Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:০৮
আপডেট : ২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:৫৬

তারেক রহমানকে উত্তরাধিকার করে খালেদা জিয়া ভুল করেছেন

'আপনি যদি প্যারোল চান তাহলে শেখ হাসিনা জামিন দিতে চাইবেন'

অনলাইন ডেস্ক

'আপনি যদি প্যারোল চান তাহলে শেখ হাসিনা জামিন দিতে চাইবেন'
নূরে আলম সিদ্দিকী

প্যারোলে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গে নূরে আলম সিদ্দিকী বলেছেন, উনাকে নিঃশর্ত মুক্তি দেয়া হোক। বিএনপির দৃষ্টিকোণ থেকে আন্দোলনটা এভাবে আসা উচিত। চাইতে হবে নিঃশর্ত মুক্তি। সরকার অনুনয়, বিনয় করে এসে বলবে, 'নিঃশর্তটা ছেড়ে, উনাকে প্যারোলে মুক্তি দিই।' কিন্তু আপনি যদি প্যারোল চেয়ে বসেন তাহলে তো শেখ হাসিনা জামিন দিতে চাইবেন। চ্যানেল আইয়ের তৃতীয় মাত্রা অনুষ্ঠানে  নূরে আলম সিদ্দিকী এসব কথা বলেন।

নূরে আলম সিদ্দিকী আরও বলেন, ২০১৪ সালে জাতীয় নির্বাচন বয়কট করে বিএনপি মহাভুল করেছে। বয়কট করাটা কিছুটা সমর্থন করা যেত, যুক্তিসঙ্গত ভাবা যেত, যদি বিএনপি দেশব্যাপী একটি সম্যক আন্দোলন সৃষ্টি করতে পারতো। কার্যকরী আন্দোলন সৃষ্টি করতে পারতো। কেন জানি না, খালেদা জিয়া, ২০১৪ সালের পর থেকে নির্জীব, নিস্পৃহ, নিস্তব্ধ হয়ে যাবেন। রাজনীতিতে মনে হয় উনি একজন বিকলাঙ্গ মহিমা, মনে হয় মেরদণ্ডহীন ও স্থবির মহিমা। ১৯৯৬ সালের নির্বাচনটা হিসেবে আনলে তিনি তিনবারের প্রধানমন্ত্রী, তিনি হঠাৎ করে এইভাবে নিস্পৃহ হয়ে গেলেন কেন? নিষ্ক্রিয় হয়ে যাবেন কেন? স্তিমিত হয়ে যাবেন কেন? যদি এটা বয়সজনিত কারণে হয়, তাহলে তার উত্তরাধিকার তৈরি করা উচিত ছিল। তারেক রহমানকে উত্তরাধিকারী হিসেবে দাঁড় করিয়ে খালেদা জিয়া বড় একটি ভুল করেছেন। তারেক রহমান বাংলাদেশের আইনের দৃষ্টিতে তো বটেই মানুষের দৃষ্টিতেও দুর্নীতিপরায়ণ। আর উনি যদি দলের কাণ্ডারিই হন তাহলে তার অনতিবিলম্বে দেশে ফিরে আসা উচিত। আমি জানি বিমানবন্দর থেকেই তাকে গ্রেফতার করা হবে। কিন্তু রাজনীতি করতে হলে ত্যাগ করতে হবে। 

সংসদে বিএনপির যাওয়া নিয়ে তিনি বলেন, সংসদে তাদের উচিত। গতবার উনারা নির্বাচনে গেলেন না। এবার নির্বাচনে গিয়ে অল্প কয়টা সিট পেলেন, তারপরও উনারা শপথ নিচ্ছেন না। তর্কের খাতিরে ধরে নেন, উনারা শপথ নেবেন না। এভাবেই কোনো রকমে ঘষামাঝা করতে করতে আরেকটা নির্বাচন এসে গেল, তখন বিএনপি কোন মুখে নির্বাচন করতে যাবে? জনগণ বলবে ভাই, আপনাদের ভোট দিয়ে লাভ কী, আপনারা নির্বাচিত হয়ে তো শপথই নেন না। সংসদে যান, কথা বলেন, ওয়াকআউট করেন। নির্বাচন অবশ্যই প্রশ্নবিদ্ধ। এই প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচনের মধ্য দিয়েই তো আপনারা নির্বাচিত হয়ে আসছেন। নির্বাচন কারচুপির সব অভিযোগ সত্য। সংসদে গিয়ে শপথ করে এ কথাগুলো তারস্বরে বলেন। সময় না দিলে ওয়াকআউট করেন। বের হয়ে যান, আবার আসেন। যাতে তারা চিন্তা করে কী করে আপনাদের ঢুকতে না দেয়া যায়। আপনারা এমনিতেই তাদের জন্য অবারিত দ্বার ছেড়ে দিয়েছেন।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য