শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ জুলাই, ২০২১ ১১:১৩
প্রিন্ট করুন printer

ছিলেন পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত, অতঃপর নেশা কাটাতে যা করে কোটিপতি বনে গেলেন যুবক!

অনলাইন ডেস্ক

ছিলেন পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত, অতঃপর নেশা কাটাতে যা করে কোটিপতি বনে গেলেন যুবক!
জ্যাক জেনকিনস
Google News

পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত ছিলেন এক যুবক। সেই যুবকই এমন কাজ করলেন, যা এখন সকলের প্রশংসা পাচ্ছে। পর্ন দেখার অভ্যাস ছাড়াতে ওই যুবক তার সংগ্রামের অভিজ্ঞতা নিয়ে একটি অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করলেন, যা এখন পর্ন আসক্তদের ৯০ দিনের মধ্যে এই খারাপ নেশা থেকে লোকদের মুক্তি দিতে পারে।

জ্যাক জেনকিনস নামের ওই যুবক নিজে পর্ন দেখার প্রতি খারাপ আসক্ত ছিলেন। যার কারণে তিনি কোনও কাজে মন লাগাতে পারছিলেন না। তবে জেনকিনস নিজে এই নেশা ছাড়ার বিষয়ে শপথ করেছিলেন।

জ্যাক তার অতীত সম্পর্কে বলেন, “এই আসক্তিটি আমার জীবনকে কেবল নষ্ট করছিল তাই না, এটি একটি বদ অভ্যাস ছিল যা আমাকে আমার সেরা কাজ থেকে বিরত রাখছিল। এটি একটি নিষিদ্ধ বিষয়। আমি অশ্লীলতা হিসেবে দেখি না- বিষয়টিকে। বরং এটিকে ‘আমি ধূমপান করি না’ বলার মতো স্বীকার্য বিষয় বানাতে চাই।”

নিজেই এই আসক্তি থেকে দূরে সরে যাওয়ার পরে জেনকিনস একটি অ্যাপ তৈরির করেন, যা লোকদের পর্ন আসক্তি থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করে। জ্যাক জেনকিনস ‘গুডকুইট পর্ন ফর গুড’ নামে একটি অ্যাপ তৈরি করেছেন, যা এই জাতীয় লোকদের ৯০ দিনের মধ্যে পর্ন আসক্তি থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করে।

এটিতে টেকনোলজি এবং মানবিক সহায়তা উভয়ের সমন্বয় রয়েছে, যাতে যেকোনও ব্যক্তি এই আসক্তি থেকে মুক্তি পেতে পারেন। এই জেনকিনস অ্যাপটি ১ লাখেরও বেশি বার ডাউনলোড করা হয়েছে।

ডারহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির ছাত্র ৩১ বছরের জ্যাকের নিজের “খারাপ অভ্যাস” থেকে মুক্তি পাওয়ার পর ২০১৯ সালে এই আইডিয়া মাথায় আসে। এখন পর্যন্ত বিনিয়োগকারীরা তার অ্যাপ্লিকেশনটিতে ৯,২০,০০০ ইউরো অর্থাৎ প্রায় ৪ কোটি টাকা  বিনিয়োগ করেছে এবং এখন এটি লোকেরা ভীষণভাবে ব্যবহার করছে।

এই অ্যাপে পর্ন সাইটগুলোতে অ্যাক্সেস আটকাতে একটি “লক ফোন” ফাংশন রয়েছে, যা এই জাতীয় মানসিক অবস্থার মানুষকে সাহায্য করে। এই ক্ষেত্রে, ইউকে রিহ্যাব নামে একটি সংগঠন বলেছে যে তারা যখন এই জাতীয় মামলাগুলো তদন্ত করে, তখন কখনও কখনও ১৩ বছরের শিশুদেরও এর শিকার হতে দেখা যায়। সূত্র: মিরর অনলাইন

বিডি প্রতিদিন/কালাম

এই বিভাগের আরও খবর