শিরোনাম
প্রকাশ : ৪ জানুয়ারি, ২০২১ ১২:৩৯
আপডেট : ৪ জানুয়ারি, ২০২১ ১২:৪২
প্রিন্ট করুন printer

টাঙ্গাইল পৌর নির্বাচন; মনোনয়ন যুদ্ধই যেন বড় যুদ্ধ নৌকার প্রার্থীদের

মো. নাসির উদ্দিন, টাঙ্গাইল:

টাঙ্গাইল পৌর নির্বাচন; মনোনয়ন যুদ্ধই যেন বড় যুদ্ধ নৌকার প্রার্থীদের

নৌকার টিকিট কাটতে পারলেই পৌর পিতা! এমনটাই ধরে নিয়ে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন যুদ্ধ জয় করাই ছিল প্রার্থীদের মূল নির্বাচন। সেই মনোনয়ন যুদ্ধ শেষ করে নৌকার টিকিট হাতে নিয়ে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাওয়ার প্রস্ততি নিচ্ছেন প্রার্থীরা। 

আগামী ১১ জানুয়ারী প্রতিক পাওয়ার পরই শুরু হবে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা। আওয়ামী লীগের উচ্চ পর্যায় থেকে শুরু করে দলীয় নেতাকর্মীদের টার্গেট পৌর নির্বাচনে বরাবরের মতো এবারও মেয়র পদটি ধরে রাখতে হবে। অনেকেই মনোনয়ন চাইলেও বঞ্চিতরা কেউই বিদ্রোহী প্রার্থী হননি। এটি আওয়ামী লীগের জন্য একটি সুখবরই। অপরদিকে বিরোধী দল জাতীয় পার্টির কোন প্রার্থী না দেখা গেলেও বিএনপি প্রার্থীরা মাঠে সক্রিয়ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তাদের দাবি ভোট সুষ্ঠু হলে তারা নির্বাচিত হবেন।

পৌরসভার নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে আগামী ৩০ জানুয়ারি টাঙ্গাইলে ৫টি পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠত হবে। পৌরসভাগুলো হলো- টাঙ্গাইল, মির্জাপুর, মধুপুর, ভূঞাপুর ও সখীপুর। ৫টি পৌরসভায় মেয়র ১৫ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৩৫ জন, ৫৪টি ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৮০ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। 

টাঙ্গাইল পৌরসভা: 
১৮টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত টাঙ্গাইল পৌরসভায় এবারের পৌরসভা নির্বাচনে ৩ জন মেয়র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত সিরাজুল হক আলমগীর, বিএনপি মনোনীত মাহমুদুল হক সানু ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত মো. আব্দুল কাদের। এছাড়া এই পৌরসভার ১৮টি ওয়ার্ডে ৩৪ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ১০০ জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই পৌরসভায় মোট ভোটার ১ লক্ষ ২৪ হাজার ৪২৫ জন। এর মধ্যে ৬০ হাজার ৩৩৪ জন পুরুষ ও ৬৪ হাজার ৯১ জন মহিলা ভোটার।

মির্জাপুর পৌরসভা: 
মির্জাপুর পৌরসভায় রয়েছে ৯টি ওয়ার্ড। এই পৌরসভা নির্বাচনে ৩ জন মেয়র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত সালমা আক্তার, বিএনপি মনোনীত মো. শফিকুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. শহিদুর রহমান। এছাড়া এই পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১১ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৩০ জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পৌরসভার মোট ভোটার ২১ হাজার ৬৬৯ জন। এর মধ্যে ১০ হাজার ১৯১ জন পুরুষ ও ১১ হাজার ৪৭৮ জন মহিলা ভোটার।

ভূঞাপুর পৌরসভা:
এ পৌরসভায় রয়েছে ৯টি ওয়ার্ড। এই পৌরসভা নির্বাচনে ৪ জন মেয়র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. মাসুদুল হক মাসুদ, বিএনপি মনোনীত মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। এই পৌরসভায় মেয়র পদে ২ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হলো, মো. আমিরুল ইসলাম তালুকদার ও মো. আব্দুল সাত্তার। এছাড়া এই পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১১ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৩৩ জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পৌরসভার মোট ভোটার ২১ হাজার ৭২৯ জন। এর মধ্যে ১০ হাজার ৭৮৯ জন পুরুষ ও ১০ হাজার ৯৪০ জন মহিলা ভোটার।

মধুপুর পৌরসভা:
৯টি ওয়ার্ড নিয়ে মধুপুর পৌরসভা গঠিত। এই পৌরসভা নির্বাচনে ২ জন মেয়র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. সিদ্দীক হোসেন ও বিএনপি মনোনীত মো. আ. লতিফ পান্না। এছাড়া এই পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১৪ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৪১ জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।  পৌরসভার মোট ভোটার ৪১ হাজার ৯৩৯ জন। এর মধ্যে ২০ হাজার ৭৫২ জন পুরুষ ও ২১ হাজার ১৮৭ জন মহিলা ভোটার।

সখীপুর পৌরসভা:
৯টি ওয়ার্ড নিয়ে সখীপুর পৌরসভা গঠিত। এই পৌরসভা নির্বাচনে ৩ জন মেয়র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আবু হানিফ আজাদ, বিএনপি মনোনীত মো. নাছির উদ্দিন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. সানোয়ার হোসেন সজীব। এছাড়া এই পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১০ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৩১ জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। পৌরসভার মোট ভোটার ২২ হাজার ৩৩৭ জন। এর মধ্যে ১০ হাজার ৭৬২ জন পুরুষ ও ১১ হাজার ৫৭৫ জন মহিলা ভোটার।

জেলা সিনিয়র নির্বাচন ও রিটার্নিং কর্মকর্তা এএইচএম কামরুল হাসান জানিয়েছেন ইতিমধ্যে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে এই বৈধ প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। আগামী ১১ জানুয়ারী প্রতিক বরাদ্দ করা হবে। এবং আগামী ৩০ জানুয়ারী ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর