শিরোনাম
প্রকাশ : ২৯ মে, ২০২০ ১৩:৩৩
আপডেট : ২৯ মে, ২০২০ ১৩:৪১

করোনার সঙ্গে বসবাস!

আহমেদ আল আমীন

করোনার সঙ্গে বসবাস!
আহমেদ আল আমীন

সময় এখন করোনার। করোনাকাল। এই সময়ে নিজের অজান্তেই আমরা করোনার সঙ্গে বসবাস শুরু করে দিয়েছি। ভাইরাসকে সঙ্গে নিয়ে জীবনযাপনে অভ্যস্ত হয়ে গেছি প্রায়। ঘরে কিংবা বাইরে এখন করোনার সঙ্গে চলে আমাদের দৈনন্দিন জীবন ও কর্ম। 

রাস্তাঘাটে, শপিং মলে ও ফেরিঘাটে ওৎ পেতে আছে করোনা। দোকানপাটে, রিকশার প্যাডেলে ও সবজির ভ্যানে ভাইরাস। ফুটপাতে, বাসে ও গাড়িতে। মসজিদে-মন্দিরে। এমনকি হাসপাতালেও আছে ভাইরাস। কোথায় নেই করোনা! 

বাসার নিচে কলাপসিবল গেটে, তালার সঙ্গে চাবিতে, লিফটের বাটনে, দরজার হাতলে, বাজারের ব্যাগে, কম্পিউটার ও মোবাইলে করোনা। ঠান্ডা ফ্রিজে, ইলেকট্রিক সুইচ বোর্ডে, বাথরুমে পানির ট্যাবে-বেসিনে, শার্টে, প্যান্টের পকেটে, বালিশে বিছানার চাদরে। কোথাও কি বাদ পড়েছে? তবে সেখানেও আছে করোনা! 

এই যেমন আমাদের হাতের নখে, কাশিতে, সর্দিতে, নাকের হাঁচিতে, আর দুই হাতের নাগালে। স্যান্ডেলের ফিতায়, জুতার নিচে। লাশবাহী খাঁটিয়াতে। ঘরের বাইরে যারে পাই, ধরে নিই তিনি করোনা পজেটিভ! বাইরে যাই, যেতে হয়, কর্ম ও জীবনের প্রয়োজনে। বাজারে কিংবা অফিসে যাই; আর সঙ্গে নিয়ে যাই কতিপয় ভাইরাস। পকেটে নিয়ে নিত্য ঘুরি দুচারটে করোনা! কিংবা একমুঠো করোনা!

এটা-ওটা ধরি, নাড়াচাড়া করি, দোকানে কিংবা সবজির ভ্যানে কিছু রেখে আসি। সদাই করি, কর্ম শেষে ঘরে ফিরি; সঙ্গে নিয়ে আসি কিছু করোনা। করোনার পুরনো ভার্সন দিয়ে আসি, আপডেট ভার্সন নিয়ে আসি। আপডেট ভার্সন দিয়ে, পুরনো ভার্সন নিয়ে আসি। নিজের অজান্তেই চলে এই করোনা বিনিময়। এরপর আমরা বাসায় গিয়ে, ঘরে ঘরে ছড়িয়ে দেই জনে জনে।  

তাই মাঝে মাঝে মনে হয়, আমি বেঁচে আছি কিনা? অথবা এই যে বেঁচে আছি সেটাই বুঝি মিরাকল। এখনো যে বেঁচে আছি তবে তা করোনারই করুণায়! 

করোনায় আমাদের পথচলা থামে না। করোনাকালে ভাইরাসের সঙ্গে আমরা বসবাস করছি, করতে হচ্ছে। করোনার সঙ্গে খাপ খাইয়ে, সময়ের সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছি নিজেকে। আমরা তো জীবনে কত শত্রুর সঙ্গেও খাপ খাইয়ে চলি। বাড়ির পাশে, বন্ধু বেশে, আমাদের চারপাশে, কত শত্রুই তো থাকে। আমাদের তেমনই অপ্রতিরোধ্য এক অপরিহার্য শত্রু হয়ে দেখা দিয়েছে করোনা। 

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর