শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ এপ্রিল, ২০২০ ০০:২১

খেলা নেই তবু ব্যস্ত জেমি ডে

ক্রীড়া প্রতিবেদক

খেলা নেই তবু ব্যস্ত জেমি ডে
খেলা নেই। কিন্তু এই সময়টাও কাজে লাগাচ্ছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ জেমি ডে। লন্ডনে বসেই তিনি আশরাফুল, জীবন, সাদ ও ইয়াসিনদের হোয়াটস অ্যাপে নির্দেশনা দিচ্ছেন

২৬ মার্চ সিলেটে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসে সেই ম্যাচ বাতিল হয়ে গেছে। শুধু সিলেট নয়, বাছাই পর্বের সব ম্যাচই অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করা হয়েছে। পেশাদার লিগও বন্ধ। সুতরাং অযথা কাজ ছাড়া ঢাকায় বসে থাকবেন কেন জাতীয় দলের ইংলিশ কোচ জেমি ডে? মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহেই তিনি দেশে ফিরে গেছেন। লিগ না থাকায় ফুটবলারাও ছুটি কাটাচ্ছেন। এ সময় কোচ কিংবা শিষ্যদের অলস সময় কাটানোর কথা। কিন্তু পেশাদারিত্বের যুগে ইংলিশ কোচ কি তা পারেন। লন্ডনে বসেই তিনি আশরাফুল, জীবন, সাদ ও ইয়াসিনদের হোয়াটস অ্যাপে নির্দেশনা দিচ্ছেন।

গতকাল বাফুফে সহ-সভাপতি ও জাতীয় দলের ম্যানেজমেন্ট কমিটির ডেপুটি চেয়ারম্যান তাবিথ আউয়াল বললেন, হোয়াটস অ্যাপের ৪৩ সদস্যের গ্রুপ করা হয়েছে। সেখানে আমিও আছি। দীর্ঘদিন খেলা না থাকলে খেলোয়াড়দের আবার ওজন বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সত্যি বলতে কী বাংলাদেশের ফুটবলারদের বেলায় তা বেশি হয়।

তাবিথ বলেন কোচ জেমি ডে এই ভয়াবহ অবস্থায় শিষ্যদের প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। তবে সবাই হোয়াটস অ্যাপের মাধ্যমে প্রতি সপ্তাহে ওজন ও শরীরের চর্বির পরিমাণ জানাতে বলেছে। সে অনুযায়ী পরবর্তী নির্দেশনা দেওয়া হবে। জেমি ও ফিজিও মিলে খেলোয়াড়দের খাদ্য তালিকা তৈরি করে দিয়েছেন। এত বড় ছুটি কখনো পায়নি। তাই মজাদার খাবার খাওয়াটা স্বাভাবিক। কিন্তু যা খেলে ওজন ও চর্বি বাড়ে তা থেকে দূরে থাকতে বলা হয়েছে। তাবিথ জানালেন, কোচ পুরো বিষয়টি ভিডিওতে পর্যবেক্ষণ করছেন। আমাদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত তার যোগাযাগ রয়েছে। তাবিথ বলেন, কোচের এ নির্দেশনা প্রতিটি খেলোয়াড়ের মেনে চলা উচিত। এতে করে তাদের ফিটনেস ঠিক থাকবে।


আপনার মন্তব্য