শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৪ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ মার্চ, ২০২১ ২৩:২০

বাংলাদেশি পণ্যে শুল্ক বাড়াল ব্রাজিল আর্জেন্টিনা

ডব্লিউটিওতে আপিল করবে সরকার

রুকনুজ্জামান অঞ্জন

ফুটবল বিশ্বকাপে বাংলাদেশের দর্শক মূলত দুটি দেশের পক্ষে ভাগ হয়ে যায়। এক পক্ষ আর্জেন্টিনা, অন্য পক্ষ ব্রাজিল। এমনকি একই পরিবারে স্ত্রী ব্রাজিলের সাপোর্ট করলে স্বামী আর্জেন্টিনার পতাকা নিয়ে ঘুরে বেড়ান। এ দেশের দর্শকদের ক্ষেত্রে এটি একটি পুরনো চিত্র। উল্টো দিকে নতুন একটি চিত্র তৈরি হচ্ছে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে। ল্যাটিন আমেরিকার ওই দেশ দুটিতে স্বল্পপরিমাণ যে পণ্য রপ্তানি করে বাংলাদেশ তার ওপর সময় সময় অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক আরোপ করছে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল।

সর্বশেষ তথ্যটি হচ্ছে, সম্প্রতি বাংলাদেশ থেকে রপ্তানিকৃত হ্যান্ডগ্লাভসের ওপর অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক আরোপ করেছে আর্জেন্টিনা। সম্প্রতি ওয়াশিংটন ডিসির বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে পাঠানো এক চিঠিতে এ শুল্কারোপের বিষয়টি অবহিত করে এ বিষয়ে জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণের অনুরোধ জানানো হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ডব্লিউটিও সেলের মহাপরিচালক মো. হাফিজুর রহমান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘আর্জেন্টিনার এ নোটিসটি পর্যালোচনা করা হচ্ছে। নিয়মতন্ত্রিক উপায়ে আমরা তাদের অনুরোধ করব যাতে বাংলাদেশি পণ্যের ওপর অযৌক্তিক এ অ্যান্টি ডাম্পিং প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। না হলে ডব্লিউটিওতে আপিল করা হবে।’ কর্মকর্তারা জানান, দেশি কোনো পণ্য দেশে যে দামে বিক্রি হয় তার চেয়ে কম দামে যদি তা বিদেশ থেকে রপ্তানি হয় তাহলে দেশি শিল্পকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য যে শুল্ক আরোপ হয় তার নাম অ্যান্টি ডাম্পিং। আর্জেন্টিনা সন্দেহ করছে বাংলাদেশ তাদের দেশে কম দামে হ্যান্ডগ্লাভস রপ্তানি করছে। এতে তাদের দেশি শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানায়, শুধু আর্জেন্টিনা নয় তিন দশক ধরে ব্রাজিলও বাংলাদেশের একাধিক পণ্যের ওপর অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক আরোপ করে রেখেছে। এমনকি অতিরিক্ত শুল্কারোপের কারণে ওই দেশ দুটিতে বেশ কয়েক বছর ধরে হিমায়িত চিংড়ি ও পাটপণ্য রপ্তানি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। জানা গেছে, ১৯৯২ সাল থেকে ব্রাজিল বাংলাদেশে তৈরি পাটজাত পণ্যের (জুট ব্যাগ) ওপর অ্যান্টি ডাম্পিং আরোপ করলেও রপ্তানির পরিমাণ কম এ অজুহাতে সরকারিভাবে এ ব্যাপারে কোনো ধরনের প্রতিকারমূলক উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।

তবে এখন যখন এলডিসি থেকে উত্তরণের পর্যায়কাল পার করছে বাংলাদেশ, উপরন্তু ল্যাটিন আমেরিকার দেশগুলোয় নতুন বাজার তৈরির ওপর গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে সে সময় দেশ দুটির এ অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ক আরোপের বিষয়টিতে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর