য ছিল ১৭০টি শয্যা।

গত ২৪ ঘণ্টায় সম্পাদিত ১৭ হাজার ২৫টি নমুনা পরীক্ষার মধ্যে ৭০টি ছিল র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট ও ৯২টি ছিল জিন এক্সপার্ট টেস্ট। বাকিগুলো ছিল আরটি পিসিআর টেস্ট। বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয় ও ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদফতর।


আপনার মন্তব্য