শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২২:২৯
আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২২:৫৫

প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক ড. সেলিম উদ্দিন

ব্যবসা-বাণিজ্যে করোনার প্রভাব শীর্ষক ভার্চুয়াল সেমিনার অনুষ্ঠিত

অনলাইন ডেস্ক

ব্যবসা-বাণিজ্যে করোনার প্রভাব শীর্ষক ভার্চুয়াল সেমিনার অনুষ্ঠিত

‘‘ইমপ্যাক্ট অব কোভিড-১৯ অন বিজনেস: দি বাংলাদেশ পারসপেক্টিভ’’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আলোচক হিসেবে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশন (বিএইচবিএফসি) এর চেয়ারম্যান, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড-আইবিবিএল এর নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যায়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সেলিম উদ্দিন।

সম্প্রতি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যুরো অব বিজনেস রিসার্চ এই ভার্চুয়াল সেমিনারের আয়োজন করে।

ড. সেলিম তার উপস্থাপনায় বিশ্বব্যাপী এবং বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্যে কোভিড-১৯ এর প্রভাব সম্পর্কে বিস্তারিত এবং বিশদ আলোচনা করেছেন। তিনি কোভিড-১৯ এর কারণে বিরাজমান এক অসাধারণ ও অস্বাভাবিক বৈশ্বিক পরিস্থিতির উদ্ভভ সম্পর্কে, বিশ্বব্যাপী মহামারি সংকট এবং এর প্রত্যাশিত সংকটের সময়কালে অর্থনীতি ও ব্যবসায়ের উপর এর সম্ভাব্য প্রভাব সম্পর্কে আলোকপাত করেন। তিনি কোভিড-১৯ এর কারণে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে অর্থনৈতিক বাধাগুলোর সাথে সামঞ্জস্য এবং ব্যবসায়ে এর প্রভাবের পরিমাণকে বোঝার জন্য সংকট কতদিন স্থায়ী হবে সে সম্পর্কেও মনোনিবেশ করেন।

এ প্রসঙ্গে ড. সেলিম ব্যবসা-বাণিজ্যের উপর কোভিড-১৯ এর বিভিন্ন প্রভাব সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

যেমন: ১) VUCA World and D VUCA D World-এর ধারণাকে কেন্দ্র বিন্দুতে রেখে বর্তমান অস্বাভাবিক অবস্থায় আলোচনার সূত্রাপাত করেন, যেখানে V মানে Volatile, U মানে Uncertain, C মানে Complex, A মানে Ambiguous, D মানে disruption and Diversity যার মাধ্যমে ব্যবসায়িক সুযোগ-সুবিধা ও ঝুঁকি সম্পর্কে জানা যায়; ২) বিগত বিশ্বব্যাপী সংকটের অভিজ্ঞতা থেকে কোভিড-১৯ এর কারণে মন্দার সময়কাল, এর পুনরুদ্ধার ও ব্যবসায়ের উপর এর প্রভাব ০৪টি কমন ইংরেজী কেপিটাল লেটার V, U, W and L এর মাধ্যমে ব্যাখ্যা করেছেন; ৩) সাম্প্রতিক K আকার সম্পর্কে উত্থান ও পুনরুদ্ধার; ৪) জুন ও সেপ্টেম্বর/২০২০ মাসে বৈশ্বিক অর্থনৈতিক হালনাগাদ অবস্থা ও এর প্রভাব; ৫) কোভিড-১৯ এর প্রভাবের কারণসমূহ সম্পর্কে আলোকপাত করেন; ৬) ব্যবসায়ের উপর বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ এর প্রভাব; ৭) কোভিড-১৯ এর ফলে বিক্রয় ও ব্যবসায়িক চ্যালেঞ্জসমূহ; ৮)বাংলাদেশে খাতওয়ারী প্রভাব যেমন: টিএলজিএফ (টেক্সটাইল, লেদার, গার্মেন্টস ও ফুটওয়্যার), পর্যটন, ফার্মাসিউটিক্যালস, আমদানি-রপ্তানি ব্যবসা, এসএমই এবং স্ট্যার্টআপ ব্যবসা ইত্যাদি এবং ৯) ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে বিভিন্ন চ্যালেঞ্জসমূহ ও বিভিন্ন গবেষণার অনুসন্ধানগুলো আলোচনা করেছেন।

তিনি কোভিড-১৯ মহামারি থেকে কিছু মূলবার্তা/লেসেন এবং কিছু বিশ্বাস তুলে ধরেছেন যেমন: আমাদের পরবর্তী নিউনরমালের জন্য ভাবতে হবে; প্রতিক্রিয়ার পরিবর্তে কাজে মনোনিবেশ; পুরাতন উপায়গুলো পুনরায় ফিরে আসবে এমন ধারণা পরিহারকরণ; ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে কোভিড-১৯ পুনরুদ্ধার; পরবর্তী নিউনরমাল দৃঢ়ভাবে উদ্ভূত করার জন্য সিদ্ধান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ; বিভিন্ন সংস্থার ডিজিটাল দক্ষতা ত্বরান্বিতকরণ; গ্রাহকের প্রত্যাশা পরিবর্তনের দিকে ডিজিটাল উদ্যোগে পুনরায় মনোনিবেশ; ব্যবসায়িক কার্যক্রম উন্নত করতে নতুন তথ্য ও কৃত্রিমবুদ্ধির ব্যবহার; কোভিড-১৯ পরবর্তী যুগে গতির জন্য সংস্থাকে পুনর্গঠন; কোভিড-১৯ পরবর্তী যুগে বিকাশের জন্য একটি রোড ম্যাপ তৈরি করা; চারটি বিশেষ ক্ষেত্রের দিকে বিশেষভাবে মনোনিবেশ যেমন: বিক্রয় পুনরুদ্ধার, কার্যক্রম পুনর্নিমাণ, সংস্থার কাজের পুনর্বিবেচনা ও ডিজিটাল সমাধান গ্রহণ ইত্যাদি ত্বরান্বিত করা; ২০২১ সালের প্রথম দিকে বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ মাহামারি দ্বিতীয় প্রভাব এর কথা স্মরণ রাখা; আত্মবিশ্বাস হবে পুনরুদ্ধারের মূলমন্ত্র; অনিশ্চয়তার মধ্যে বসবাস; যুগোপযোগী প্রার্থক্য করা এবং সর্বশেষ একটি অনিশ্চিত পুনরুদ্ধারের কথা বিবেচনায় রাখা।

সমাপনী বক্তব্যে ড. সেলিম বলেন, বিগত ছয় মাসে ব্যবসায়ী সংস্থাগুলোর সাপ্লাই চেইন পুনর্গঠন করেছে, দূরবর্তী কার্যক্রম স্থাপন করেছে এবং কঠোর আর্থিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে শুধুমাত্র একটি কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ছাড়া ব্যবসাগুলোকে খুব বেশি আলাদা মনে হয় না। এক্ষেত্রে, সারাবিশ্ব উদ্বেগজনকভাবে একটি কার্যকর কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন এর জন্য অপেক্ষা করছে, যা সহজেই বিতরণ করা যাবে। ততক্ষণ পর্যন্ত প্রতিক্রিয়া না করে কাজ করার মাধ্যমে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সংস্থাগুলোকে পুনরায় সংহত করতে হবে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস রিসার্চ ব্যুরোর চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোয়াজ্জেম হোসেনের সভাপতিত্বে ওয়েবিনারে ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালক ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইনান্স বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সালেহ জহুর প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক হেলাল উদ্দিন নিজামী আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রিত হয়েছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীন আক্তার। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স বিভাগের অধ্যাপক এবং বিজনেস রিসার্চ ব্যুরোর পরিচালক ড. এস এম সোহরাব উদ্দিন অধিবেশনটি পরিচালনা করেছেন। ওয়েবিনারে বিভিন্ন অনুষদের সদস্য ও গবেষণা শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর