Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৬ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৪৫
সেলফি স্টাইল
সেলফি  স্টাইল

স্মার্টফোনের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফিচার সম্ভবত ফ্রন্ট ক্যামেরায় সেলফি। ইদানীং অনেকে স্মার্টফোনের মান যাচাই করেন এর সেলফি কোয়ালিটি দেখে।

এটা অবশ্য ঠিক নয়। তবে সেলফি নিয়ে অনেকের নেগেটিভ চিন্তা থাকলেও বিশ্বজুড়ে সেলফি সংস্কৃতিকে অস্বীকারের কোনো জো নেই। তাই ভালো সেলফি তোলার জন্য কিছু জিনিস জেনে নেওয়া দরকার। ভুলে গেলে চলবে না ভালো সেলফি তোলাও কিন্তু হাল আমলের ফ্যাশন।

 

সেলফি কাকে বলে, তা নিশ্চয়য়ই নতুন করে বলতে হবে না। নিজের প্রতিকৃতিকে ইংরেজিতে সেলফি বলে। কিন্তু ‘সেলফি’ শব্দটা অনেক আগেই ছিনতাই করে নিয়ে গেছে স্মার্টফোন। নিজের ছবি নিজে তোলার নামই এখন ‘সেলফি’। ইদানীং বাংলায় একে কেউ কেউ আবার ‘নিজস্বী’ বলতে শুরু করে দিয়েছে।

 

গত বছর অক্সফোর্ড অভিধানের বর্ষসেরা শব্দ ছিল সেলফি। ‘সেলফি’ শব্দ থেকে ‘সেলফিটিস’।

স্মার্টফোনে নিজের স্মরণীয় সময়কে ধরে রাখতে সেলফি তোলা যেতেই পারে। কিন্তু এটা যদি মাত্রাতিরিক্ত হয়ে যায়, তাহলে দেখা দিতে পারে সমস্যা। অতিরিক্ত সেলফি তোলার অভ্যাসের বিরুদ্ধে সতর্ক করেছে মার্কিন গবেষকেরা। আমেরিকান সাইক্রিয়াটিক অ্যাসোসিয়েশন (এপিএ) সেলফি তোলার অভ্যাসটা একপর্যায়ে মানসিক ব্যাধিতে রূপান্তরিত হতে পারে বলে দাবি করেছেন। বার বার নিজের ছবি তোলার প্রবণতা এবং সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটে দেওয়ার এই মানসিক সমস্যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘সেলফিটিস’।

এই মানসিক রোগটি এমনই যে, বার বার নিজের মুখটি দেখতে ইচ্ছে করে। নানাভাবে নানা কায়দায় নিজেকে দেখার এই প্রবণতা স্বাভাবিক জীবনযাপনকে এলোমেলো করে দিতে পারে। আশেপাশের মানুষের কাছে হতে পারে মহাবিরক্তিকর চরিত্র। সুতরাং সেলফি থেকে যেন ‘সেলফিটিস’ না হয় সে ব্যাপারে নজর রাখতে হবে সবার আগে।

 

সেলফি যখন উন্মাদনা

এ সময়ের ছেলেমেয়েদের মধ্যে সেলফি তোলার প্রবণতা এত বেড়ে গেছে যে, তাদের সেলফি জেনারেশন বললেও ভুল হবে না। এই সেলফি ক্রেজ দিন দিন বাড়ছেই। ছুটে আসা ট্রেন কিংবা বিষধর সাপের সামনে গিয়েও সেলফি তুলতে চান অনেকে। আর এমন বেপরোয়া আচরণের কারণে ঘটেছে জীবন হারানোর ঘটনাও। ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে সারা বিশ্বে সেলফি তুলতে গিয়ে কমপক্ষে ৩৭টি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

 

সেলফি তোলায় সচেতনতা

নিজের জীবনকে নিশ্চয়ই আপনি ভালোবাসেন, তাই জীবন বিপন্ন করে ছবি তোলার প্রসঙ্গ এখানে বাদই দেওয়া হলো। কিন্তু আমরা অনেক সময়ই এমন সব স্থানে ছবি তুলি যে জায়গাগুলো হয়তো হিস্টোরিকাল ট্র্যাজিক লোকেশন। এ ব্যাপারটিকে অনেকেই ভালো চোখে দেখেন না এবং মূলত এসব জায়গায় সেলফি তোলাও উচিত নয়।

ভারতের মুম্বাই শহর ও সমুদ্র উপকূলের ১৫ স্থানে সেলফি তোলা নিষিদ্ধ করেছে দেশটির পুলিশ। শুধু তাই নয়, এসব স্থানে ভুল করেও কেউ সেলফি তুললে তাকে এক হাজার ২০০ রুপি জরিমানা দিতে হবে। কে জানে আমাদের দেশেও অদূর ভবিষ্যতে এমনটা হতে পারে, নিষিদ্ধ স্থানে সেলফি তোলার জন্য গুনতে হতে পারে জরিমানা। তাই আগেভাগেই সচেতন থাকাটাই তো ভালো। ধরুন একটা নতুন স্থানে আপনি আপনার পরিবারের সঙ্গে কিংবা বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে ঘুরতে গিয়েছেন। এখন আপনি যদি আপনার পারফেক্ট ছবি তোলার জন্য সারাক্ষণ ছবিই তুলছেন। এতে আপনি নিজে কিছুই উপভোগ করছেন না, পাশাপাশি আপনার সঙ্গের মানুষগুলোকেও বিরক্ত করছেন। আপনি নিশ্চয়ই বিরক্তিকর প্রাণীর খেতাব পেতে চান না। তাই কোনো স্থানে ঘুরতে গেলে দু-একটি ছবি তুলেই ক্ষান্ত দিন। ঘুরে দেখুন চারপাশ, সেলফিই সব কিছু নয়।

 

সেলফি তুলুন নিখুঁতভাবে

এতক্ষণে অনেকেই বোধ হয় ভাবতে শুরু করেছেন, সেলফি তোলার বিরুদ্ধেই এই লেখা। মোটেও তা নয়। অবশ্যই আপনি সেলফি তুলবেন, কারণ সময়কে ধরে রাখতে এর জুড়ি নেই। তবে তা তুলতে হবে নিজের নিরাপত্তা ঠিক রেখে, অন্যের বিরক্তির কারণ না হয়ে। আসুন এবার সুন্দরভাবে নিখুঁত সেলফি তোলার কিছু উপায় জানা যাক।

 

>> একটি ভালো সেলফির জন্য আলোর ঔজ্জ্বলতাও একটি বিবেচ্য বিষয়। নয়তো ফ্লাশের আলোর ঝলকানির মতো চেহারাও ঝলসে যাবে।

 

>> সেলফিতে অনেকের মুখের নিচের অংশ বেশ ভারী আসে। আবার অনেকের মুখে বেশি বেশি ভাঁজ দেখা যায়। এ সমস্যা দূর করতে ক্যামেরা কখনোই মুখের নিচে ধরবেন না। অ্যাঙ্গেল ঠিক করে নেওয়াটাও সঠিক সেলফির  একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ।

 

>> সেলফি তোলার সময় হাসির ক্ষেত্রেও আপনাকে একটুখানি সংযত হতে হবে। যেহেতু কাছ থেকে ছবি তোলা হয় তাই হালকা হাসিই সেলফিতে বেশি ভালো দেখায়। এমনভাবে হাসুন যেন জিহ্বা দেখা না যায়। তাহলে হাসিটা স্বাভাবিক ও ন্যাচারাল আসবে।

 

>> অনেক সময় সেলফিতে চোখের মণি সাদা আসে। এ সমস্যা থেকে রেহাই পেতে ছবি তোলার ঠিক আগে একটু উজ্জ্বল আলোতে তাকিয়ে নিন। তাহলে চোখের পিউপিল সঙ্কুচিত হয়ে আসবে, যার ফলে মণি সাদা হওয়ার সমস্যা থাকবে না।

 

>> কোন অ্যাঙ্গেলে দাঁড়ালে সেলফি বেশি ভালো আসে সেটা বুঝে নিন। মুখের কোন দিকটা ছবিতে বেশি ভালো আসে সে দিকে লক্ষ রাখুন। হাত কাঁপা রুখতে এবং যে কোনো অ্যাঙ্গেলে ছবি তুলতে সেলফি স্টিক ব্যবহার করতে পারেন।

 

>> আপনার যে সেলফিটি সবচেয়ে সুন্দর এসেছে, তাতে কীভাবে দাঁড়িয়েন, মুখভঙ্গি কেমন ছিল, সবই ভালো করে দেখুন এবং সেভাবে ছবি তুলুন। হাসলে যে কোনো মানুষকেই সুন্দর দেখায়। তাই সেলফি তোলার সময় নিজের সুন্দর হাসিটি ফুটিয়ে তুলুন। যেহেতু কাছ থেকে ছবি তুলছেন, সুতরাং মনে রাখবেন মেকআপে যেন বাহুল্য না থাকে।

চেষ্টা করুন হালকা মেকআপে নিজেকে সুন্দর করে সাজাতে।

 

টিপস

সেলফি জ্বরে ভাসছে গোটা বিশ্ব। বাড়ির ছোট্ট শিশুটি থেকে শুরু করে বড় বড় সেলিব্রেটি পর্যন্ত সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুলে চলেছেন এই সেলফির গুণে। সেলফি স্রেফ ছবিই নয় নিজেকে ভিন্ন মাত্রায় উপস্থাপন করার কৌশল। জেনে নেওয়া যাক সেলফি আকর্ষণীয় করার কিছু টিপস।

ক্যামেরা নির্বাচন

সেলফি তোলার প্রথম শর্ত ভালো মানের ক্যামেরা। যদিও এখনকার স্মার্টফোনগুলোতে রিয়ার আর ফ্রন্ট ক্যামেরা দুটোই থাকে। তবে সেলফির জন্য বেছে নিন ফ্রন্ট ক্যামেরা। এ ক্ষেত্রে ফ্রন্ট ক্যামেরাকে সেলফি তোলার জন্য নির্বাচন করার আগে দেখে নিতে হবে তার ক্ষমতা কতটুকু। কমপক্ষে ৫ মেগাপিক্সেল না হলে এখন আর সেলফি তোলায় মজা আসে না।

সুন্দর ব্যাকগ্রাউন্ড

অনেকেই সেলফি তুলে খুশি মনে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড দিয়ে থাকেন, কিন্তু খেয়াল রাখা উচিত ছবির ব্যাক্রউন্ডে কি রয়েছে। একটি সুন্দর সেলফির জন্য ব্যাকগ্রাউন্ডের ভূমিকা অনেক।

ক্যামেরার দিকে নজর দিন

সেলফি তোলার সময় ফ্রন্ট ক্যামেরার দিকে নজর দিন। অনেকেই আছে স্মার্টফোনের ডিসপ্লের দিকে তাকিয়ে থাকেন এতে ছবিটা নষ্ট হয়ে যায়। ফ্রন্ট ক্যামেরায় ছবি তোলার সময় সরাসরি ক্যামেরার দিকেই তাকান।

লাইটিংয়ের দিকে নজর দিন

আশেপাশের আলোর জন্য আমাদের ছবিতে বিশাল পরিবর্তন চলে আসে। তাই সেলফি তোলার আগে চারপাশে নজর দিন। উজ্জ্বল আলো পেছনে রেখে কখনই ছবি তুলবেন না।

নিজের ভালো লুকসটি খুঁজে বের করুন

আমাদের নিজের ছবি সব দিক থেকে খুব একটা ভালো দেখায় না। প্রত্যেকরই আলাদা আলাদা একটা নির্দিষ্ট দিক রয়েছে যে দিকটি ভালো মানের হবে সে দিকটিতেই ছবি তুলুন। আপনাকে কোনো পাশ থেকে ছবি তুললে সবচেয়ে ভালো দেখায় সেটি আপনিই ভালো বুঝবেন।

ক্যামেরা একটু উপরের দিকে ধরুন

সেলফি তোলার সময় ক্যামেরা কখনোই নিচে ধরবেন না। একটু উপরে তুলে এরপর সেলফি তুলুন। এতে আপনার চোখ সুন্দর দেখাবে, নাক ছোট দেখাবে।

সেলফি তোলার সময় হাসুন

হাসলে যে কাউকেই সুন্দর দেখায়। তাই সেলফি তোলার সময় নিজের সুন্দর হাসিটি ফুটিয়ে তুলুন। ঘাড় একটু কাত করে হাসিমুখে পাশ থেকে সেলফি তুলুন।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow