শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২২ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ জুন, ২০২১ ২৩:৩১

অষ্টম কলাম

নিরুদ্দেশের ছয় বছর পর বাড়ি ফিরলেন তৈয়ব আলী

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

Google News

নিরুদ্দেশের ছয় বছর পর হবিগঞ্জের তৈয়বের সন্ধান মিলেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় প্রায় ছয় বছর পর শনিবার তিনি নিজ বাড়িতে ফেরেন।

তৈয়ব আলীর বাড়ি হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার মুড়াকুড়ি গ্রামে। তবে তাঁর জন্মস্থান হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লোকরা ইউনিয়নের আশেরা গ্রাম। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার সিঙ্গারবিল ইউনিয়নের মেরাসানী গ্রামে শ্রমিকের কাজ করতেন। অসুস্থ হয়ে পড়ে থাকার পর স্বজনদের খোঁজ নিতে গিয়েই তাঁর বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায়।

তৈয়বের ভাতিজা আজগর আলী জানান, পাঁচ থেকে সাত বছর আগে থেকে তার চাচা নিরুদ্দেশ ছিলেন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে খবর পেয়ে শনিবার রাতে তৈয়ব আলীকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। তিনি              এখনো পুরোপুরি সুস্থ নন। তিনি আরও জানান, পেশায় রিকশাচালক তৈয়ব আলী চারটি বিয়ে করেন। দুই স্ত্রী মারা গেছেন। এরপর বিয়ে করলে তৃতীয় স্ত্রী তাকে তালাক দেন। চতুর্থ বিয়েও টেকেনি বেশি দিন। এরই মধ্যে তিনি ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন। একপর্যায়ে নিরুদ্দেশ হয়ে যান।

সিঙ্গারবিল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মনিরুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, তৈয়ব আলী দীর্ঘদিন মেরাসানী গ্রামে শ্রমিকের কাজ করতেন। থাকতেন রেলওয়ে স্টেশনের পরিত্যক্ত একটি কক্ষে। কয়েকদিন আগে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। বিষয়টি বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানালে তিনি ওই ব্যক্তির সঙ্গে থাকা জাতীয় পরিচয়পত্রের সূত্র ধরে স্বজনদের পরিচয় নিশ্চিত হন।

এই বিভাগের আরও খবর