প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:৪৮

না ফেরার দেশে রাইসউদ্দিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক

না ফেরার দেশে রাইসউদ্দিন

বিসিবি এখন বিশ্বের অন্যতম ধনী ক্রিকেট বোর্ড। অথচ এক সময় কোষাগার ছিল শূন্য। ক্রিকেটের কার্যক্রম চালিয়ে নিতে মোমবাতি জ্বালিয়ে কাজ করতে হয়েছে কর্মকর্তাদের। সে সময় ক্রিকেটকে এগিয়ে নিতে যে কয়েকজন ক্রিকেটপ্রেমী মনপ্রাণ উজাড় করে কাজ করেছেন, রাইসউদ্দিন ছিলেন তাদের অন্যতম। বাংলাদেশ আজ টেস্ট খেলছে, ওয়ানডে খেলছে, বিশ্বকাপও খেলছে নিয়মিত। দেশের ক্রিকেটের শুরুতে এই স্বপ্নগুলো দেখতেন রাইসউদ্দিন। তার স্বপ্নগুলো পূরণ হয়েছে। মাঠে বসে স্বপ্নগুলো পূরণ হতে দেখেছেন। ভালোলাগায় আপ্লুত হয়েছেন। বাংলাদেশের ক্রিকেটের অন্যতম রূপকার রাইসউদ্দিন গতকাল সকালে রাজধানীর একটি হাসপাতালে মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে দেশবরেণ্য ক্রীড়া ব্যক্তিত্বের বয়স হয়েছিল ৮২। তিনি নিউমোনিয়া আক্রান্ত হয়েছিলেন।

তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছে বিসিবি, বিএসজেসি, বিএসজেএ, বিএসপিএ।

রাইসউদ্দিন ১৯৭৫ থেকে ১৯৮১ সাল পর্যন্ত তৎকালীন বাংলাদেশ ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিবি) আগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এরপর ১৯৯১-২০০১ সাল পর্যন্ত ছিলেন বিসিবি সহ সভাপতি। তিনি সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীন প্রথম বিদেশি ক্রিকেট দল ঢাকায় আসে। ১৯৭৬ সালে প্রথম দল হিসেবে ঢাকায় আসে এমসিসি। সে সময় শুধু এমসিসি নয়, ঢাকায় এসেছিল শ্রীলঙ্কা জাতীয় দল, হায়দরাবাদ ব্লুজ, পশ্চিমবঙ্গসহ বেশ কয়েকটি দল। তিনি সহ সভাপতি থাকাকালীন বাংলাদেশ ওয়ানডে ও টেস্ট স্ট্যাটাস পায়। তার সময়েই বাংলাদেশ ক্রিকেটে স্পনসর প্রথা শুরু হয়। স্কুল ক্রিকেট শুরু হয়। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ছিলেন বাংলাাদেশ বিমানের চিফ অব অ্যাডমিন। খেলোয়াড়ি জীবনে তিনি ভিক্টোরিয়া ও ওয়ান্ডারার্সের হয়ে ক্রিকেট ও ফুটবল খেলেছেন। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট কায়দে আজম ট্রফিতেও খেলেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ছাড়াও ছিলেন বাস্কেটবলে পূর্ব পাকিস্তান দলের অধিনায়ক। এই ক্রিকেট ব্যক্তিত্ব এমসিসির আজীবন সদস্যপদ সম্মান পান ১৯৮২ সালে।


আপনার মন্তব্য