শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৩৮

শসা-বেগুনের দাম বেড়েছে কয়েক গুণ

বাজার দর

নিজস্ব প্রতিবেদক

শসা-বেগুনের দাম বেড়েছে কয়েক গুণ
Google News

রমজান আসার আগেই বেশির ভাগ পণ্যের দাম নিয়ে ভোক্তাদের অভিযোগ ছিল। রমজানের তৃতীয় দিন গতকাল এই দাম আরও  বেড়েছে। রাজধানীর বাজারগুলোতে বেগুনের কেজি ১০০ টাকা ছাড়িয়েছে। চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে শসা, ঢ্যাঁড়শ, বরবটির কেজি। এগুলো ১০০ টাকার কাছাকাছি কেজিপ্রতি বিক্রি হতে দেখা গেছে। তবে কয়েক সপ্তাহের তুলনায় কমেছে ব্রয়লার মুরগির দাম। রাজধানীর কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন কাঁচাবাজারে ভিন্ন দামে বিক্রি হচ্ছে সবজি। রমজানের কারণে যেসব পণ্যের চাহিদা তুলনামূলক বাড়ে তার মধ্যে অন্যতম বেগুন, শসা, টমেটো। চাহিদা বৃদ্ধির সঙ্গে এসব পণ্যের দাম বেড়েছে কয়েকগুণ। সবজির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, মান ও বাজারভেদে  বেগুনের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১২০ টাকা। গত সপ্তাহে বেশির ভাগ বাজারে বেগুনের কেজি ৫০ টাকার মধ্যে বিক্রি হয়। অর্থাৎ, সপ্তাহের ব্যবধানে বেগুনের দাম বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। বড় গোল বেগুন কোথাও ১০০ টাকার নিচে বিক্রি হতে দেখা যায়নি। তবে ছোট বেগুনের দাম ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। পাকা টমেটো ও শসা গত সপ্তাহে ২৫ থেকে ৩৫ টাকা  কেজি বিক্রি হওয়া পাকা টমেটোর দাম ৪০ থেকে ৫০ টাকা হয়েছে। ২৫ থেকে ৩০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া শসার দাম বেড়ে ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহে ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া শজিনার দাম বেড়ে ৭০ থেকে ৮০ টাকা হয়েছে। দাম বাড়ার তালিকায় রয়েছে পটোল, বরবটি, শিম, ঢ্যাঁড়শসহ অন্যান্য সবজিও। পটোলের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০  থেকে ৭০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৫০ থেকে ৬০ টাকা। গত সপ্তাহে ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া বরবটির দাম  বেড়ে ৭০ থেকে ৮০ টাকা হয়েছে। ঢ্যাঁড়শের কেজিও বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৫০ থেকে ৬০ টাকা। ৪০ টাকা কেজিতে নেমে আসা শিমের কেজি আবার ৬০ টাকায় উঠেছে। ৪০ থেকে ৫০ টাকা পিস বিক্রি হওয়া লাউয়ের দাম  বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা। ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া ধুন্দুলের দাম বেড়ে ৬০ থেকে ৮০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। সবজির পাশাপাশি দাম বেড়েছে শাকের। বাজার থেকে এখন শাক এক আঁটি কিনতে ১৫ টাকা বা তার বেশি গুনতে হচ্ছে। পালংশাকের আঁটি বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। একই দামে বিক্রি হচ্ছে লালশাক, সবুজশাক, পাট ও কলমিশাক। পুঁইশাকের আঁটি বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। ব্রয়লার মুরগির দাম কমলেও পাকিস্তানি কক বা সোনালি মুরগি ও লাল লেয়ার মুরগির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। সোনালি মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৬০ থেকে ৩০০ টাকা। লাল লেয়ার মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২২০ টাকা কেজি।

 

এই বিভাগের আরও খবর