শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:৪৩
প্রিন্ট করুন printer

হাকিমপুরের অলিগলি ছেয়ে গেছে পোস্টারে

দিনাজপুর প্রতিনিধি

হাকিমপুরের 
অলিগলি
 ছেয়ে গেছে পোস্টারে

ঘনকুয়াশা, আর হিমেল হাওয়ায় কনকনে শীতকে উপেক্ষা করে তৃতীয় ধাপে দিনাজপুরের সীমান্তবর্তী হাকিমপুর পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা তুঙ্গে উঠছে। কনকনে শীত আর করোনাকে পিছনে ফেলে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে প্রার্থীরা ভোট প্রার্থনা করছেন। দিচ্ছেন এলাকার উন্নয়নে নানা প্রতিশ্রুতিও। 

ইতিমধ্যেই প্রার্থীদের প্রতীক সংবলিত ব্যানার-পোস্টারে ছেয়ে গেছে পৌর এলাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থানসহ রাস্তা-ঘাট অলি-গলি। হাট-বাজার, চায়ের দোকান, পাড়া-মহল্লা, বিভিন্ন অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ সর্বত্র চলছে নির্বাচনী আমেজ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও চালাচ্ছেন সরব প্রচারণা। উৎসবমুখর ও সরগরম পরিবেশে ভোটাররা প্রার্থীদের নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণও।  

ভোটাররা বলছেন, বর্তমান মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত ও সাবেক ২ বারের মেয়র সাখাওয়াত হোসেন শিল্পীর মধ্যে প্রতিদ্ব›িদ্বতা হবে হাড্ডাহাড্ডি। তবে স্বতন্ত্র প্রার্থীও অনেক দূর এগিয়েছে। 
১৯৯৯ সালে গঠিত হয় হাকিমপুর পৌরসভা। হিলি স্থলবন্দরও এখানে অবস্থিত। আগামী ৩০ জানুয়ারি ব্যালটের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে এই পৌরসভার নির্বাচন। 

নির্বাচনে মেয়র পদে ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। এরা হলেন আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনীত জামিল হোসেন চলন্ত (নৌকা), বিএনপি দলীয় মনোনীত সাখাওয়াত হোসেন শিল্পী (ধানের শীষ), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত সুরুজ আলী শেখ (হাতপাখা) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মিশর উদ্দীন সুজন (নারিকেল গাছ)।

একদিকে নৌকা প্রতীক নিয়ে জামিল হোসেন চলন্ত ক্ষমতা ধরে রাখার আপ্রাণ চেষ্টা অপরদিকে সাখাওয়াত হোসেন শিল্পী ধানের শীষ নিয়ে পুনরায় বিজয় ছিনিয়ে আনার জন্য মরিয়া। 

বর্তমান মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত এবারও নৌকা প্রতীক নিয়ে দ্বিতীয়বার নির্বাচন করছেন। অন্যদিকে থেমে নেই বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন শিল্পীও। তিনি গত ২ বার হাকিমপুর পৌরসভার মেয়র ছিলেন। 

নির্বাচনী মাঠে নৌকা এবং ধানের শীষ দাপিয়ে বেড়ালেও তেমনটি দৃশ্যমান নয় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সুরুজ আলী শেখের (হাতপাখা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিশর উদ্দীন সুজনের (নারিকেল গাছ)। অনেকটা নিরবে চালাচ্ছে তাদের প্রচারণা। চলছে তাদের প্রচার মাইকিং আর মাঝে মধ্যে কিছু স্থানে দেখা যাচ্ছে ব্যানার-পোস্টারসহ লিফলেট বিতরণ।

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর