শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০৭

নাঈমের ব্যাটে তান্ডব তবু হার রংপুরের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

নাঈমের ব্যাটে তান্ডব তবু হার রংপুরের
৫৪ বলে ৭৮ রান করেন মোহাম্মদ নাঈম -রোহেত রাজীব

শোকস্তব্ধ মিরপুরের প্রেসবক্স। প্রিয় সতীর্থ দীপায়ন অর্ণবের অকালমৃত্যু কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছিলেন না ক্রীড়া সাংবাদিকরা। অর্ণবের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ও রংপুর রেঞ্জার্সের ম্যাচের ফাঁকে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন ক্রীড়া সাংবাদিকরা। অর্ণবের শোকস্তব্ধ ম্যাচে রংপুর পাত্তাই পায়নি চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের কাছে। দল হারলেও ম্যাচে আলো ছড়িয়েছেন ২০ বছরের তরুণ নাঈম। বঙ্গবন্ধু বিপিএলের গতকাল ঢাকা পর্বের শেষ দিনে চার-ছক্কার ফুলঝুরি ছুটিয়ে খেলেছেন ৭৮ রানের নান্দনিক এক ইনিংস। তার পরও ম্যাচ জিততে পারেনি রংপুর। হেরেছে ৬ উইকেটের বড় ব্যবধানে। টানা দুই হারে এখন তলানিতে রংপুর। বিপরীতে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ফিরে আসার ম্যাচটিতে চট্টগ্রাম জিতেছে এবং এটি আসরে তিন ম্যাচে দ্বিতীয় জয়।

হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির জন্য প্রথম দুই ম্যাচ খেলেননি চ্যালেঞ্জার্স অধিনায়ক। কাল খেলতে নেমে ৪ ওভারে ১৭ রানে ১ উইকেট নেন। ব্যাট হাতে করেন ১৫ রান। ১৫৮ রানের টার্গেটে ধুন্ধুমার ব্যাটিং করেন চট্টগ্রামের ওপেনার চ্যাডউইকট ওয়ালটন। ৫০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন মাত্র ৩৪ বলে চার ৪ ও ৩ ছক্কায়। প্রথম ম্যাচে চট্টগ্রামকে জেতানোর নায়ক ইমরুল কায়েস গতকালও দারুণ ব্যাটিং করেন। ৪৪ রানের হার না মানা ইনিংস খেলে দলকে আসরে দ্বিতীয় জয় উপহার দেন। ৩৩ বলের ইনিংসটিতে ছিল তিনটি ৪ ও দুটি ছক্কা। ওপেনার আবিষ্কার গুণাবর্ধনেও আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করে রান করেন ৩৭। তবে আগের ম্যাচের মতো গতকালও নিষ্প্রভ ছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ৪ ওভারে রান দেন ৩৭। এর মধ্যে শেষ ওভারেই দেন ২৬ রান!

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে রংপুর চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে হারায় আফগান ক্রিকেটার মোহাম্মদ শেহজাদকে। সতীর্থের বিদায়ের পর তরুণ মোহাম্মদ নাঈম খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসেন। নাঈম প্রথম থেকে প্রতিপক্ষের বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে খেলতে থাকেন। ৫৪ বলে ৭৮ রানের ম্যাচসেরা ইনিংসটিতে ছক্কা মারেন ৩টি এবং ৪ হাঁকান ৬টি। ৩ ছক্কার প্রথমটি মারেন অফ স্পিনার মেহেদি হাসান রানাকে ইনিংসের তৃতীয় ওভারের চতুর্থ বলে। রুবেলের ওভারে মারেন দ্বিতীয় ছক্কা। ইনিংসে পঞ্চম ওভারের তৃতীয় বলে ফ্লিক করে মাঠের বাইরে মারেন বল। নাসিরের বলে হাঁকান তৃতীয় ছক্কা। চট্টগ্রাম প্রথম ম্যাচে হারিয়েছিল সিলেট থান্ডারকে। দ্বিতীয় ম্যাচে হেরেছিল রাজশাহী রয়্যালসের কাছে। গতকাল হারায় রংপুর রেঞ্জার্সকে। রংপুর নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেরেছিল কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের কাছে।

চতুর্থ দিনের শেষ ম্যাচে মাশরাফি বিন মর্তুজার ঢাকা প্লাটুন ২৪ রানে হারিয়েছে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের সিলেট থান্ডারকে। আসরে তিন ম্যাচে ঢাকার এটা দ্বিতীয় জয় এবং সিলেটের টানা তৃতীয় হার। বিজয় (৬২) ও তামিমের (৩১) ব্যাটিংয়ে ঢাকা ১৮২ রান করে। ১৮৩ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে সিলেট থেমে যায় ৭ উইকেটে ১৫৮ রানে।


আপনার মন্তব্য

close