শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৫০

শেখ জামালের রোমাঞ্চকর জয়

ম্যাচ রিপোর্ট

ক্রীড়া প্রতিবেদক


শেখ জামালের রোমাঞ্চকর জয়

কার হাসি কে হাসল? সাইফ স্পোর্টিং নিঃসন্দেহে শক্তিশালী দল। কোনো সংশয় নেই এক্ষেত্রে তারা শেখ জামাল ধানমন্ডির চেয়ে এগিয়ে। পেশাদার ফুটবল লিগে গতকাল বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দুদল মুখোমুখি হয়। আগের তিন ম্যাচে তিন বারের চ্যাম্পিয়ন শেখ জামাল টানা জয় পেয়েছে।

প্রথমার্ধেই সাইফ ২-০ গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর জামালের হার মনে হচ্ছিল সময়ের ব্যাপার। কিন্তু সেই সাইফই শেষ পর্যন্ত হারবে তা কেউ ভাবেনি। ২ গোলে পিছিয়ে থেকেও ৩ গোল দিয়ে জয় ঠিকই ধরে রাখে জামাল।

এই অবিশ্বাস্য কাজটি শেখ জামাল বাস্তবে রূপ দিল দ্বিতীয়ার্ধে বীরত্বপূর্ণ ম্যাচ খেলে। প্রথমার্ধে সাইফ ম্যাচ নিয়ন্ত্রণে রাখে। দ্বিতীয়ার্ধে দৃশ্যটা পুরোপুরি পাল্টে যায়। সোলেমান কিং, সোলেমান সিল্লা, ওমর জোবের সঙ্গে নুরুল আবছার ম্যাজিক প্রদর্শন করলে সাইফের রক্ষণভাগ ভেঙে চুরমার হয়ে যায়। প্রথমার্ধে জামালের রক্ষণভাগের নিস্ক্রিয়তায় সাইফ গোল পেয়েছিল। দ্বিতীয়ার্ধে শেখ জামালের ডিফেন্স যেন চীনের প্রাচীর হয়ে দাঁড়ায়। সে সঙ্গে পরিকল্পিত আক্রমণে সাইফের অবস্থা ‘ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি’।

প্রথমার্ধের ২২ মিনিটে ফাহিম ফয়সালের গোলে এগিয়ে যায় ফেডারেশন কাপ রানার্সআপ সাইফ। ওকোলির বাড়ানো বলে তিনি ঠান্ডা মাথায় জাল স্পর্শ করেন। ইনজুরি টাইমে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ওকোলি। ব্যবধান ২-০। তাই শেখ জামালের বড় হারের শঙ্কা জাগে সমর্থকদের মধ্যে। দ্বিতীয়ার্ধে যেন নতুন জামালের দেখা মিলে। একের পর এক আক্রমণ। শেষ ১৫ মিনিটে রীতিমতো ঝড় তুলল শেখ জামাল।

৭৫ মিনিটে ব্যবধান কমাল অধিনায়ক সলোমান কিং। অবিশ্বাস্য ঘটনা, এক মিনিট পরই আরেক গোলে সমতা। নুরুল আবছার চমৎকারভাবে গোল করেন। সাইফ পুরোপুরি কোণঠাসা। ম্যাচের শেষের দিকে পেনাল্টি থেকে সলোমন কিংয়ের গোল। রোমাঞ্চকর ম্যাচে পিছিয়ে থেকেও ৩-২ গোলে জয়। বসুন্ধরা কিংস ৫ ম্যাচে ১৫, শেখ রাসেল ১৩ ও এক ম্যাচ কম খেলে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে শেখ জামাল।


আপনার মন্তব্য