শিরোনাম
প্রকাশ : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০৭:৩০

হোয়াইট হাউস ধরে রাখতে জোড়া প্রতিশ্রুতি ট্রাম্পের

অনলাইন ডেস্ক

হোয়াইট হাউস ধরে রাখতে জোড়া প্রতিশ্রুতি ট্রাম্পের

হোয়াইট হাউসের আসন ধরে রাখতে ফের প্রতিশ্রুতিই হাতিয়ার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। এবার একসঙ্গে জোড়া প্রতিশ্রুতি। কাল এক সাংবাদিক বৈঠকে তিনি দাবি করলেন, নভেম্বরের ভোটে জিতে এলে প্রথম মাসেই ইরানের সঙ্গে নতুন চুক্তি করবেন। আর দ্বিতীয়ত, প্যালেস্তাইনকে বাগে এনে পশ্চিম এশিয়ায় শান্তি ফেরাবেন।

সূত্রের খবর, আগামী সপ্তাহেই হোয়াইট হাউসে আসছেন সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইসরায়েলের প্রতিনিধিরা। এখানেই দু’দেশের মধ্যে প্রস্তাবিত শান্তি চুক্তি সই হওয়ার কথা। আগাম এই চুক্তির কথা মাথায় রেখে ইতিমধ্যেই ২০২১-এর নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য ট্রাম্পকে মনোনীত করেছেন নরওয়ের পার্লামেন্ট-সদস্য টিবরিং জেড্ডে।

ভোটের মুখে এ থেকে বাড়তি অক্সিজেন নিয়েই ট্রাম্প দাবি করলেন, এই চুক্তি সই হয়ে গেলে দেখবেন পশ্চিম এশিয়ার অনেক দেশই শান্তি চেয়ে আমেরিকার দ্বারস্থ হচ্ছে। অনুদান হিসেবে এতোদিন বছরে ৭৫ কোটি ডলার দেওয়া হচ্ছিল প্যালেস্তাইনকে। ‘‘কিন্তু ওরা শান্তিস্থাপনে আগ্রহ দেখাচ্ছিল না বলে, সম্প্রতি ওই অনুদান বন্ধ করেছি। চুক্তি হয়ে গেলেই ব্যাপারটা নিয়ে ভাববো।’’

ইরানের সঙ্গে নতুন চুক্তির ব্যাপারেও আত্মবিশ্বাসী ট্রাম্প। তার যুক্তি, ‘‘জিডিপি ২৫ শতাংশেরও বেশি কমে যাওয়া ইরান ধুঁকছে এখন। আমার আশা, আমেরিকার সঙ্গে চুক্তি করে ফের সাফল্যের মুখ দেখবে তেহরান।’’

মার্কিন কূটনীতিকদের একাংশ বলছেন, দেশে বাড়তে থাকা বেকারত্ব আর করোনা-মোকাবিলায় প্রশাসনিক ব্যর্থতা থেকে ভোটারদের নজর ঘোরাতেই ট্রাম্প এখন ইরান-ইজ়রায়েলের কথা বলছেন।

এদিকে আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়া নাক গলাতে চাইছে, এই অভিযোগে গত কালই তিন রুশ বংশোদ্ভূত এবং মস্কো-ঘনিষ্ঠ ইউক্রেনের এক পার্লামেন্ট সদস্যের উপরে নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছে ট্রাম্পের প্রশাসন। ওই তিন রুশ নাগরিক রাশিয়ার ইন্টারনেট রিসার্চ এজেন্সিতে কর্মরত বলে দাবি ওয়াশিংটনের।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর